২২ নভেম্বর ২০১৯

বিশ্বসাহিত্যের টুকিটাকি

-

উজবেক লেখক হামিদ ইসমাইলভের বেস্ট সেলার বই
উজবেকিস্তানের লেখক হামিদ ইসমাইলভ তার নিজ দেশে, রাশিয়ায় ও কিরঘিজস্তানে সমানভাবে জনপ্রিয়। তিনি পেশায় সাংবাদিক, বিবিসি ওয়ার্ল্ড সার্ভিসের সাথে যুক্ত ছিলেন। তার জন্ম কিরঘিজস্তানে ১৯৫৪ সালে। বুঝতেই পারছেন, মধ্য এশিয়ার বর্তমান স্বাধীন প্রজাতন্ত্রগুলো রাশিয়া ইউক্রেনের সাথে সোভিয়েত ইউনিয়নের সাথে যুক্ত ছিল। সোভিয়েত ভেঙে উজবেকিস্তান স্বাধীন হওয়ার পরও দেশটিতে কার্যত আগের মতো একনায়তান্ত্রিক মনোভাব থেকে গিয়েছেল। স্বাধীনভাবে মতামত ব্যক্ত করায় নিজ দেশে তার বই নিষিদ্ধ ছিল। কিন্তু তিনি দমে যাননি। ১৯৯২ সালে তিনি পাড়ি জমান ব্রিটেনে। তার কয়েকটি জনপ্রিয় উপন্যাসের মধ্যে রয়েছে ‘দ্য ডেড লেক’। এটিসহ তার বেশ কিছু বই ইংরেজি, ইংরেজি, রুশ, ফরাসি ও তুর্কিসহ কয়েকটি ভাষায় অনূদিত হয়েছে। ডেড লেক কোল্ড ওয়ারের সময়ের কাহিনী নিয়ে লেখা। এটাকে বলা হয়ে ‘হন্টিং রাশিয়ান টেল’ অর্থাৎ রুশ ভৌতিক কাহিনী। ইয়ারঝান এ উপন্যাসের কেন্দ্রীয় চরিত্র। সে বড় হয়েছে কিরঘিজস্তানের প্রত্যন্ত এলাকায়, যেখানে সোভিয়েত আমলে পারমাণবিক পরীক্ষা চালানো হতো। ইয়ারজান এক সময়ে প্রতিবেশী এক কিশোরীর প্রেমে পড়ে। তাকে খুশি করতে একদিন সে নিষিদ্ধ এক লেকে ঝাঁপ দেয়। লেকের তেজস্ক্রিয় পানি বদলে দেয় ইয়ারজানকে। সে আর স্বাভাবিক হতে পারেনি। এই উপন্যাস মানুষের তৈরি বিপর্যয় মানব জীবনে কী ভয়াবহ ক্ষতি ডেকে আনতে পারে তারই উদাহরণ। ২০১৪ সালে এর ইংরেজি অনুবাদ প্রকাশিত হয়।

কায়রোয় এডওয়ার্ড সাঈদ স্মারক বক্তৃতায় তার ছেলে ওয়াদী
ফিলিস্তিনি বংশোদ্ভূত মার্কিন লেখক ও চিন্তাবিদ দাশনিক এডওয়ার্ড সাঈদের বইয়ের জনপ্রিয়তা বিশ^জুড়ে। তার কয়েকটি বই বেস্ট সেলার হয়েছে। তার শ্রেষ্ঠ বই ‘ওরিয়েন্টালিজম’। তিনি কয়েকটি উপন্যাস ও সমালোচনামূলক বইও লিখেছেন। তার জন্ম ১ নভেম্বর ১৯৩৫, মৃত্যু ২৪ সেপ্টেম্বর ২০০৩। তার জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে প্রতি বছর মিসরের কায়রোয় আমেরিকান ইউনিভার্সিটি ইন কায়রোর উদ্যোগে এডওয়ার্ড সাঈদ স্মারক বক্তৃতা অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। গত ২ নভেম্বর বিশ^বিদ্যালয়ের তাহরির ক্যাম্পাসের ওরিয়েন্টাল হলে হয়ে গেল এই বক্তৃতা। আর এ বছর এই স্মারক বক্তৃতা দেন সাঈদের ছেলে ওয়াদী সাঈদ। ফলে এবারের অনুষ্ঠান ভিন্নমাত্রা লাভ করে। ওয়াদী তার ভাষণে তার পিতার বিভিন্ন বইয়ের সারমর্ম উপস্থাপনা করে এসব বক্তব্যের যথার্থতাই নতুন করে তুলে ধরেছেন। তিনি বলতে চেয়েছেন, তার পিতার মধ্যপ্রাচ্য ভাবনার সাথে তারও মিল রয়েছে আর এগুলো বলতে গেলে চিরন্তন। মধ্যপ্রাচ্য সঙ্কট উত্তরণে এর কোনো বিকল্প নেই। ওয়াদী আমেরিকার সাউথ ক্যারোলিনা ইউনিভার্সিটির আইন বিভাগের অধ্যাপক। তিনি আমেরিকান ল ইনস্টিটিউটের একজন নির্বাচিত সদস্য এবং আরেরেশিয়া জার্নালের বোর্ড অব এডিটর্সের সদস্য।

 


আরো সংবাদ

আজানের মধুর আওয়াজ শুনতে ভিড় অমুসলিমদের (২৫৪৫৭)ধর্মঘট প্রত্যাহার : কী কী দাবি মেনে নিয়েছে সরকার (২০৯৩৪)মানবতাকে জয়ী করেছে পাকিস্তান : রাবিনা ট্যান্ডন (১৯৪৬৭)কম্বোডিয়ায় কাশ্মির ইস্যুতে বক্তব্য, প্রতিবাদ করায় ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বের করা হলো বিজেপি নেতাকে (১৯১৮৮)ব্যাংকে ফোন দিয়ে তদবির করে ‘ছাত্রলীগ সভাপতি’ আটক (৯৮৭১)আবারো রুশ-চীনা অস্ত্র কিনবে ইরান, আশঙ্কা যুক্তরাষ্ট্রের (৯৭৬৩)৪ ভারতীয়কে জাতিসঙ্ঘের সন্ত্রাসী তালিকাভূক্ত করবে পাকিস্তান (৯৫৮৪)৩৫ বর্গ কিলোমিটার এলাকা নিয়ে নেপাল-ভারত তুমুল বিরোধ (৯৩৪৩)গৃহশিক্ষক বিয়েতে বাধা দেয়ায় ছাত্রীর আত্মহত্যা (৯০৫০)ইলিয়াস কাঞ্চনকে যে কারণে সহ্য করতে পারেন না বাস-ট্রাক শ্রমিকরা (৯০১৪)