২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

রাজনৈতিক ইস্যুকে প্রাধান্য দেবে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন

বাংলাদেশ ও ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন - সংগৃহীত

ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) রাষ্ট্রদূত রিনসে তিরিঙ্ক বলেছেন, স্বল্পোন্নত দেশ (এলডিসি) থেকে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে উত্তরণের পর বাংলাদেশ ও ইইউর মধ্যে বিদ্যমান দ্বিপক্ষীয় চুক্তিগুলো হালনাগাদ করতে হবে। নতুন প্রেক্ষাপটে দ্বিপক্ষীয় এজেন্ডায় উন্নয়ন সহযোগিতার চেয়ে রাজনৈতিক ইস্যু প্রাধান্য পাবে।

গতকাল রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ করে ইইউ রাষ্ট্রদূত এ অভিমত ব্যক্ত করেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়ে রাষ্ট্রদূত নতুন সরকারের সাথে গঠনমূলকভাবে কাজ করার ইচ্ছা প্রকাশ করেন। তিনি সুশাসন, অর্থনৈতিক অংশীদারিত্ব, রোহিঙ্গা সঙ্কট, অভিবাসন, জলবায়ু পরিবর্তন, উন্নয়ন সহযোগিতার মতো পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট ইস্যুতে একসাথে কাজ করার জন্য ইইউর আগ্রহের কথা জানান। অভিবাসনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ও ইইউর মধ্যে সহযোগিতার সাফল্যে সন্তোষ প্রকাশ করেন রিনসে তিরিঙ্ক।

স্বাধীনতার পর থেকে বাংলাদেশকে সহযোগিতা দিয়ে আসায় ইইউর প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানে সমন্বিত সহযোগিতা দেয়ায় ইইউকে ধন্যবাদ জানান তিনি। নিরাপদ ও মর্যাদার সাথে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনকে আরো জোরালোভাবে সমর্থন দেয়ার জন্য ইইউর প্রতি আহ্বান জানান ড. মোমেন।
এর আগে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে শ্রীলঙ্কার হাইকমিশনার ডি সিলভা ও নেপালের রাষ্ট্রদূত ড. চোপ লাল পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ করেন।


আরো সংবাদ

Hacklink

ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme