১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

একনেক সভায় ৫,৪৯৪ কোটি টাকার ১২টি প্রকল্প অনুমোদন

একনেক সভায় ৫,৪৯৪ কোটি টাকার ১২টি প্রকল্প অনুমোদন - ছবি : সংগৃহীত

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) মঙ্গলবার রাজধানীর উত্তরা এলাকায় পয়ঃশোধনাগার নির্মাণের জন্য ১,৩৯৮ কোটি টাকার ভূমি অধিগ্রহণ প্রকল্পসহ মোট ৫,৪৯৪.০৪ কোটি টাকার ১২টি প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে। একনেক চেয়ারপার্সন এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত একনেক বৈঠকে এই অনুমোদন দেয়া হয়।

বৈঠক শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান সাংবাদিকদের জানান, প্রকল্পের মোট বরাদ্দ ৫,৪৯৪.০৪ কোটি টাকার মধ্যে সরকারি কোষাগার থেকে পাওয়া যাবে ৫,৪১৬.০৪ কোটি টাকা এবং বাকি ৭৮ কোটি টাকা পাওয়া যাবে প্রকল্প সহায়তা হিসেবে বৈদেশিক অনুদান থেকে।

পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান প্রকল্পের উদ্দেশ্য সম্পর্কে বলেন, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পেরেশনের অধীন নগরীর উত্তরা এলাকায় একটি স্বাস্থ্যকর, পরিবেশবান্ধব এবং টেকসই পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে পয়ঃশোধনাগার নির্মাণের জন্য ভূমি অধিগ্রহণের একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে।

স্থানীয় সরকার বিভাগের অধীন ঢাকা ওয়াসা ২০২১ সালের মধ্যে এই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে। এই প্রকল্পের মধ্যে ৫৩.৭৫ একর ভূমি অধিগ্রহণ এবং ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ প্রদান, প্রয়োজনীয় জরিপ কার্য চালানো এবং সীমানা পিলারসহ প্রায় ২২ হাজার মিটার কাটাতারের বেড়া নির্মাণ করা হবে। সরকার মাস্টার প্লানের সুপারিশের ভিত্তিতে ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় প্রায় শত ভাগ সেনিটেশন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে এই প্রকল্পটি বাস্তবায়নের মাধ্যমে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের অধীন তুরাগ থানায় প্রয়োজনীয় সেনিটেশন ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

পরিকল্পনা মন্ত্রী বলেন, মহাসড়কের পাশে যানবাহনের চালক ও হেলপারদের আধুনিক বিশ্রামের স্থান নির্মাণ, ভূমিধস এড়াতে পার্বত্য অঞ্চলে সড়ক নির্মাণকালে বৃক্ষ রোপণের ব্যবস্থা করা। সড়কের ওপর যাতে মালামাল বোঝাই ট্রাক অথবা যানবাহন দাঁড়িয়ে থাকতে না হয় সেদিকে নজর দেয়া, মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলের প্রতিটি ভবনে পানি সংরক্ষণের ব্যবস্থা রাখা, সড়ক ও মহাসড়কে শৃংখলা বজায় রাখা এবং সরকারি চিকিৎসকদের নিজস্ব হাসপাতালে প্রাইভেট প্র্যাকটিস করতে চাইলে কোন প্রকল্পে যাতে ওভারলেপিং না হয় সেদিকে নজর দেয়া ইত্যাদি বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈঠকে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি তাঁর দেয়া আগের নির্দেশগুলোর পুনরাবৃত্তি করেন।

বৈঠকে অনুমোদনপ্রাপ্ত অপর প্রকল্পগুলো হচ্ছে ২৮৯.৬৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘বেনাপোল স্থল বন্দরে কার্গো ভেহিকেল টার্মিনাল নির্মাণ’, ৫০৯.২৯ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘আলী কদম-জালানিপাড়া-কুরুকপাতা-পোয়ামুহুরী সড়ক (১ম সংশোধিত) নির্মাণ’, ২২৬.২২ কোটি টাকা ব্যয়ে টেকসই ও নিরাপদ মহাসড়ক গড়ে তোলার জন্য ৪টি জাতীয় মহাসড়কের পার্শ্বে পণ্যবাহী গাড়ি চালকদের জন্য পার্কিং সুবিধা সম্বলিত বিশ্রামাগার স্থাপন’, ১৮৩.৯০ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘বড়তাকিয়া (আবু তোরাব) থেকে মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চল সংযোগ সড়ক নির্মাণ (২য় সংশোধিত)’ এবং ১০০.৭০ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘খুলনা-চুকনগর-সাতক্ষীরা মহাসড়কের খুলনা শহরাংশে (৪.০০ কিলোমিটার) চারলেনে উন্নীতকরণ’।

অপর অনুমোদিত প্রকল্পগুলো হচ্ছে- ১০১২.১১ কোটি টাকা ব্যয়ে ইসিবি চত্বর থেকে মিরপুর পর্যন্ত সড়ক প্রশস্তকরণ ও উন্নয়ন এবং কালশী মোড়ে ফ্লাইওভার নির্মাণ (১ম সংশোধিত), ৩৫২.০৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘সমতল ভূমিতে বসবাসরত অনগ্রসর ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর আর্থ-সামাজিক ও জীবন মানোন্নয়নের লক্ষ্যে সমন্বিত পানি সম্পদ উন্নয়ন’, ১২৮.১৯ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘পুকুর পুনঃখনন ও ভূ-উপরিস্থ পানি উন্নয়নের মাধ্যমে ক্ষুদ্র সেচের ব্যবহার’, ১০৫৭.১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘কর্নেল মালেক মেডিকেল কলেজ ও ৫শ’ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতাল স্থাপন মানিকগঞ্জ (১ম সংশোধিত)’, ১১৯.৭৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘বেগম আমিনা মনসুর টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউট, কাজিপুর, সিরাজগঞ্জ (১ম সংশোধিত) এবং ১১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে সমন্বিত খামার ব্যবস্থাপনা অঙ্গ-২ পর্যায় (আইএফএসসি)। সূত্র : বাসস


আরো সংবাদ