১৩ ডিসেম্বর ২০১৯

গাজীপুর সদর উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামীলীগ প্রার্থী জয়ী, স্বতন্ত্র প্রার্থীর ভোট বর্জন

বিজয়ী আওয়ামী লীগ প্রার্থী রিনা পারভীন - ছবি : সংগৃহীত

গাজীপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী অ্যাডভোকেট রীনা পারভীন বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। মঙ্গলবার রাতে নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ আবু নাসার উদ্দিন এ ফলাফল ঘোষণা করেন।

নির্বাচনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী অ্যাডভোকেট রীনা পারভীন পেয়েছেন ২৩ হাজার ৮৬৫ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপিনেতা ইজাদুর রহমান চৌধুরী পেয়েছেন ৩ হাজার ৮০৭ ভোট। ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোঃ রিয়াজ উদ্দিন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে হাসিনা সরকার নির্বাচিত হয়েছেন।

এদিকে মঙ্গলবার সকালে ভোটগ্রহণ শুরুর দুই ঘন্টা পরই নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্রপ্রার্থী মোঃ ইজাদুর রহমান মিলন চৌধুরী সাংবাদিকদের কাছে সংবাদ সম্মেলন করে গাজীপুর সদর উপজেলা পরিষদ ভোট বর্জন করেছেন।
নিজ বাসভবনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, কোথাও নির্বাচনের পরিবেশ নেই। সবগুলো কেন্দ্র থেকে মারধর করে আমার নির্বাচনী এজেন্টদের বের করে দেয়া হয়। কর্মী-সমর্থকদের ভোট দিতে দেয়া হচ্ছে না। সকাল সাড়ে ৯টার দিকে নিজ কেন্দ্র বিকেবাড়ি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোট দিতে গিয়ে নিরাপত্তহীনতায় নিজের ভোটটিও দিতে পারি নাই।

তিনি বলেন, যুবলীগ-ছাত্রলীগ কেন্দ্র দখল করে রাখে। পুলিশের সাহায্য চেয়েও পাইনি। বাধ্য হয়ে কেন্দ্র ত্যাগ করে বাসায় ফিরে যাই। রাত থেকেই বাসা ঘিরে রেখেছে পুলিশ। রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসককে জানিয়েও কোন সহযোগিতা পাইনি। পুলিশ সুপারকে ফোন করলেও তাকে পাওয়া যায়নি। এ পরিস্থিতিতে নির্বাচন করা যায় না। তাই ভোট বর্জন করে সরে দাড়ালাম এবং পূন: নির্বাচন দাবি করছি। 

তিনি আরো বলেন, পুলিশ ও দলীয় নেতা-কর্মীদের মাধ্যমে নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার করে গণতন্ত্রের কবর রচনা করা হল।
সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আমার বিজয় সুনিশ্চত ছিল। এ অবস্থা বুঝতে পেরে তারা আমাকে নানা হুমকি-দামকি দিতে ছিল এবং কেন্দ্র থেকে আমার এজেন্টদের মারধর করে কেন্দ্র থেকে বের করে দিচ্ছে।

এ ব্যাপারে রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আবু নাসার উদ্দিন বলেন, কোথাও কোন গোলযোগের খবর তিনি জানেন না। শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন চলছে। এজেন্ট বের করে দেয়া বা তাদের মারধর করার বিষয়ে কেউ অভিযোগ করেননি।
শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে গাজীপুর সদর উপজেলা নির্বাচন শুরু হয়েছে। সকাল সাড়ে ১০টায় পিরুজালী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে ভোটরদের উপস্থিতি কম দেখা গেছে। ওই কেন্দ্রের কয়েকটি বুথে এ সময় ১-৫টি ভোট পরতে দেখা গেছে।

ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার মো. সানোয়ার হোসেন জানান, তার কেন্দ্রের আটটি বুথের মধ্যে সকাল ১০টা পর্যন্ত ৬৮টি ভোট পড়েছে। ওই কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা হল ৩ হাজার ১০২টি। তবে তার কেন্দ্রে কোথাও কোন অনিয়ম হয়নি। স্বতন্ত্র প্রার্থীর কোন ওই কেন্দ্রে আসেননি।

আওয়ামীলীগ প্রার্থী অ্যাডভোকেট রিনা পারভিন পিরুজালী আদর্শ হাইস্কুল কেন্দ্রে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ভোট দিতে গিয়ে সাংবাদিকদের বলেন, শান্তিপূর্ণ পরিবেশেই নির্বাচন হচ্ছে। তার নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে স্বতন্ত্রপ্রার্থীর অভিযোগ সঠিক নয়। নির্বাচন বানচাল করতেই তিনি ওইসব বক্তব্য দিচ্ছেন। পাশ ফেল যাই-ই আসুক তিনি নির্বাচণের ফলাফল মেনে নেবেন।

এ নির্বাচনে মোট ৪ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও নির্বাচনের আগেই দুইজন প্রার্থী আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী অ্যাডভোকেট রিনাকে সমর্থন জানিয়ে সরে দাঁড়ায়। এর পরে আওয়ামীলীগের প্রার্থীর এক মাত্র প্রতিদ্বন্দী হয়ে দাড়ায় স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ ইজাদুর রহমান মিলন চৌধুরী ।

পঞ্চম ধাপে গাজীপুর সদর উপজেলা নির্বাচনে ৫০টি ইভিএম কেন্দ্রে সকাল ৯টা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে বিকাল ৫টা পর্যন্ত চলেছে।এ নির্বাচনের মোট ভোটার ১ লাখ ১৭হাজার ৪৮৫ জন। এর মধ্যে মহিলা ৫৮ হাজার ৫১৮ জন ও পুরুষ ৫৮হাজার ৯১৭ জন। 


আরো সংবাদ




hacklink Paykwik Paykasa
Paykwik