১৬ ডিসেম্বর ২০১৯

কমিটিতে পদ না পেয়ে আদালতে

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর - ফাইল ছবি

কমিটিতে পদ না পেয়ে নারায়ণগঞ্জের একটি আদালতে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ জেলা ও মহানগর বিএনপির সভাপতি সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলার আবেদন করেছেন নারায়নগঞ্জ মহানগর বিএনপির দুই নেতা। নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে সীমানা ও গঠনতন্ত্র মানা হয়নি উল্লেখ করে ওই মামলার আবেদন করা হয়।

মামলায় বিবাদী করা হয়েছে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক মামুন মাহমুদ, মহানগর বিএনপির সভাপতি আবুল কালাম ও সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামালকে। গত সোমবার দায়ের করা এ মামলার আবেদন শুনানী শেষে গতকাল বুধবার বিবাদীদের কারন দর্শানোর নোটিশ দিয়েছেন।

ওই দিন নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র সহকারী জজ শিউলী রানী দাসের আদালতে মহানগরের ১০নং ওয়ার্ড বিএনপির সাবেক সভাপতি গুলজার খান ও একই ওয়ার্ডের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক (পৌরসভাকালীন) বিএনপি নেতা নূর আলম শিকদার বাদী হয়ে মামলাটির আবেদন করেন। এ দুইজনই মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন খানের অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

আবেদনটি মঙ্গলবার আদালত শুনানি শেষে আদালত পরবর্তী সাতদিনের মধ্যে কেন কমিটি অবৈধ হবে না জানিয়ে বিবাদীদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দেন। বুধবার আদালত থেকে এ সংক্রান্ত নোটিশ বিবাদীদের কাছে পাঠানো হয়।
এদিকে গত ১২ সেপ্টেম্বর বিকেলে শহরের নারায়ণগঞ্জ ক্লাব সংলগ্ন বঙ্গবন্ধু সড়কে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন শেষে সাখাওয়াতের সঙ্গে সেলফি তোলা নিয়ে অন্য নেতাদের সঙ্গে মারামারি করেন গুলজার।

মামলার বাদী গুলজার হোসেন খান বলেন, দলের জেলা কমিটিতে অল্প কজন স্থান পেলেও মহানগরের কমিটিতে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১ থেকে ১০ নং ওয়ার্ড পর্যন্ত ১০টি ওয়ার্ডের কোনো নেতাই পদপদবি পাননি। এই ১০টি ওয়ার্ডের মূল দলের নেতাকর্মীরা দলীয় পদপদবির ক্ষেত্রে অবহেলার শিকার হচ্ছে না। দলের জন্য প্রাণপন কাজ করলেও দলের নেতারা তাদের কোনো পরিচয় দিচ্ছেন না।

মহানগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মমিনুর রহমান বাবু নাসিকের ২ নং ওয়ার্ডের, তাঁতীদলের সভাপতি ১০নং ওয়ার্ডের ও মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মমতাজ উদ্দিন মন্তু নাসিকের ৮ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা। আমাদেরকে যেন পদপদবি দেয়া হয় সেজন্যই এ মামলা। আমরা তো জাগোদল থেকেই বিএনপির সঙ্গে যুক্ত।

অপরদিকে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটি এম কামাল বৃহস্পতিবার সকালে নয়া দিগন্তকে বলেন, এটি দলের বিরুদ্ধে একটা চক্রান্ত। সরকারের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করার জন্য মামলার আবেদন করা হয়েছে।

তিনি বলেন,পদ পদবি নিয়ে কারোর কোন দাবি থাকলে সেটি দলের নেতৃবৃন্দের সাথে আলাপ আলোচনা করা যেতো। দলীয় নেতৃবৃন্দের কাছে জানানো যেতো; কিন্ত তা না করে যারা দলীয় বিষয় আদালত পর্যন্ত নিয়েছেন মুলত তারা দলের বিরুদ্ধে কাজ করছেন। এটা কোন ভাবেই কাম্য নয়।


আরো সংবাদ




hacklink Paykwik Paykasa
Paykwik