২৪ জানুয়ারি ২০১৯

নারীবান্ধব নগরীর প্রত্যাশা বরিশালের নারীনেত্রীদের

নারীবান্ধব নগরীর প্রত্যাশা বরিশালের নারীনেত্রীদের। - নয়া দিগন্ত।

বরিশাল নগরীর প্রায় অর্ধেক ভোটার নারী হলেও বরিশাল নগরীতে তাদের চলাফেরা বা অপরাপর সুযোগ-সুবিধা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে নারীরা অনেক পিছিয়ে রয়েছে। তাই বরিশাল নগরী নারীবান্ধব নগরী বলে মনে করেননা স্থানীয় নারী নেত্রীরা। তাদের মতে, কোন বাস্তবসম্মত কার্যক্রম না থাকলেও বরিশালকে শিশুবান্ধব নগরী ঘোষণা করা হলেও নারীবান্ধব নগরী করে গড়ে তুলতে এখন পর্যন্ত কোন মেয়র উদ্যোগ গ্রহণ করেননি। তবে এবারের বরিশাল সিটি নির্বাচনে একমাত্র নারী মেয়র প্রার্থী বাসদের ডা. মনীষা চক্রবর্তী তার নির্বাচনী ইশতেহারে নারীদের উন্নয়নে কর্মজীবী হোস্টেল, ডে কেয়ার সেন্টারসহ বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণের কথা বলেছেন। তার নির্বাচনী ভিজ্যুয়াল ডকুমেন্টরি সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

বরিশালের নারী নেত্রীরা আসন্ন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র প্রার্থীদের কাছে নারীবান্ধব নগরী গড়ে তুলতে কর্মজীবী মহিলা হোস্টেল নির্মাণ, নারী শ্রমিকদের মজুরি বৈষম্য বিলুপ্ত, মাদার্স কর্নার প্রতিষ্ঠাসহ নারীবান্ধব নগরী গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি এবং নির্বাচিত হলে তা বাস্তবায়নের দাবি করেন।

সূত্রমতে, সিটি নির্বাচনে মোট ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৪২ হাজার ১১৬ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ২১ হাজার ৪৩৬ জন এবং নারী ভোটার ১ লাখ ২০ হাজার ৭৩০ জন। অর্থাৎ মাত্র ৭০৬ জন পুরুষ ভোটার বেশি। যাদের সিংহভাগই ভোটের সময়ে কর্মস্থলে থাকায় বরিশালে ভোট দিতে পারেন না। ভোটার সংখ্যায় নারীরা অর্ধেক হলেও নগরীতে তারা নানাভাবে বঞ্চিত ও উপেক্ষিত হচ্ছে।

নারীদের ভাগ্য পরিবর্তনে দীর্ঘদিন থেকে কাজ করা উন্নয়ন কর্মী শাকিলা ইসলাম বলেন, ভোটের পরিসংখ্যানে বরিশাল নগরীতে জয়-পরাজয়ের অন্যতম ফ্যাক্টর নারীদের ভোট। অথচ বিগত তিনটি সিটি নির্বাচনে নির্বাচিত মেয়রের কোন সদিচ্ছা ছিলোনা বরিশালকে নারীবান্ধব করে গড়ে তোলার। এমনকি বার্ষিক বাজেটেও এ বিষয়টি তুলে ধরা হয়নি। ফলে এখনও নগরীতে নারীরা চলাফেরায়, কর্মস্থলে এবং সমান অধিকার প্রাপ্তিতে নানাভাবে হয়রানির শিকার হচ্ছেন।

নারী নেত্রী প্রতিমা সরকার বলেন, বরিশাল নগরীতে নারী ভোটার অর্ধেক হলেও তাদেরই অধিকার ও সুবিধাবঞ্চিত করে রাখা হয়েছে। শ্রমজীবী নারীরা মজুরি বৈষম্যের শিকার। নগর কর্তৃপক্ষের উচিত শ্রমজীবী নারীদের অধিকার রক্ষায় সুনির্দিষ্ট নীতিমালা করা। কর্মজীবী মায়েরা তাদের শিশু সন্তানদের কোথায় রেখে কর্মস্থলে যাবেন তার কোন সুব্যবস্থা নেই। তিনি আরও বলেন, নারীদের জন্য নগর কর্তৃপক্ষের এ অধিকারগুলো নিশ্চিত করার দায়িত্ব হলেও কেউ সে দায়িত্ব পালন করেননি।

সরকারি বিএম কলেজের মার্কেটিং বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রফেসর শাহ সাজেদা বলেন, নগরীতে স্বাচ্ছন্দ্যে নারীদের চলাচলেও নানা প্রতিবন্ধকতা রয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগামী ছাত্রীরা প্রতিনিয়ত ইভটিজিংয়ের শিকার হচ্ছেন। অথচ নারীদের ভোট নিয়ে নির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলরা এসব বিষয়ে কখনও মাথা ঘামান না। এখনও একজন নারী সহজে গণপরিবহনে যাতায়াত করতে পারেন না।

এ প্রসঙ্গে বিএনপির প্রার্থী অ্যাডভোকেট মোঃ মজিবর রহমান সরোয়ারের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক বিলকিস আক্তার জাহান শিরিন বলেন, বিএনপি সর্বক্ষেত্রে নারীদের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিচ্ছে। আসন্ন নির্বাচনে তাদের প্রার্থী বিজয়ী হলে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে বরিশালকে নারীবান্ধব নগরী গড়ে তোলার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এজন্য আমাদের প্রার্থীর ২৮ দফা ইশতেহারের মধ্যে নারীদের সামগ্রিক জীবনমান উন্নয়নে বেশ কিছু বাস্তবমুখী পদক্ষেপের কথা বলা হয়েছে।

বরিশাল জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দা মনিরুন নাহার মেরী বলেন, বিএনপির নেতারা বরাবরেই নারীদের সমান সুযোগ দেয়ার ব্যাপারে বিরোধীতা করে আসছেন। তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগ নারীর ক্ষমতায়নে বিশ্বাসী। সর্বক্ষেত্রে আওয়ামী লীগ-ই নারীদের অগ্রাধিকার দিচ্ছে। এজন্যই নারীরা আজ সর্বক্ষেত্রে সমান অধিকার পেয়ে কর্মক্ষেত্রে সুযোগ পেয়েছেন। আসন্ন সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত উন্নয়নের প্রতীক নৌকা মার্কার প্রার্থী সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহকে নির্বাচিত করা হলে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে বরিশালকে নারীবান্ধব নগরী হিসেবে গড়ে তোলা হবে।

সুষ্ঠু পরিবেশ বিরাজ করছে
আগামী ৩০ জুলাই বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনকে ঘিরে জনগণের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা বিরাজ করছে জানিয়ে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা মার্কার মেয়র প্রার্থী সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ বলেন, নগরবাসীর ব্যাপক সারাপেয়ে নির্বাচনে উন্নয়নের প্রতীক নৌকা মার্কার গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে ইনশাল্লাহ নৌকার বিজয় হবে। তিনি আরও বলেন, এখন পর্যন্ত প্রচার-প্রচারণার মাঠে সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশ বিরাজ করছে। সাদিক আব্দুল্লাহ বলেন, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী হওয়ায় বিরোধী প্রার্থীদের আঙ্গুলটা আমার ওপরে আসে। এজন্য আমার নিজের ওয়ার্ডের ভোট কেন্দ্রসহ আশপাশের বেশ কয়েকটি ভোটকেন্দ্রে ইভিএমের জন্য আবেদন করেছি।

সরোয়ার পত্নীর গণসংযোগ
সিটি নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ মার্কার মেয়র প্রার্থী মজিবর রহমান সরোয়ারের পক্ষে ভোট চাইতে এবার মাঠে নেমেছেন তার স্ত্রী নাসিমা সরোয়ার। নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডে তিনি ধানের শীষের পক্ষে প্রচারনা চালিয়ে ভোট প্রার্থনা করেন। এসময় তার সাথে থাকছেন বিএনপি নেত্রী ও সাবেক সংসদ সদস্য ইসরাত সুলতানা ইলেন ভূট্রো, মহানগর মহিলা দলের সভাপতি শামীমা আকবর, যুগ্ম সম্পাদক ফাতেমাতুজ জোহরা মিতু প্রমুখ। তিনি প্রতিদিনই নারী নেত্রীদের সাথে নিয়ে গণসংযোগে ধানের শীষ প্রতীকের পক্ষে সক্রিয় ভূমিকা রাখছেন।


আরো সংবাদ

স্ত্রীর পরকীয়া দেখতে এসে বোরকা পরা স্বামী আটক (১৬৩৩৪)ইসরাইল-ইরান যুদ্ধ যেকোনো সময়? (১৫৮১৫)মেয়েদের যৌনতার ওষুধ প্রকাশ্যে বিক্রির অনুমোদন দিল মধ্যপ্রাচ্যের এ দেশটি (১৫৪৭৯)মানুষ খুন করে মাগুর মাছকে খাওয়ানো স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা গ্রেফতার (১৫২৩২)ইরানি লক্ষ্যবস্তুতে প্রচণ্ড ইসরাইলি হামলা, নিহত ১১ (১৩৮১২)মাস্টার্স পাস করা শিক্ষকের চেয়ে ৮ম শ্রেণি পাস পিয়নের বেতন বেশি! (১১৪৪৩)৩০টি ইসরাইলি ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র ভূপাতিত (৯৩৬২)একসাথে চার সন্তান, উৎসবের পিঠে উৎকণ্ঠা (৮২৮৫)করাত দিয়ে গলা কেটে স্বামীকে হত্যা করলেন স্ত্রী (৬০৭৯)শারীরিক অবস্থার অবনতি, কী কী রোগে আক্রান্ত এরশাদ! (৫৩৪৫)