১৬ ডিসেম্বর ২০১৯
কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল

জনমিতি পাল্টে দখল প্রতিষ্ঠার প্রয়াস

-

ভারতের বিজেপি সরকার দেশটির সংবিধানের ৩৭০ নম্বর অনুচ্ছেদ রদ করে গত সোমবার জম্মু ও কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা ও স্বায়ত্তশাসনের বিলোপ ঘটিয়েছে। এই অনুচ্ছেদ অন্তর্গত ৩৫-এ ধারাও স্বাভাবিকভাবে বিলুপ্ত হয়ে গেছে। এর ফলে যেকোনো ভারতীয় এখন জম্মু ও কাশ্মিরের জমি কিনতে পারবে এবং সেখানে স্থায়ীভাবে বসবাস করতে পারবে। কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করার পাশাপাশি মোদি সরকার জম্মু-কাশ্মির রাজ্যকে ভেঙে দু’টি আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের সৃষ্টি করেছে। এর ফলে ভারতের সংবিধানে ভারত অধিকৃত কাশ্মিরকে যে বিশেষ মর্যাদা দেয়া হয়েছিল তা রহিত করা হলো। রাজ্যসভার পর লোকসভাতে জম্মু-কাশ্মির রাজ্য পুনর্গঠন বিল ও ৩৭০ ধারা বিলোপের সিদ্ধান্ত অনুমোদন করিয়ে নিল বিজেপি সরকার। ভারতজুড়ে বিভিন্ন মহল প্রশ্ন তুলেছেÑ বিজেপি সরকারের এই পদক্ষেপ সাংবিধানিক না অসাংবিধানিক, সিদ্ধান্তটি বৈধ না অবৈধ?
এ ঘটনার পর কাশ্মিরে একধরনের থমথমে ভাব বিরাজ করছে। কাশ্মিরের সাথে ভারতের অন্যান্য জায়গার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। কাশ্মিরজুড়ে মোতায়েন করা হয়েছে হাজার হাজার ভারতীয় সৈন্য। ইন্টারনেট ও ফোন নেটওয়ার্ক বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। বিভিন্ন স্থানে জারি করা হয়েছে ১৪৪ ধারা। কাশ্মিরের সিনিয়র নেতাদের গ্রেফতার করা হযেছে। বিষয়টি ভারতের রাজনীতিতে উত্তপ্ত অবস্থার সৃষ্টি করেছে। পার্লামেন্ট থেকে চায়ের দোকানে পর্যন্ত চলছে এই উত্তপ্ত অবস্থা।
এ ঘটনার পর ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত আজাদ কাশ্মিরকেও ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ বলে দাবি করেন। গত মঙ্গলবার লোকসভায় জম্মু-কাশ্মির পুনর্গঠন বিল ২০১৯ উত্থাপনের সময়ে তিনি এ দাবি তোলেন। তা ছাড়া, বিবাদপূর্ণ অঞ্চল আকসাই চীনও জম্মু-কাশ্মিরের অংশ বলে দাবি করেন। মোদি সরকারের এই উদ্যোগে আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক অঙ্গনে উত্তেজনাকর পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে। তাতে অধিকৃত জম্মু ও কাশ্মিরের সাংবিধানিক মর্যাদা বাতিল, সেখানে বিপুল সেনা মোতায়েন এবং কাশ্মিরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও সিনিয়র নেতাদের গ্রেফতার করা নিয়ে সৃষ্ট উত্তপ্ত রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিষয়ে জাতিসঙ্ঘে ভারতের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছে পাকিস্তান। জাতিসঙ্ঘ এ ব্যাপারে উভয় পক্ষকে শান্ত থাকতে অনুরোধ জানায়। যুক্তরাষ্ট্র ঘনিষ্ঠভাবে বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করছে। অপর দিকে চীন ভারতের এই পদক্ষেপ চীনের সার্বভৌমত্বের ওপর আঘাত হিসেবে বর্ণনা করেছে। ইসলামাবাদে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে আজাদ কাশ্মিরের প্রধানমন্ত্রী রাজা ফারুক হায়দার বলেছেন, কাশ্মিরিদের জন্য রক্ষাকবচ এই ধারা ভারতের ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকার এক ঝটকায় বিলুপ্ত করে দেয়ার পর উত্তর-পূর্ব ভারত ও পশ্চিমবঙ্গে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।
জম্মু, কাশ্মির ও লাদাখ অঞ্চল নিয়ে গঠিত কাশ্মির উপত্যকা আপন ইতিহাস-ঐতিহ্য ও বৈশিষ্ট্য নিয়ে বিশ্ববাসীর কাছে সুপরিচিত। কাশ্মির উপত্যকার মোট জনসংখ্যার বেশির ভাগই মুসলমান। কিন্তু জম্মু হিন্দুপ্রধান, লাদাখ বৌদ্ধপ্রধান ও কাশ্মির মুসলিমপ্রধান অঞ্চল হিসেবে বরাবর ছিল। কাশ্মিরের ইতিহাস, ঐতিহ্য ও এর জনমিতি পাল্টে দিতে ভারত কাশ্মিরকে হিন্দুপ্রধান অঞ্চলে পরিণত করে কাশ্মিরে মুসলমানদের সংখ্যালঘুতে পরিণত করে তাদের ওপর ভারতীয় শাসন-শোষণ পাকাপোক্ত করার প্রয়াসই হচ্ছে কাশ্মিরের এই বিশেষ মর্যাদা বাতিল করা। আমরা মনে করি, কাশ্মির কাশ্মিরিদের। কাশ্মির নয় ভারতের, নয় পাকিস্তানের এবং নয় চীনেরও। কাশ্মিরকে পদানত করে রাখার কারো উদ্যোগ গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। কাশ্মিরকে ভারতের সেনাবাহিনীর মাধ্যমে পদানত করে রাখা যাবে না। তাই আমরা মনে করি, কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা ফিরিয়ে দেয়ার মধ্যেই সব পক্ষের জন্য কল্যাণ। ভারতকে উপলব্ধি করতে হবে, কাশ্মিরিদের স্বাধিকার আন্দোলন অস্ত্রের জোরে কিংবা বৈধ-অবৈধ পদক্ষেপের মাধ্যমে বিগত ৭০ বছরেও দমানো যায়নি। ভবিষ্যতেও দমানো যাবে না।

 


আরো সংবাদ

বন্দুকযুদ্ধে প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণ মামলার আসামি নিহত চীন-বিরোধী জোট গড়তে তৎপর ভারত জাতীয় স্মৃতিসৌধে লাল সবুজের মিলনমেলা জাতীয় স্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নাগরিকত্ব আইন নিয়ে বিক্ষোভ : দিল্লির জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে পুলিশের লাঠিচার্জ ব্যবসায় মন্দার পদধ্বনি মুক্তিযোদ্ধাদের চূড়ান্ত তালিকা ২৬ মার্চ যেকোনো মূল্যে ব্যাংকের আত্মসাৎকৃত টাকা আদায় করতে হবে : হাইকোর্ট টিকিট নিয়ে অনিয়মের অভিযোগে স্টেশন মাস্টারসহ ৪ জন বরখাস্ত আটাবে সম্মিলিত ফোরাম পূর্ণ প্যানেলে বিজয়ী সংগ্রাম সম্পাদক ও সাংবাদিক নেতাদের মামলা প্রত্যাহারে ৪৮ ঘণ্টার আলটিমেটাম

সকল




hacklink Paykwik Paykasa
Paykwik