১৭ জুলাই ২০১৯

কটিয়াদী উপজেলা চেয়ারম্যান হলেন আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী

-

তৃতীয় ধাপে স্থগিত হওয়া কটিয়াদী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ডা. মোহাম্মদ মুশতাকুর রহমান। মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ঘোড়া প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিজয়ের হাসি হেসেছেন তিনি।

উপজেলার ৮৯টি কেন্দ্রের সবকটি থেকে প্রাপ্ত ফলাফলে চেয়ারম্যান পদের ছয় প্রার্থীর মধ্যে ডা. মোহাম্মদ মুশতাকুর রহমান (ঘোড়া) ১৬ হাজার ৩৮০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ প্রার্থী কেন্দ্রীয় যুব মহিলা লীগের সহ-তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক তানিয়া সুলতানা হ্যাপী (নৌকা) পেয়েছেন ১৫ হাজার ৩৭০ ভোট। ফলে এক হাজার ১০ ভোটের ব্যবধানে জয় পান মুশতাকুর রহমান।

অন্য চার প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব লায়ন মো: আলী আকবর (দোয়াত-কলম) ১২ হাজার ৪ ভোট, আওয়ামী লীগের অপর বিদ্রোহী প্রার্থী মো:.আলতাফ উদ্দীন (মোটরসাইকেল) ১১ হাজার ৪১২ ভোট, স্বতন্ত্র প্রার্থী আনোয়ার আনার (আনারস) ২৪১ ভোট এবং জাকের পার্টির প্রার্থী শহীদুজ্জামান স্বপন (গোলাপ ফুল) ২৭৯ ভোট পেয়েছেন।

অন্যদিকে ভাইস চেয়ারম্যান পদে রেজাউল করিম শিকদার (তালা) বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ১৮ হাজার ৬৪৭ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো: বকুল মিঞা (টিউবওয়েল) পেয়েছেন ১৬ হাজার ৭৮৬ ভোট।

এছাড়া মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে রোকসানা (ফুটবল) বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ২৬ হাজার ৮৩৩ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সাথী বেগম (কলস) পেয়েছেন ১৪ হাজার ১৩৯ ভোট।

এর আগে মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়। ব্যাপক নিরাপত্তার মধ্যে কোনো রকম অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। সরেজমিন কেন্দ্রে কেন্দ্রে ঘুরে ভোটার উপস্থিতি কম দেখা গেছে।

তবে ভোটার উপস্থিতি কম থাকলেও নিরাপত্তা ব্যবস্থা ছিল চোখে পড়ার মতো। প্রতিটি কেন্দ্রেই পর্যাপ্ত পুলিশ ও আনসার সদস্যরা দায়িত্ব পালন করেছেন। এছাড়া র‌্যাব, বিজিবি ও পুলিশের স্ট্রাইকিং ফোর্সকে টহল দিতে দেখা গেছে। ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে মোবাইল টিমও নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত ছিল।


আরো সংবাদ

gebze evden eve nakliyat instagram takipçi hilesi