১৭ আগস্ট ২০১৮
জাতিসঙ্ঘ মানবাধিকার কমিশনের আহ্বান

‘মাদকবিরোধী অভিযানে বিচারবর্হিভূত হত্যা বন্ধ করুন’

‘মাদকবিরোধী অভিযানে বিচারবর্হিভূত হত্যা বন্ধ করুন’ - সংগৃহীত

বাংলাদেশে মাদকবিরোধী অভিযানে বিচারবর্হিভূত হত্যা অনতিবিলম্বে বন্ধ করার আহ্বান জানিয়েছে জাতিসঙ্ঘ মানবাধিকার কমিশন। কমিশন হত্যাকান্ডগুলোর সাথে জড়িতদের বিচারের আওতায় আনার ওপর গুরুত্ব দিয়েছে।

বুধবার জেনেভা থেকে দেয়া বিবৃতিতে জাতিসঙ্ঘ মানবাধিকার কমিশনার জিয়াদ রাদ আল হুসেইন এ আহ্বান জানান। এতে বলা হয়, গত ১৫ মে থেকে বাংলাদেশে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে ১৩০ জন প্রাণ হারিয়েছে। এ সময় ১৩ হাজার জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

জিয়াদ রাদ আল হুসেইন বলেন, এতো বিপুল সংখ্যক মানুষ হত্যায় আমি উদ্বিগ্ন। এ ব্যাপারে বাংলাদেশ সরকার জনগনকে আশ্বস্ত করতে চেয়েছে কোনো নিরপরাধ মানুষ অভিযানে মারা যায়নি, তবে মাদকবিরোধী অভিযানে ভুল হয়ে থাকতে পারে। তিনি বলেন, এ ধরনের উক্তি বিপদজনক এবং তা আইনের শাসনকে সম্পূর্ণ অবজ্ঞা করার সামিল। প্রতিটি মানুষের বাঁচার অধিকার রয়েছে। মাদকদ্রব্য বিক্রি বা সেবনের সাথে জড়িত কেউ মানবাধিকার হারাতে পারে না। যে কোনো ধরনের অপরাধ নিয়ন্ত্রণে অবশ্যই যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরন করতে হবে।

বাংলাদেশ সরকারকে বিচারবহির্ভূত হত্যার তদন্তের আহ্বান জানিয়ে জাতিসঙ্ঘ মানবাধিকার কমিশনার বলেছেন, মাদক নিয়ন্ত্রণের নামে মানবাধিকার লঙ্ঘনের জন্য দায়মুক্তি পাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। গত সপ্তাহে বাংলাদেশের আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়কমন্ত্রী আমার সাথে জেনেভায় বৈঠক করেছেন। তিনি এ সব ঘটনার তদন্ত এবং দায়ীদের জবাবদিহিতার আওতায় আনার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। এতে আমি উৎসাহিতবোধ করছি।

জিয়াদ রাদ আল হুসেইন বাংলাদেশ সরকারকে প্রতিশ্রুতি রক্ষার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, তদন্ত হতে হবে স্বাধীন, নিরপেক্ষ, স্বচ্ছ এবং কাযর্কর।


আরো সংবাদ