১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

সরকারকে ফের সময় : ঈদে কালো পোশাক পরবে কোটা আন্দোলনকারীরা

-

আটককৃতদের মুক্তি, হামলাকারীদের বিচার ও পাঁচ দফা দাবির ভিত্তিতে কোটা সংস্কারের প্রজ্ঞাপন জারির জন্য ফের সময় বেঁধে দিলো সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকারীরা। রোববার দুপুরে রাজধানীর শাহবাগস্থ জাতীয় জাদুঘরের সামনে কোটা সংস্কার আন্দোলনের প্ল্যাটফর্ম বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের ব্যানারে আয়োজিত ছাত্র সমাবেশ থেকে এমন সিদ্ধান্ত দেয়া হয়।

পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক বিন ইয়ামিন মোল্লা আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের পক্ষে সরকারকে সময় বেঁধে দেন। এসময় কোটা সংস্কার আন্দোলনের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন উপস্থিত থাকলেও তাকে কোনো বক্তব্য দিতে দেখা যায়নি।
এর আগে পূর্ব ঘোষণা অনুযায় কোটা আন্দোলনকারীদের এই সমাবেশ করার কথা ছিল টিএসসির রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে। এজন্য আন্দোলনকারীরা রাজু ভাস্কর্যের সামনে জড় হওয়ার চেষ্টা করলে ছাত্রলীগের মহড়ার কারণে তা ভ-ুল হয়ে যায়।
পরে কোনো ঘোষণা না থাকলেও ছাত্রলীগ সেখানে অবস্থান নিয়ে মৌলবাদ বিরোধী ছাত্র সমাবেশ করে। পরে শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা ১০ থেকে ১৫ মিনিটের জন্য জড়ো হন। সেখানে বক্তব্য দেন বিন ইয়ামিন মোল্লা।


বিন ইয়ামিন বলেন, গ্রেপ্তারকৃত ছাত্রদের নিঃশর্ত মুক্তি ও শিক্ষার্থীদের শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে হামলাকারী সন্ত্রাসীদের বিচার এবং দাবির আলোকে কোটা সংস্কারের প্রজ্ঞাপন ৩১ আগষ্টের মধ্যে না হলে সারাদেশে আন্দোলন ছড়িয়ে পড়বে। সরকার এই আন্দোলন নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে না। আমরা সরকারের প্রতি আহ্বান জানাই শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক দাবি মেনে নিন। না হলে কঠোর কর্মসূচী দেয়া হবে।

এদিকে ঈদের আগে শিক্ষার্থীদের মুক্তি দেয়া না হলে আন্দোলনের সঙ্গীদের স্মরণে সবাইকে কালো পোশাক পরে শোক প্রকাশ করে ঈদ পালন করার আহ্বান জানান বিন ইয়ামিন মোল্লা।

অবস্থান কর্মসূচিতে গ্রেপ্তারকৃত রাশেদ খান, রাতুল সরকারের পরিবারের সদস্যরা অংশ নেন। তাঁরাও নিজেদের স্বজন ও সকল বন্দীর মুক্তি চান। এদিকে একই সময় টিএসসি থেকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে শাহবাগের দিকে গেলে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা স্থান ত্যাগ করে।


আরো সংবাদ

Hacklink

ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme