১৯ আগস্ট ২০১৯
ধানের ন্যায্য মূল্য দাবি

কৃষকের ধান কেটে দিলেন শাবি শিক্ষার্থীরা

বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী এক কৃষকের জমির ধান কেটে দেন শাবি শিক্ষার্থীরা - নয়া দিগন্ত

ধানের ন্যায্য মূল্য না পাওয়ায় সারাদেশে চলমান কৃষকদের প্রতিবাদের সাথে একাত্মতা জানিয়েছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। আর এরই ধারবাহিকতায় বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী এলাকায় এক কৃষকের জমির ধান কেটে দেন তারা। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের অর্ধশত শিক্ষার্থী এ কর্মসূচিতে অংশ নেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী টিলারগাঁও এলাকার অধিবাসী ও জমির কৃষক আব্দুল মতিন বলেন, আমাদের প্রতি বিঘা জমিতে যে পরিমাণ উৎপাদন খরচ হয় তার তুলনায় ধানের দাম খুবই কম। ফলে উল্টো ক্ষতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে কৃষকদের। আমাদের তো কৃষি কাজের বাইরে কিছু করারও নেই; আমরা কৃষকরা তাহলে কিভাবে বাঁচবো?

কৃষকের ধান কাটায় অংশ নেয়া শিক্ষার্থীরা বলেন, গত বছরে প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে দেশে বড় ধরণের ফসলহানি হয়। এর প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ সরকার ৩২ লাখ মেট্রিক টন চাল আমদানি করে। কিন্তু প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতির সম্মুখীন হয় ৮ লাখ মেট্রিক টন ধান। এর ফলে দেশে ধানের মজুদ বেড়ে যাওয়ায় বর্তমানে কৃষকেরা ধানের দাম পাচ্ছে মণ প্রতি ৫০০ টাকা। যেখানে এক মণ ধানের জন্য খরচ হয় ৭০০-৮০০ টাকা। এছাড়া সরকার কর্তৃক নির্ধারিত দামে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ধান সংগ্রহের কথা থাকলেও বাস্তবে তা হচ্ছে না।

বিশ্ববিদ্যালয়ের মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী সাব্বির আহমেদ বলেন, আমাদের কৃষিপ্রধান দেশে কৃষিকে বাদ দিয়ে উন্নতি কখনো সম্ভব না। বর্তমানে যা অবস্থা তাতে কৃষকদের বাঁচার পথ বন্ধ হয়ে যাবে। কৃষকেরা না বাঁচলে দেশও বাঁচবে না। আমরা মনে করি শুধু অবকাঠামোগত উন্নয়নের পিছনে না ছুটে কৃষকদের প্রতিও সরকারের নজর দেয়া উচিত।


আরো সংবাদ




bedava internet