১২ নভেম্বর ২০১৯

জাবিতে শনিবারও ভিসি বিরোধী বিক্ষোভ, মহাসড়কের পাশে অবস্থান

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধের পঞ্চম দিনেও ভিসির দুর্নীতি বিরোধী বিক্ষোভ অব্যাহত রেখেছে আন্দোলনকারীরা। শনিবার বিকাল পাঁচটায় আন্দোলনকারীরা কলা ও মানবিকী অনুষদের সামনে থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে জাবির শহীদ মিনার, অমর একুশে ও মূল ফটক প্রদক্ষিণ করে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের পাশে অবস্থান করে। এসময় তারা শুক্রবার ভিসির দুর্নীতির বিভিন্ন চিত্র সম্বলিত আঁকা ৬০গজ দীর্ঘ ‘পটচিত্র’ নিয়ে বৃষ্টির মধ্যে মহাসড়কের পাশে অবস্থান করেন। পরে বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে আন্দোলনকারীরা দুর্নীতি বিরোধী স্লোগান দিয়ে আবার নতুন কলা ভবনে ফিরে আসে।

বিক্ষোভ শেষে আন্দোলনকারী শিক্ষক খন্দকার হাসান মাহমুদ বলেন,‘আমরা দুর্নীতি দমনের জন্য শেষ পর্যন্ত লড়াই করে যাবো। শুক্রবার আমরা শিক্ষামন্ত্রীর একান্ত সচিব ডক্টর আলীম খানের কাছে ভিসির দুর্নীতির তথ্য উপাত্ত জমা দিয়েছি। সেখানে ছয় পাতার অভিযোগপত্র ও সত্তরটি নথিপত্র জমা দিয়েছি। আশা করি সরকার নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে বিষয়গুলো খতিয়ে দেখবেন।’

শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় তিনি আরো বলেন,‘আমরা তদন্তের বিষয়ে উপমন্ত্রীর আশ্বাসকে সাধুবাদ জানায়। তবে উপমন্ত্রী বলেছে ‘জাবি থেকে দুর্নীতির তথ্যউপাত্ত আসতে চারদিন লাগে নাকি? এখানে দুরভিসন্ধীও থাকতে পারে!’ আমরা এখানে বলতে চায়, আন্দোলনকারীদের (আমাদের) প্রতিনিধি দল যখন গত ৩ তারিখে প্রথমবার শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির সাথে আলোচনায় বসেছিলো, তখন আট তারিখের মধ্যে দুর্নীতির তথ্য উপাত্ত দেয়ার কথা ছিলো। আমরা তা আট তারিখের মধ্যেই জমা দিয়েছি।’ হয়তো এ বিষয়টি উপমন্ত্রী জানতেন না।’

এছাড়াও সহযোগী অধ্যাপক খন্দকার হাসান মাহমুদ বলেন,‘সরকার প্রকল্পের টাকা ছাড়েনি তাই বলে দুর্নীতি হতে পারেনা- আমরা এটা বিশ্বাস করি না। টাকা না ছাড়লেও ঠিকাদারদেরকে চাপ দিয়ে টাকা নেয়া যায়।’


আরো সংবাদ