২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

স্ত্রীকে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে ৫লাখ টাকা নিয়ে উধাও

চাকরি পাওয়ার প্রলোভনে পড়ে প্রতারকের প্রতারণার শিকার হয়েছেন মুন্সীগঞ্জ জেলার গজারিয়া উপজেলার হাফেজ আহম্মেদ ও সাত্তার। এই দুই জনের কাছ থেকে মোট ৫লাখ টাকা নিয়ে প্রতারক উধাও হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযুক্ত প্রতারকের নাম আতিকুর রহমান। এ বিষয়ে মুন্সীগঞ্জে চেক জালিয়াতি ও প্রতারণার দুটি সিআর মামলা দায়ের করা হয়েছে।

জানা যায়, ঝালকাঠি জেলার বাহাদুরপুর থানার ইছাপাশা গ্রামের আবু বক্কর সিদ্দিকের ছেলে আতিকুর রহমান (৩৫) গজারিয়া রসুলপুরের বাঘাইকান্দি গ্রামের মৃত শহিদ উল্লাহ মোল্লার ছেলে হাফেজ আহম্মেদের (৪০) স্ত্রীকে চাকরি দেয়ার কথা বলে নগদ ৩ লাখ টাকা নেন। চাকরি দিতে না পারলে পুরো টাকা পরিশোধ করবেন বলে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লি: এর যাত্রাবাড়ী শাখার নিজ নামীয় হিসাব নং- আতিকুর রহমান, ২০৫০২০৪০২০২৮৮৯৯১১ চেক নং এমসিএফ ৮৬০২০৪৮ -এ ৩লাখ টাকার একটি চেক ২৫/১০/২০১৮খ্রি. প্রদান করেন।

অপরদিকে একই গ্রামের মৃত গিয়াস উদ্দিন প্রধানের ছেলে আব্দুস সাত্তার (৩৮) এর কাছ থেকেও একই কায়দায় মামাত ভাইয়ের স্ত্রীকে চাকরি দেয়ার কথা বলে ২লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। চাকরি দিতে অপরাগ হইলে টাকা ফেরত মর্মে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লি: এর যাত্রাবাড়ী শাখার একই একাউন্টের একটি চেক হস্তান্তর করেন যার নং এমসিই ৮৬০২০৪৪ তারিখ ২০/০৮/২০১৮।

চেক ২টি ১৩ মার্চ ২০১৯ ইং তারিখ নগদায়নের জন্য সোনালী ব্যাংক লি: গজারিয়া শাখা, মুন্সীগঞ্জে জমা প্রদান করিলে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ চেক দুইটি ডিজঅনার করে।

এরপর গত ৮ এপ্রিল অভিযুক্ত আসামীকে পৃথক দুটি লিগ্যাল নোটিশ প্রদান করেন বাদীপক্ষ। লিগ্যাল নোটিশ পাওয়ার পর পাওনা টাকা পরিশোধের অঙ্গীকার করে ঘা ঢাকা প্রতারক আতিকুর রহমান। কিন্তু সময় অতিক্রান্ত হওয়ার পরেও প্রদত্ত চেকের পাওনা টাকা ফেরৎ না দেয়ায় সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ৫নং আমলী আদালত, মুন্সীগঞ্জে সি আর মামলা দায়ের করা হয়। যার নং ৪৭/২০১৯, ৪৮/২০১৯।


আরো সংবাদ