১৭ অক্টোবর ২০১৯

সুষ্ঠু নির্বাচন হলে ছাত্রলীগ একটি পদও পেত না : নুর

মঙ্গলবার ঢাবি ক্যাম্পাসে মিছিল করেন ডাকসুর নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নুর - সংগৃহীত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নুর বলেছেন, সুষ্ঠু নির্বাচন হলে ডাকসু নির্বাচনে ছাত্রলীগ একটি পদও পেত না। ভিপি নির্বাচিত হওয়ার পরও মঙ্গলবার হামলার শিকার হয়েছি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের (টিএসসি) রাজু ভাস্কর্যের সামনে আয়োজিত এক সমাবেশে তিনি এসব কখা বলেন।

নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নুরু বলেন, কারচুপি করেও বিজয় লাভ করা থেকে আমাকে ঠেকানো যায়নি। যদি সুষ্ঠু নির্বাচন হতো, তবে ছাত্রলীগ ডাকসু নির্বাচনে একটি পদও পেত না। ভিপি ও সমাজসেবা সম্পাদক পদ ছাড়া বাকি পদগুলোতে পুনঃনির্বাচনের দাবি জানান তিনি।

এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের (টিএসসি) সামনে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ প্যানেল থেকে নির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নুরের ওপর হামলা চালায় ছাত্রলীগ। মঙ্গলবার দুপুর পৌনে দুইটায় তার ওপর এই হামলার ঘটনা ঘটে।

প্রতক্ষ্যদর্শীরা জানান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচন বাতিল করে পুনঃতফসিল ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির পদত্যাগের দাবিতে টিএসসিতে বিক্ষোভ করছিলো বামপন্থী ছাত্র সংগঠনগুলোর নেতাকর্মীরা। দুপুরে সেখানে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে যোগ দেন নব নির্বাচিত ভিপি নুরুল হক।

এসময় ছাত্রলীগের ৫০/৬০ জন নেতাকর্মী অতর্কিতে লাঠিসোটা নিয়ে নুরের ওপর হামলা করে। হামলায় ছাত্রদলের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মীও আহত হয়েছেন।
জাতীযতাবাদী ছাত্রদলের পক্ষ থেকে নির্বাচনে জিএস প্রার্থী আনিসুর রহমান খন্দকার অনিক বলেন, ছাত্রলীগের হামলায় বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের কর্মীদের বাইরেও আমাদের ৩/৪ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। এর মধ্যে একজনের কপাল ফেটে গেছে।

প্রগতিশীল ছাত্র জোটের নেতারা বলছেন, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা অতর্কিতে নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নুরসহ অন্যদের ওপর হামলা চালায়। হামলকারীরা সবাই শোভন গ্রুপের কর্মী বলে জানিয়েছেন তারা।

হামলার পর বাম জোট, কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতাকর্মীরা নুরকে ঘটনাস্থল থেকে সরিয়ে নেন। পরে ছাত্রলীগবিরোধী সব সংগঠন একত্রে ক্যাম্পাসে মিছিল বের করে।

আরো পড়ুন : পুনরায় নির্বাচনের সুযোগ নেই : প্রো-ভিসি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচন পুনরায় হওয়ার কোনো সুযোগ নেই বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি অধ্যাপক ড. আব্দুস সামাদ। আজ মঙ্গলবার দুপুর দেড়টায় নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।


ড. আব্দুস সামাদ বলেন, ‘যে যাই বলুক, যে দাবিই উত্থাপন করা হোক না কেন, নির্বাচন বাতিল করে পুনরায় নির্বাচনের তফসিলের কোনো সুযোগ নেই।’

এর আগে গতকাল ভোট শেষে রাতে ফলাফল ঘোষণা করা হয়। এতে ভিপি পদে জয়লাভ করেন কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা নূরুল হক নূর। তিনি ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনকে পরাজিত করেন।

রাত তিনটায় ভিসি মো: আখতারুজ্জামান এ ফল ঘোষণার পর থেকেই বিক্ষোভ দেখিয়ে যাচ্ছে ছাত্রলীগ। তারা এ পদে পুনরায় নির্বাচন দাবি করেছেন।


অন্যদিকে, গতকালের নির্বাচনে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ এনে আজ মঙ্গলবার এ নির্বাচনের পুনরায় তফসিল ঘোষণার দাবি জানিয়েছে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। এ দাবিতে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ করে।

আজ মঙ্গলবার দুপু‌রে এ উপল‌ক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিন এলাকা থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে সংগঠনটির নেতাকর্মীরা। ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সেটি অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে গিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশে মিলিত হয়।

সমাবেশে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি আল মেহেদী তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক আবুল বাশার সিদ্দিকী, যুগ্ম সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জু‌য়েল, দফতর সম্পাদক আকতার হো‌সেন, ছাত্রদলের প্যানেল থেকে ডাকসু নির্বাচনের সহ-সভাপতি (ভিপি) প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক (জিএস) প্রার্থী খন্দকার আনিছুর রহমান (অনিক), সহ-সাধারণ সম্পাদক (এজিএস) প্রার্থী খোরশেদ আলম সোহেলসহ কেন্দ্রীয় ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

ছাত্রদল প্যানেল ভিপি প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান সমাবেশে বলেন, গতকাল ভোট ডাকাতির যে নির্বাচন হয়েছে সে নির্বাচনকে আমরা বাতিলের দাবি জানাচ্ছি। ভিসিসহ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সকল শিক্ষকদের পদত্যাগ দাবি করছি। ডাকসু নির্বাচনের জন্য যে কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে সেটা পুনর্গঠন করে পুনঃতফসিল ঘোষণার দাবি জানাচ্ছি।

তিনি আরো বলেন, এটা ষড়যন্ত্রের নির্বাচন। রেজাল্ট পরিকল্পিত। তাই এ ফলাফল প্রত্যাখান করছি।

সোমবার ভোটগ্রহণ শেষে রাত সাড়ে ৩টার দিকে সিনেট ভবনে এ নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করেন ভিসি মো: আখতারুজ্জামান।

ভিপি পদে বিজয়ী হিসেবে কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা নূরুল হক নূরের নাম ঘোষণার সাথে সাথেই বিক্ষোভ শুরু করেন ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। এ সময় ‘ভুয়া’, ‘ভুয়া’ বলে চিৎকার করতে থাকেন তারা।

ছাত্রলীগকর্মীদের বিক্ষোভ, হৈ চৈ-এ ফল ঘোষণায় বিরতি দিতে বাধ্য হন ভিসি।

এক পর্যায়ে সেখানে উপস্থিত ছাত্রলীগ সভাপতি ও সংগঠনটির প্যানেল থেকে ভিপি প্রার্থী রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনের ইশারায় বিক্ষোভে বিরতি দেন সংগঠনটির বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা।

এরপর সাধারণ সম্পাদকসহ বাকি পদগুলোতে ভোটের ফলাফল ঘোষণা করেন ভিসি। সাধারণ সম্পাদকসহ বাকি ২৪টি পদের একটি বাদে অন্যগুলোতে ছাত্রলীগের প্যানেলের (সম্মিলিত শিক্ষার্থী পরিষদ) প্রার্থীরাই জয়ী হয়েছেন।

ফলাফল ঘোষণা শেষ হলে আবারো বিক্ষোভ শুরু করেন ছাত্রলীগকর্মীরা। এ সময় ‘ভুয়া’, ‘ভুয়া’ স্লোগানের পাশাপাশি শিবিরবিরোধী বিভিন্ন স্লোগান দেন তারা।

প্রায় আধা ঘণ্টা বিক্ষোভের পর ছাত্রলীগ সভাপতি শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী ভিসির পাশে যান। এ সময় ভিসির কাছে নূরকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কারের দাবি করেন রাব্বানী।


আরো সংবাদ

ট্রাম্পের 'অতুলনীয় জ্ঞানের' সিদ্ধান্তে বদলে গেল সিরিয়া যুদ্ধের চিত্র (৩২১৮৮)ভারতের সাথে তোষামোদির সম্পর্ক চাচ্ছে না বিএনপি (১৮৪৫৫)মেডিকেলে চান্স পেলো রাজমিস্ত্রির মেয়ে জাকিয়া সুলতানা (১৪৯৪৬)তুরস্ককে নিজ ভূখণ্ডের জন্য লড়াই করতে দিন : ট্রাম্প (১৪৭০৩)আবরারকে টর্চার সেলে ডেকে নিয়েছিল নাজমুস সাদাত : নির্যাতনের ভয়ঙ্কর বর্ণনা (১৩৮১৫)পাকিস্তানকে পানি দেব না : মোদি (১১২৭৪)১১৭ দেশের মধ্যে ১০২ : ক্ষুধা সূচকে বাংলাদেশ-পাকিস্তানের চেয়ে পিছিয়ে ভারত (৮৯৭০)তুহিনকে বাবার কোলে পরিবারের সদস্যরা হত্যা করেছে : পুলিশ (৮৮৮৫)বাঁচার লড়াই করছে ভারতে জীবন্ত কবর দেয়া মেয়ে শিশুটি (৮৬৮৭)এক ভাই মেডিকেলে আরেক ভাই ঢাবিতে (৮৫২৩)



astropay bozdurmak istiyorum
portugal golden visa