esans aroma gebze evden eve nakliyat Ezhel Şarkıları indir Entrumpelung wien Installateur Notdienst Wien webtekno bodrum villa kiralama
২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০

আজহারীর হাতে মুসলমান হওয়া সেই ১১ জনকে ভারতে পাঠিয়েছে পুলিশ

আজহারীর হাতে মুসলমান হওয়া সেই ১১ জনকে ভারতে পাঠিয়েছে পুলিশ - ছবি : নয়া দিগন্ত

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে আলোচিত ইসলামী বক্তা ড. মিজানুর রহমান আজহারীর কাছে কালেমা পড়ে মুসলমান হওয়া সেই ১১ জনকে যশোরের বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে ভারতে পাঠানো হয়েছে।

মঙ্গলবার রামগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মো. ফজলুর রহমান জানান, বিশেষ নিরাপত্তার মধ্যে দিয়ে সোমবার তাদের ভারতে ফেরত পাঠানো হয়।

ফেরত যাওয়া ভারতীয় নাগরিকরা হলেন- সুজাতা, শেফালি, রাজা, সমা, রেখা সুর্য, শ্যামলী, কোয়েল, মিতালী ও শঙ্কর অধিকারী। এদের মধ্যে ২ জন শিশু ও ৪ জন কিশোর-কিশোরী রয়েছে। যদিও ধর্মান্তরিত হওয়ার পর তারা নাম পরিবর্তন করেন।

ধর্মান্তরিত শঙ্কর অধিকারী ওরফে মনির হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমরা গত ২০১৯ সালের আগস্ট মাসে ২ মাসের ভিসা নিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করি। এরপর আমরা আমাদের পৈতৃক বাড়ি লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ থানার ইছাপুর গ্রামে থেকে যাই। আমার মা ফাতেমা বেগম সংরক্ষিত নারী আসনের চন্ডীপুর ইউপির একজন সদস্য।’

বেনাপোল ইমিগ্রেশন ওসি মাসুম বিল্লাহ স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীদের বলেন, ‘তারা পাসপোর্টধারী যাত্রী, নিয়ম অনুযায়ী নিজ দেশে ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে ফিরে গেছে। যদি তেমন কোনো সমস্যা থাকত, আমরা সে বিষয়টি দেখতাম।’

জানা গেছে, গত সপ্তাহে লক্ষ্মীপুরে এক মাহফিলে মিজানুর রহমান আজহারীসহ আরও কয়েকজন আলেমের কাছে ধর্মান্তরিত হন শঙ্কর অধিকারী নামের এক ব্যক্তি ও তার পরিবারের ১০ সদস্য। পরে জানা যায় শঙ্কর অধিকারী নামের ওই ব্যক্তি ছোটকালে হারিয়ে যাওয়া রামগঞ্জ উপজেলার ডাক্তার বাড়ির মজিবুল হকের ছেলে মনির হোসেন। জন্মসূত্রে তিনি মুসলিম ছিলেন।

এদিকে লক্ষ্মীপুর জেলা পুলিশ সুপার ড. এ এইচ এম কামরুজ্জামান গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, আটক ব্যক্তিদের কাছে বৈধ ভারতীয় পাসপোর্ট পাওয়া যায়। ভিসার মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার পরও তারা বাংলাদেশে অবস্থান করছিলেন। তাই তাদেরকে ‘অবৈধ অভিবাসী’ হিসেবে আটক করা হয়েছে এবং যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ করে তাদেরকে ভারতে ফেরত পাঠানো হয়েছে। সূত্র : ইউএনবি


আরো সংবাদ




short haircuts for black women short haircuts for women Ümraniye evden eve nakliyat