১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে অনলাইনেও মনিটরিং করার চেষ্টা চলছে : শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গ্রীষ্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনি - ছবি : নয়া দিগন্ত

শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনি বলেছেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে নজরদারী বাড়ানো হচ্ছে। আর এজন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা, কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা অধিদফতরের মাধ্যমে আমার মাঠ পর্যায় থেকে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মনিটরিং ও নজরদারি অনেক জোরদার করেছি। অনলাইনের মাধ্যমেও আমরা মনিটরিংয়ের চিন্তা-ভাবনা করছি। খুব শিগগিরই আমরা এ ধরণের ব্যবস্থা করতে পারবো।

আজ শনিবার দুপুর চাঁদপুরের হাইমচর উপজেরার দুর্গাপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ৪৮তম জাতীয় স্কুল, মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গ্রীষ্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতা উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী আরো বলেন, গত ১০ বছরে আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থায় যে সব পরিবর্তন সূচিত হয়েছে তারই ধারাবাহিকতায় এখন আমরা আমাদের শিক্ষায় যেন মূল্যবোধ অর্ন্তভুক্ত করতে পারি সে চেষ্টা করছি। যেন শিশুকাল থেকে শিক্ষার্থীদের মধ্যে মূল্যবোধ জাগ্রত হয়।

দীপু মনি বলেন, আমরা নতুন একটি কার্যক্রম শুরু করছি, ‘মুক্তিযুদ্ধকে জান, বঙ্গবন্ধুকে জান’। এর মাধ্যমে প্রত্যন্ত অঞ্চলের ৭ম থেকে ৯ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীরা তার এলাকায় মুুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে কি ঘটেছিলো তা জানতে পারবে এবং সেই ইতিহাস তুলে আনবে। এর মধ্যে তারা মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে জানবে এবং তাদের মধ্যে দেশপ্রেম জাগ্রত হবে। এছাড়াও অনেক সংগ্রামের বিনিময় অর্জিত দেশটির প্রতি তাদের মমত্ববোধ বাড়বে।

হাইমচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুর হোসেন পাটওয়ারীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মো: মাজেদুর রহমান খান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, হাইমচর উপজেলা ইউএনও ফেরদৌসি বেগম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোতালেব জমাদার প্রমুখ।

পরে মন্ত্রী হাইমচর উপজেলা প্রাঙ্গণে জেলেদের মাঝে উপকরণ বিতরণ, বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে নগদ অর্থ ও ঢেউটিন বিতরণ এবং তিন দিনব্যাপী কৃষিমেলার উদ্বোধন করেন।


আরো সংবাদ