২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯
মাদারীপুর সদর উপজেলা নির্বাচনের কর্মীসভায় বক্তারা

শেখ হাসিনার নির্দেশ উপেক্ষা করে আ’লীগের বিরুদ্ধে শাজাহান খান

আসন্ন মাদারীপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যেগে কর্মীসভার আয়োজন করা হয়েছে। আয়োজিত এই কর্মীসভায় জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাহাবদ্দিন মোল্লা সদর থানা পুলিশের প্রতি পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ তুলেন। এ সময় তিনি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে পুলিশ শাজাহান খানের কথায় উঠ বস করে। এই পুলিশ দিয়ে নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব নয়। আমরা চাই পুলিশ পক্ষপাতিত্ব মুক্ত থাকুক।

তিনি আরো বলেন, আমি সদর থানার ওসিকে বলেছি আপনার দ্বারা নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব নয়। তাই আপনি ছুটি নিয়ে চলে যান। আমাদের কর্মীদের বিভিন্ন ভাবে ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে।

এ সময় মাদারীপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পাভেলুর রহমান শফিক খান বলেন, পুলিশ কর্মীদের হুমকি দিচ্ছে বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার জন্য। স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে কাজ না করলে হত্যা ও মাদক মামলায় জড়িয়ে দেবার ভয় দেখাচ্ছে। পুলিশের এ ধরনের আচরণ গ্রহণযোগ্য নয়।

জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পদক ও পৌর মেয়র খাদিদ হোসেন ইয়াদ বলেন, শাজাহান খান শেখ হাসিনার নির্দেশ উপেক্ষা করে তার আপন ভাই কালু খানকে প্রার্থী করেছেন। শাজাহান খান ও কালু খান আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন। আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে উপেক্ষা করে শাজাহান খান জাসদ ও জামাত-বিএনপির লোক নিয়ে দলীয় প্রধান শেখ হাসিনা মনোনীত প্রার্থীকে পরাজিত করতে মাঠে নেমেছেন। আমরা আওয়ামী লীগের পরীক্ষিত নেতা কর্মীরা তার উদ্দেশ্য সফল হতে দেবো না। আমরা চাই প্রশাসন নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করুক।

সদর উপজেলা পরিষদের আওয়ামী লীগের প্রার্থী কাজল কৃষ্ণ দে বলেন, আমি শেখ হাসিনা মনোনীত নৌকার প্রার্থী। শেখ হাসিনাকে ভালোবেসে আমাকে নৌকায় ভোট দিবেন। আমি আপনাদের ভোট ও দোয়া প্রার্থী।

এ সময় মাদারীপুর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পদক বদিউজ্জামান জামাল খানের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভপতি আজাদ মুন্সি, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সাহাবদ্দিন হাওলাদার, দপ্তর সম্পাদক গোলাম মাওলা আকন্দ, আইন বিষয়ক সম্পদক এডভোকেট বাবুল আকতার, কৃষকলীগের সভাপতি জাকির হাওলাদার, ছাত্রলীগ সভাপতি জাহিদ হাসান অনিক প্রমুখ।

উল্লেখ্য, আগামী ১৮ জুন মাদারীপুর সদর উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী হয়েছেন জেলা আওয়ামলী লীগের সাধারণ সম্পদক কাজল কৃষ্ণ দে। তার বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন সাবেক নৌমন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্য শাজাহান খানের ভাই ওবায়দুর রহমান কালু খান। আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় মাদারীপুরর সদর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ শাখায়াত হোসেন সেলিম সভাপতিত্ব করার কথা থাকলেও তিনি সভায় উপস্থিত ছিলেন না।


আরো সংবাদ

তরুণীসহ গ্রেফতার ২০, বিপুল মাদক ও টাকা জব্দ ইরানের ন্যাশনাল ব্যাংকে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা আশা করি খেলাঘরের আন্দোলন সফলভাবে এগিয়ে যাবে : ড. আনিসুজ্জামান ধানমন্ডি ক্লাবে র‌্যাবের অভিযান বশেমুরবিপ্রবিতে ভিসির পদত্যাগের দাবিতে শিক্ষার্থীদের অনশন চলছে চট্টগ্রামে অভিযানে ক্লাব বন্ধ : গ্রেফতার ২ ক্যাসিনো-মাদক-সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ নৌকার প্রতীকে এমপি হতে চেয়েছিলেন জি কে শামীম বিএনপিই ঢাকাকে ক্যাসিনোর শহর বানিয়েছিল : কাদের ক্যাসিনোতে অভিযান চালিয়ে আলোচিত র্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার মাসাকাদজাকে জয় উপহার দিলো বিদায়ী ম্যাচ

সকল