১৭ নভেম্বর ২০১৯

‘আবরার হত্যার আসামি অনিককে কারাগারে পেটানোর খবর মিথ্যা’

‘আবরার হত্যার আসামি অনিককে কারাগারে পেটানোর খবর মিথ্যা’ - ছবি : সংগৃহীত

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার অনিক সরকারকে কারাগারে অন্য আসামিরা পিটিয়েছে মর্মে যে খবর গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে তা সত্য নয় বলে মঙ্গলবার দাবি করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়, বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার অনিক সরকারকে নিয়ে দৈনিক কালের কন্ঠের প্রতিবেদন ‘কারাগারে অনিককে পেটাল আসামিরা’ এবং দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিনে প্রকাশিত ‘কারাগারে পিটুনির শিকার অনিক’ এ দুটি প্রতিবেদনসহ বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রকাশিত এ সংক্রান্ত একটি সংবাদ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যথাযথ কর্তৃপক্ষ ও কারা কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষিত হয়েছে।

‘এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যথযথ কর্তৃপক্ষ ও কারা অধিদপ্তরের কারা মহা পরিদর্শক ব্রিডেগিয়ার জেনারেল এ কে এম মোস্তফা কামাল পাশার বক্তব্য হলো, অনিক সরকার গ্রেপ্তার হওয়ার পর ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পৌঁছলে তাকে যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ করে কারা সেলে রাখা হয়। কারা অভ্যন্তরে প্রবেশের পর অনিক সরকার কারারক্ষী বা কারাবন্দি কারও দ্বারাই আঘাত প্রাপ্ত বা শারিরিকভাবে লাঞ্ছিত হননি।’

‘সুতরাং মিডিয়াতে প্রচারিত এ সংবাদটি সত্য নয়,’ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়।

সম্প্রতি আবরার হত্যা মামলার আসামি অনিককে কারাগারে অন্য আসামিরা পিটিয়েছে বলে বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়।

প্রসঙ্গত, বুয়েটের ইলেকট্রিকাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে (২১) ৬ অক্টোবর রাতে শের-ই-বাংলা হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে নিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেন ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতা-কর্মী। এ ঘটনায় আবরারের বাবা বরকতউল্লাহ ১৯ জনকে অভিযুক্ত করে ৭ অক্টোবর সন্ধ্যায় চকবাজার থানায় মামলা করেন। পুলিশ মামলার এজাহারভুক্ত ১৬ আসামিসহ এ পর্যন্ত ২০ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। সূত্র : ইউএনবি


আরো সংবাদ