১৫ অক্টোবর ২০১৯

২ বছর ধরে বাবার কাছে ক্রমাগত ধর্ষণের শিকার জমজ ২ মেয়ে

গাজীপুরের শ্রীপুরে কিশোরী জমজ দু’বোনকে ধর্ষণের অভিযোগে তাদের বাবাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নিজ মেয়েদের ধর্ষণের অভিযোগে স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে তার স্ত্রী। গ্রেফতারকৃতের নাম জাহাঙ্গীর আলম কাজল (৪৫)। তিনি শ্রীপুর উপজেলার মাওনা ইউনিয়নের মাওনা বাজার এলাকার মৃত হারেজ বাইন্নার ছেলে।

শ্রীপুর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আবুল কালাম ভূঞা ও ভুক্তভোগীদের মা জানান, প্রায় ২৫ বছর আগে শ্রীপুর উপজেলার গাজীপুর ইউনিয়নের ধনুয়া গ্রামের আলাউদ্দিনের মেয়ে আমেনা খাতুনকে বিয়ে করেন জাহাঙ্গীর আলম কাজল। বিয়ের পরপরই কাজল তার স্ত্রীকে বাপের বাড়ি পাঠিয়ে দেন। তাদের সংসারে জমজ দুই কন্যা সন্তানের জন্ম হয়। সন্তানদের নিয়ে আমেনা বাবার বাড়িতেই বাস করেন।

পরবর্তীতে কাজল প্রথম স্ত্রীর অনুমতি ছাড়াই আরো দুইটি বিয়ে করেন। কাজল প্রথম স্ত্রী ও সন্তানদের ভরণ পোষণের জন্য কোন প্রকার খরচ বহন না করলেও ২/৩ দিন পরপর ওই স্ত্রীর সঙ্গে দেখা সাক্ষাত ও মেলামেশা করতেন। এর মাঝে ২০১৭ সালের মে থেকে গত ২৮ জুলাই পর্যন্ত কাজল নানা ভয়ভীতি দেখিয়ে তার জমজ দু’কিশোরী মেয়েকে তাদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ওই স্ত্রীর সামনেই একই ঘরে নিজ দু’কন্যাকে জোর করে ধর্ষণ করে। এ বিষয়ে কাউকে বললে তাদের মেরে ফেলার হুমকি দিত কাজল। হুমকির প্রেক্ষিতে ভিক্টিমরা ঘটনা কারো কাছে প্রকাশ করার সাহস পায়নি।

একপর্যায়ে ভিক্টিম দুই মেয়েকে নিয়ে তাদের মা গাজীপুরের পুলিশ সুপার শামসুন্নাহারের সঙ্গে দেখা করে ঘটনা খুলে বলেন। এসময় আমেনাকে আইনের আশ্রয় নেওয়ার পরামর্শ দেয় পুলিশ সুপার। এর প্রেক্ষিতে ভিক্টিমদের মা আমেনা খাতুন বাদী হয়ে স্বামী কাজলের বিরুদ্ধে শুক্রবার রাতে জোর পূর্বকধর্ষণের অভিযোগে শ্রীপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পরপর রাতেই পুলিশ ধর্ষক বাবা কাজলকে গ্রেফতার করে। শনিবার ভিক্টিমদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

শ্রীপুর থানার ওসি মো. লিয়াকত আলী জানান, ভিক্টিমদের বাবার বিরুদ্ধে ডাকাতিসহ মাদক সেবনের একাধিক অভিযোগ রয়েছে। সে খুব হিংস্র প্রকৃতির। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে কাজল তার মেয়েদের ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে।

এদিকে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আরএমও প্রণয় ভূষণ দাস জানান, শনিবার ভিক্টিমদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য এ হাসপাতালে আনা হয়েছে। তবে ভিক্টিমরা তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করাতে অস্বীকার করায় তাদের ফেরত পাঠানোর প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।


আরো সংবাদ




astropay bozdurmak istiyorum