২৪ জানুয়ারি ২০১৯

বন্দরে মাদক ব্যবসায়ী-পুলিশ সংঘর্ষ : গুলিতে পথচারী নিহত

-

নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার মদনপুর চানপুর এলাকায় গ্রামবাসীর সাথে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় গুলিতে আশিকুর রহমান (২৫) নামের এক পথচারী নিহত এবং ৫ পুলিশসহ ২০ জন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দুই ঘন্টা যান চলাচল বন্ধ ছিলো।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শনিবার রাত সাড়ে ৮টায় বন্দর থানার এসআই মো: আলী ও এসআই সাইদুর রহমান মদনপুর একতা সুপার মার্কেটের সামনে একটি রেস্তোরাঁয় চানপুর এলাকার খলিল মেম্বারের সমর্থিত দুজন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে। এ ব্যাপারে পুলিশকে মদনপুর এলাকার প্রভাবশালী আমির হোসেনের লোকজন সহায়তা করে।

আটককৃত দুই মাদক ব্যবসায়ীর সাথে পুলিশের কথাকাটাকাটি ও ধস্তাধস্তির খবর চানপুর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে মসজিদের মাইকে ডাকাত পড়েছে বলে ঘোষণা দিয়ে গ্রামবাসী পুলিশের উপর হামলা করে। টেটা, বল্লম, চাপাতিসহ বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে খলিল মেম্বারের সমর্থিতদের সাথে পুলিশ, আমিরের লোকজনের মধ্যে দাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, ইট-পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশের দুটি গাড়ি ভাংচুর করা হয়। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে গুলি ছুড়ে।

পুলিশের গুলিতে এ সময় আশিকুর রহমান (২৫) নামের এক গার্মেন্টসকর্মী গুলিবিদ্ধ হলে তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (ঢামেক) নেয়ার পথে তিনি মারা যান।

নিহত আশিকুর মদনপুর চানপুর এলাকার মতিন মিয়ার বাড়ির ভাড়াটিয়া শফিকুর রহমানের ছেলে।

এ সময় পুরো মদনপুর এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। সংঘর্ষে দারোগা মো: আলীসহ ৫ পুলিশ সদস্যসহ ২০ জন আহত হয়েছে। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দুই ঘন্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

বন্দর থানার ওসি জানান, এলাকায় প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপে দ্বন্দ্ব চলছিল। গতকাল পুনরায় উত্তেজনা দেখা দেয়ায় পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে পুলিশের উপর হামলা করে। এখন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে। এ ব্যাপারে দারোগা মো: আলী বাদী হয়ে বন্দর থানায় মামলা দায়ের করেছেন।


আরো সংবাদ