২০ নভেম্বর ২০১৯

গুগল ম্যাপে আবরারের নামে হল, অভিযুক্তদের নামে টয়লেট

গুগল ম্যাপে আবরারের নামে হল, অভিযুক্তদের নামে টয়লেট - ছবি গুগল ম্যাপ থেকে নেয়া

‘যাহা চাই তাহা ভুল করে চাই, যাহা পাই তাহা চাই না’রবী ঠাকুরের কবিতার এই লাইনটির সাথে অনেকটাই মিলে গেল বুয়েটের আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের চাওয়া পাওয়ার হিসাব। কারণ বুধবার সকাল থেকে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের শেরে বাংলা হলের গুগল ম্যাপে দেখা যাচ্ছে আমূল পরিবর্তন।

তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগের শিক্ষার্থী আবার ফাহাদ হত্যার পর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনে ব্যাপক পরিবর্তন আসলেও এ পরিবর্তন ছিল চাওয়া পাওয়ার বাহিরে।

‘শেরে বাংলা হল’ এর নাম পরিবর্তন হয়ে ‘শহীদ আবরার হল’ দেখানো হচ্ছে। সার্চ ইঞ্জিন গুগলের আরেক সেবা গুগল ম্যাপে এমনটি দেখানো হচ্ছে বুধবার সকাল থেকে। এছাড়া হলের ভেতরে থাকা টয়লেট গুলোর নামেও এসেছে পরিবর্তন। আবরার হত্যার সাথে অভিযুক্তদের নামের সাথে পাবলিক টয়লেটগুলোরও নামে পরিবর্তন এসেছে।

গুগলের সাহায্যে দেখা যায়, কিলার ফুয়াদ পাবলিক টয়লেট, অমিত শাহ পাবলিক টয়লেট, রাসেল পাবলিক টয়লেট, অনিক সরকার পাবলিক টয়লেট ও রবিন পাবলিক টয়লেট নামে চিহ্নিত করা হয়েছে।

তবে এটা গুগলের কোন যান্ত্রিক ত্রুটি নয়। গুগল ম্যাপে পাশের অন্যান্য স্থান গুলোর নাম অপরিবর্তিত রয়েছে বরাবরের মতোই।

তবে গুগল ম্যাচে হলের মসজিদের নামের কোনো পরিবর্তন হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক শিক্ষার্থীর সাথে কথা হলে তারা জানায়, তারাও আজ বুধবার সকাল থেকে এমনটাই দেখছেন। তবে বিস্তারিত কিছু জানেন না তারা।

এর আগে গত ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরে বাংলা হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে আবরার ফাহাদকে বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতা-কর্মী কয়েক দফায় মারধর করেন। পরে হলের দ্বিতীয় তলার সিড়িতে ফেলে রাখে। অচেতন অবস্থায় আবরার ফাহাদকে সেখান থেকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেলে নেয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

তবে এখন পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে বা সরকারিভাবে এমন নামকরণ করা না হলেও গুগল ম্যাপে অবকাঠামোগুলোর নামে এমনই দেখা যাচ্ছে।

তথ্য-প্রযুক্তিবিদদের মতে গুগল কমিউনিটি মেম্বার থেকে এক বা একাধিক সদস্য স্থাপনাগুলোর এমন নামকরণ করে রেফার করেছেন। যা অনেকটা স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপডেট হয়েছে গুগল ম্যাপে। তবে গুগল কর্মকর্তাদের নজরে আসলে মুছে যেতে পারে নতুন নামগুলো।


আরো সংবাদ