২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯

স্বামীকে বেঁধে নারীকে গণধর্ষণ

স্বামী কে বেঁধে নারী কে গণধর্ষণ - ছবি : নয়া দিগন্ত

রাজধানীর অদূরে আশুলিয়ায় চাঁদার টাকা না পেয়ে স্বামী কে পাশের কক্ষে বেঁধে রেখে এক উপজাতি (মারমা) নারী কে গণধর্ষণ করেছে ৪ বখাটে। এ ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ভুক্তভোগী ওই উপজাতি নারীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে পুলিশ। ঘটনায় ভুক্তভোগি বাদি হয়ে আশুলিয়া থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেছে।

রোববার সকালে আশুলিয়া ডেন্ডাবর নতুনপাড়া এলাকা থেকে ধর্ষক রনি(২১) নামে এক আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রোববার দুপুরে তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

গত ১৩ আগস্ট রাত ৮টায় আশুলিয়ার ডেন্ডাবর নতুনপাড়া এলাকার মঈন উদ্দিনের বাড়িতে এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। ১৭ আগস্ট ওই ভুক্তভোগি নারী বাদী হয়ে আশুলিয়ায় থানায় ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

আসামীরা হলো- পাবনা জেলার আটঘরিয়া থানার পাইকপাড়া গ্রামের মন্টু মিয়ার ছেলে রনি(২১), আশুলিয়ার ডেন্ডাবর নতুনপাড়া এলাকার স্থায়ী নিবাসী খোরশেদ আলম খোকনের ছেলে জয়(২২), ফরিদপুর জেলার শামীম(২৬) ও ডেন্ডাবর নতুন পাড়া এলাকার কায়ুম মোল্লার ছেলে রাজু(২৬)। আসামী রনি এবং শামীম ডেন্ডাবর এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে থাকত।

মামলার এজাহারে বাদি উল্লেখ করেন, মঙ্গলবার (১৩ আগস্ট) অবৈধভাবে মদ তৈরির অভিযোগ এনে উপজাতি দম্পতির ঘরে প্রবেশ করে ৪ বখাটে। তাদের কাছে ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে তারা। এসময় বাসায় ভাংচুর চালায় বখাটেরা। চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে ধর্ষিতার স্বামীকে মারধর করে। পরে স্বামীকে পাশের কক্ষে আটকে ও বেঁধে রেখে স্ত্রীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে ওই ৪ বখাটে। নারীর গলায় থাকা স্বর্ণের চেইন সহ নগদ প্রায় ১০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয় তারা। চলে যাওয়ার সময় এ ঘটনা কাউকে জানালে প্রাণ নাশের হুমকিও দেয় তারা।

আশুলিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ রিজাউল হক দিপু এ সংবাদদাতা কে জানান, উপজাতি নারীকে গণধর্ষণের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ইতোমধ্যে রনি নামে এক আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং আদালতে পাঠানো হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।


আরো সংবাদ




gebze evden eve nakliyat Paykasa buy Instagram likes Paykwik Hesaplı Krediler Hızlı Krediler paykwik bozdurma tubidy