২২ আগস্ট ২০১৯

'হোন্ডা মোবাইল' টিম গঠন করলেন এসপি হারুন

'হোন্ডা মোবাইল' টিম গঠন করলেন এসপি হারুন - ছবি : সংগ্রহ

মানুষকে পুলিশের সেবা তাৎক্ষণিকসেবা পৌঁছে দিতে ‘হোন্ডা মোবাইল’ নামে এক বিশেষ সেবার উদ্বোধন করে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেছেন, নগরীর প্রতিটি এলাকাসহ ফতুল্লা, সিদ্ধিরগঞ্জ, সদর, সাইনবোর্ডসহ সব জায়গাতেই হোন্ডা মোবাইল যাবে। যেখানেই সমস্যা হবে ওরা সেখানেই মুভ করবে। যেখানেই যানজট হবে ওরা সেখানেই দ্রুত পৌছাবে এবং ব্যবস্থা নেবে। আজ থেকেই তারা কাজ শুরু করবে। সাধারণ মানুষকে স্বস্তি দেয়াটাই আমাদের মূল কাজ।

এসপি বলেন, যানজট নিয়ন্ত্রণে সড়ক মহাসড়কে যা যা করা দরকার আমরা করছি, ঈদ পর্যন্ত পুলিশ রাস্তায় থেকে তা করবে। আমরা রমজান মাসে বঙ্গবন্ধু সড়কসহ বিভিন্ন সড়কে অতিরিক্ত পুলিশ রেখেছি যেন সড়কে যানজট না থাকে, চাঁদাবাজি না থাকে, চুরি ছিনতাই না হয় এবং ব্যবসায়ীরা অবাধে ব্যবসা করতে পারে। অথবা বিভিন্ন ধরনের ঘটনা ঘটানোর যে চেষ্টা হয় সেটি যেন কোনভাবেই না হয় সেদিকেও আমরা নজর রাখছি। আমরা মার্কেট কেন্দ্রীক নিরাপত্তার ব্যবস্থাও করেছি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে শহরের চাষাঢ়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পবিত্র রমজান মাস ও আসন্ন ঈদ উপলক্ষে সার্বিক আইন শৃঙ্খলার বিষয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন তিনি।

এসপি বলেন, আপনারা নিশ্চিন্তে ঈদ উদযাপন করেন।ঈদ পর্যন্ত আমাদের সকল সদস্যরা রাস্তায় থাকবো এবং মানুষের নিরাপত্তা ও হাইওয়েতে ঘরমুখী মানুষের পারাপারে কাজ করে যাবো। সড়ক মহাসড়কগুলোকে কয়েকটি সেক্টরে ভাগ করে অতিরিক্ত পুলিশ সুপারসহ আমরা সার্বিকভাবে কাজ করবো।

এসপি আরো বলেন, আমরা চাষাঢ়া লিংক রোড থেকে সাইনবোর্ড পর্যন্ত রাস্তার মাঝে ডিভাইডার দিয়েছি যেন কোন যানজট না হয়। এছাড়া মাদক সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান অব্যাহত আছে এবং থাকবে। ঈদ ও রোজা পর্যন্ত মানুষকে স্বস্তি দেয়াই আমাদের কাজ, ঈদের দিন পর্যন্ত আমরা রাস্তায় থাকবো, মানুষকে পারাপার করবো আমরা, আর আমরা মানুষের পাশে ছিলাম,আছি, আর থাকবো ইনশাআল্লাহ।

চাঁদাবাজ ও ছিনতাইকারী চক্রের বিরুদ্ধে পুলিশের শক্ত কার্যক্রম চলমান আছে জানিয়ে পুলিশ সুপার বলেন, রোজা ও ঈদকে কেন্দ্র করে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী ও অসাধু চক্র বিশেষ করে ‘ছিনতাইকারী চক্র’ বিভিন্ন ঘটনা ঘটায়। আমরা অভিযান পরিচালনা করে ১৩ জন ছিনতাইকারীকে আমরা হাতেনাতে গ্রেফদার করেছি। ব্যবসায়ীরা চাঁদাবাজদের কারণে যাতে কোনো সমস্যায় না পড়েন সেজন্য আমারা সর্বাত্মক চেষ্টা করছি। পুলিশ সুপার কার্যালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, প্রতিটি থানার ওসিসহ সকলে মিলেই আমরা এই আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ করবো। ব্যবয়ারীরা যাতে কোনো ডাকাতির কবলে না পড়েন সেই দিকেও আমাদের লক্ষ্য থাকবে। মাদকের বিরুদ্ধে যে অভিযান অব্যাহত আছে এটা তো চলমান থাকবেই।

প্রেসব্রিফ্রিংয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মনিরুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) আব্দুল্লাহ আল মামুন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) নূরে আলম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিবি) সুবাস চন্দ্র সাহা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (‘ক’ অঞ্চল) মেহেদী ইমরান সিদ্দিকী।

 


আরো সংবাদ

৭৫-এর পরিকল্পনাকারীদের বিচারে জাতীয় কমিশন গঠনের দাবি রাজধানীতে জেএমবির চার সদস্য গ্রেফতার ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় জড়িতদের শাস্তি নিশ্চিত করা হবে : প্রধানমন্ত্রী মিয়ানমারে ফিরে না গেলে রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে পাঠানো হবে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী সংসদ সচিবালয়ের আবাসন সমস্যা দূর করতে আরো ৫০০ ফ্যাট কুড়িগ্রামে ব্রহ্মপুত্র নদে ভেলায় সবজি চাষ বর্জ্য ব্যবস্থাপনা খাতে বিনিয়োগ করার আহ্বান অবশেষে রোহিঙ্গারা ফিরছেন আজ থেকে মিয়ানমারে রোহিঙ্গা পরিস্থিতি আরো অবনতির আশঙ্কা ১৫ আগস্ট আর ২১ আগস্টের হত্যাকাণ্ড একই সূত্রে গাঁথা : কাদের কাশ্মির নিয়ে আন্তর্জাতিক আদালতে যাবে পাকিস্তান

সকল




mp3 indir bedava internet