১৮ অক্টোবর ২০১৯

মাত্র ২০ টাকার জন্য যুবককে পিটিয়ে হত্যা!

নিহত যুবক মনির হোসেন মিজি - নয়া দিগন্ত

মাত্র ২০ টাকার জন্য এক যুবককে প্রকাশ্যে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় নিহত যুবকের পরিবার ও আত্মীয় স্বজনদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। নিহত যুবকের নাম মনির হোসেন মিজি (৩৫)। ঘটনাটি ঘটেছে শরীয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুর থানার বেড়াচাক্কি গ্রামে। ঘটনার পর নিহতের মা বাদী হয়ে সখিপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

নিহতের বোন জামাই শোহান ও সখিপুর থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার বিকেলে শরীয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুর থানার বেড়াচাক্কি গ্রামের মকবুল মিজির ছেলে মনির হোসেন মিজি (৩৫) ও একই গ্রামের শহর আলী মোল্যার বাড়িতে বেড়াতে আসা চাদপুরের লক্ষিপুর গ্রামের সুলাইমান মোল্যার ছেলে শাহাদাত দিদার ২০ টাকা করে বাজী ধরে লুডু খেলছিল।

খেলায় মনির হোসেন মিজি ২০ টাকা জিতে যায়। এ সময় মনির হোসেন শাহাদাত দিদারের কাছে তার পাওনা ২০ টাকা দাবি করলে দিদার দাবিকৃত টাকা দিতে অস্বীকার করে। একপর্যায়ে মনির মিজির ট্রলারভর্তি কাঠ পার্শ্ববর্তী নদীর পাড়ে ভিড়ে। এসময় ট্রলারে থাকা কাঠ নামানোর জন্য মনির মিজি শাহাদাতের কাছে তার গলায় থাকা গামছাটি চায়।

এতে শাহাদাত ক্ষিপ্ত হয়ে তর্ক বির্তকের একপর্যায়ে শাহাদাত মনিরকে বাশঁ দিয়ে এলাপাথাড়ি পিটিয়ে মারাত্মক আহত করে। পরে স্থানীয় লোকজন মনির মিজিকে উদ্ধার করে প্রথমে চাঁদপুর সদর হাসাপাতালে নিয়ে ভর্তি করে। দুই দিন চিকিৎসার পরে তার অবস্থার অবনতি দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

পরে শনিবার বিকেলে ঢাকায় নেয়ার পথিমধ্যে চিটাগাং রোডের সাইনবোর্ড এলাকায় পৌছলে মনির মিজি মারা যায়। রোববার সখিপুর থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় নিহতের মা লাইলী বেগম বাদী হয়ে ৬জনকে আসামী করে সখিপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

এ ব্যাপারে স্থানীয় হোসেন পাটুয়ারী বলেন, মনির হোসেন মিজি ও শাহাদাত দিদার ২০ টাকা করে বাজী ধরে লুডু খেলার পর মনির ২০ টাকা জিতে যায়। এ সময় নদীর পাড়ে একটি ট্রলারে মনিরের কাঠ আসে। পরে লুডু খেলা বন্ধ করে শাহাদাত দিদারের কাছে মনির ২০ টাকা দাবি করলে সে তা দিতে অস্বীকার করে। পরে মনির কাঠ নামানোর জন্য আপোষে শাহাদাতের গলায় থাকা গামছা ধরে টান দেয়। এ নিয়ে মনিরকে বাশ দিয়ে পিটিয়ে আহত করে শাহাদাত। পরে হাসপাতালে নেয়ার পর মনির মারা যায়।

এ বিষয়ে সখিপুর থানার ওসি মোঃ এনামুল হক বলেন, গামছা টানাটানিকে কেন্দ্র করে তর্ক-বির্তকের একপর্যায়ে মনিরকে পিটিয়ে আহত করে শাহাদাত। পরে ঢাকায় হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যায় মনির। আমরা নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছি এবং আসামীদের গ্রেফতারের জোর চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।


আরো সংবাদ




astropay bozdurmak istiyorum
portugal golden visa