২০ আগস্ট ২০১৯

ঢাবি শিক্ষার্থীর ওপর ঢাকা কলেজ শিক্ষার্থীদের হামলার অভিযোগ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্সে অধ্যায়নরত ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের শিক্ষার্থী হাসান চৌধুরী পিয়ালের উপর হামলা করা হয়। - নয়া দিগন্ত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বহনকারী বৈশাখী বাস আটকে দেয়ার পরে এবার বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর ওপর অতর্কিত হামলা করে রক্তাক্ত করার অভিযোগ উঠেছে ঢাকা কলেজের কতিপয় শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে। সোমবার রাতে রাজধানীর নীলক্ষেত এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তবে প্রাথমিকভাবে মারধরকারীদের একজনের বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া গেলেও বাকিদের পরিচয় জানা যায়নি।

এ ঘটনায় আহত হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্সে অধ্যায়নরত ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের শিক্ষার্থী হাসান চৌধুরী পিয়াল। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৪-১৫ সেশনের এবং মহসিন হলের আবাসিক শিক্ষার্থী। সোমবার রাত সাড়ে আটটার দিকে নীলক্ষেত মোড়ে এ রক্তাক্তের ঘটনা ঘটে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানাায়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মহসিন হলের আবাসিক শিক্ষার্থী পিয়াল কোচিং করতে নীলক্ষেত যায়। নীলক্ষেত থেকে কোচিং করে ফেরার সময় ঢাকা কলেজের ৭ থেকে ৮ জন শিক্ষার্থী তাকে ঘিরে রড ও লাঠিসোটা দিয়ে মারধর শুরু করে।

জানা যায়, শুধুমাত্র ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী হওয়ার কারণেই ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা তাকে মারধর করে। ঢাকা কলেজের ওই সব শিক্ষার্থীর সাথে পিয়াল হাসানের কোন কথা কাটাকাটি বা পূর্ব শত্রুতাও ছিলো না। তবে সম্প্রতি সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে চলমান আন্দোলন ওই কলেজের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি করে।

ঢাবি শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, অধিভুক্তি বাতিলের আন্দোলনকে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছিল অধিভুক্ত কলেজের শিক্ষার্থী। সোমবার পিয়ালের ওপরর আক্রমণ সে সহিংসতারই বহিপ্রকাশ বলে মনে করছেন তারা।

এ বিষয়ে অধিভুক্ত সাত কলেজ বাতিল আন্দোলনের মুখপাত্র শাকিল মিয়া বলেন, পিয়াল ভাই নীলক্ষেত মোড়ে কোচিং করতে গেলে শুধুমাত্র ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী হওয়ার কারণে ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা তাকে মারধর করে। আমি এখন ইমারজেন্সিতে আছি পিয়াল ভাইয়ের সাথে। ডাক্তার কয়েকটি এক্স-রে দিয়েছে। ভাইয়ের নাক দিয়ে রক্ত ঝরছে। আন্দোলনে পিয়ালের সক্রিয় কোনো ভূমিকা ছিলো কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, না, তবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হওয়ার কারণেই তার ওপর এ আক্রমণ করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, এদের মধ্যে একজনকে তিনি চেনেন। সিসিটিভির ফুটেজ দেখে বাকিদেরও সনাক্ত করা হবে বলে জানান তিনি।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে মহসিন হলের প্রাধ্যক্ষ নিজামুল হক ভূইয়া বলেন, আমি এ বিষয়ে কিছু জানি না।

প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানী বলেন, বিষয়টি আমরা জেনেছি। প্রক্টরিয়াল টিমের সাহায্যে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে হলে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। হলের প্রাধ্যক্ষকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বিষয়টি কী জেনে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য।

এদিকে, ঢাবি বাস আটকে দিয়ে শিক্ষার্থীদের কটূক্তির জেরে এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সক্ষমতা বিবেচনায় নিয়ে বিশ্ববিদ্যায় থেকে রাজধানীর সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে বেশ কয়েকদিন ধরেই ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে আসছে শিক্ষার্থীরা। গত দুইদিন ধরে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক এবং প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুলিয়ে দেয়। ভিসি দেশের বাইরে থাকায় প্রশাসন কোন সুনির্দিষ্ট সিদ্ধান্ত দিতে পারছেন না।

অপরদিকে লিখিত সিদ্ধান্ত না আসা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে দেয়া এক শিক্ষার্থীর বক্তব্যের প্রতিবাদে নীলক্ষেতে বিক্ষোভ করে সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা। এর মধ্যেই গতকাল সন্ধ্যায় পিয়ালের ওপর হামলা চালায় ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা। 


আরো সংবাদ




bedava internet