১৮ জানুয়ারি ২০২০

গাজীপুরে অপহৃত গার্মেন্টসকর্মী উদ্ধার, ৪ অপহরণকারী গ্রেফতার

গ্রেফতারকৃত চার অপহরণকারী ও (ইনসেটে) অপহৃত সুজন - ছবি : নয়া দিগন্ত

গাজীপুরে মুক্তিপণের দাবিতে অপহৃত এক গার্মেন্টসকর্মীকে মুমুর্ষাবস্থায় উদ্ধার করেছে র‌্যাব-১ এর সদস্যরা। এসময় অপহরণকারী চক্রের চার সদস্যকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতদের কাছ থেকে দেশীয় অস্ত্র, নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়েছে।

আজ রোবববার বিকেলে র‌্যাব-১’র স্পেশালাইজ কোম্পানি পোড়াবাড়ী ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার লে. কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল-মামুন এ তথ্য জানিয়েছেন।

আটককৃতরা হলো- ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলার নাসিরনগর থানার গুরকুন গ্রামের ওয়াহেদ আলীর ছেলে ইমরান হোসেন (২৪), গাজীপুরের সদর থানার পূর্ব সালনা এলাকার মৃত চাঁন মিয়ার ছেলে মো: রিপন মিয়া (১৯), শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতী থানার পাইকুড়া গ্রামের মাসুদ রানা (১৮) ও কুড়িগ্রামের রাজিবপুর থানার জোয়ালীপাড়া এলাকার মৃত শফিকুল ইসলামের ছেলে মাসুদ রানা (২০)। এরা সবাই গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের সালনা এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকে।

র‌্যাব-১ এর ওই কোম্পানি কমান্ডার জানান, শরিয়তপুর জেলার জাজিরা থানার কাজিয়ারচর রারিকান্দি এলাকার দলু শেখের ছেলে মো: সুজন মিয়া (২৫) গাজীপুর সিটি করপোরেশনের দক্ষিণ সালনা এলাকার রুহুল আমিনের বাড়িতে ভাড়া বাসায় থেকে স্থানীয় এক গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিতে চাকরি করে। শুক্রবার সন্ধ্যায় কারখানা ছুটির পর সুজন দক্ষিণ সালনা এলাকায় তার বোনের বাসার উদ্দেশে যাচ্ছিল। পথে সালনা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় পৌঁছলে কয়েক অপহরণকারী তাকে একটি মাইক্রোবাসে উঠিয়ে চোখ বেঁধে অপহরণ করে অজ্ঞাতস্থানে নিয়ে আটক করে রাখে।

সুজন বাড়ি না ফেরায় স্বজনরা বিভিন্নস্থানে খোঁজাখুঁজি করেও তার সন্ধান পায়নি। পরে ঘটনার রাতে অপহরণকারীরা সুজনের বাবার কাছে মোবাইল ফোনে দুইলাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে ছেলেকে হত্যার হুমকি দেয়।

সুজনের সন্ধান না পেয়ে স্বজনরা সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।

অপহরণের পরদিন শনিবার রাতে অপহরণকারীরা অপহৃতকে নিয়ে গাজীপুরের সদর থানাধীন দক্ষিণ সালনা এলাকায় মুক্তিপণের টাকা নিতে অবস্থান করছে- এ গোপন সংবাদ পেয়ে ওই ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার লে. কমান্ডার আব্দুল্লাাহ আল-মামুনের নেতৃত্বে র‌্যাব-১’র সদস্যরা সেখানে অভিযান চালিয়ে অপহরণকারী চক্রের চারজনকে আটক ও অপহৃতকে মুমুর্ষাবস্থায় উদ্ধার করে। এসময় আটককৃতদের কাছ থেকে একটি চাপাতি, দুটি সুইচ গিয়ার চাকু, নগদ ৪৬০ টাকা এবং তিনটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়।

এব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান কোম্পানি কমান্ডার লে. কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল-মামুন।


আরো সংবাদ