২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

রিকশাচালককে বর্বর নির্যাতন : সেই কুকুরগুলো জব্দ

অপরাধ
কুকুর দু’টি উদ্ধার করে আসামির মায়ের জিম্মায় রেখে আসে পুলিশ। - ছবি : নয়া দিগন্ত

নারায়ণগঞ্জে কুকুর লেলিয়ে রিকশাচালক আবদুর রাজ্জাককে বর্বর নির্যাতনের ঘটনায় ওই দুটি কুকুর জব্দ করেছে পুলিশ। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে পুলিশ জামতলায় নির্যাতনকারীর বাসা হতে ওই দুটি কুকুর জব্দ করে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ফতুল্লা মডেল থানার এসআই ফায়জুর বৃহস্পতিবার আসামি রুপুর বাড়িতে গিয়ে বিদেশী কুকুর ২টি জব্দ করে রুপুর মা শিউলী বেগমের হেফাজতে রেখে আসেন। ওই বাড়ির ছাদে বিরল প্রজাতির চিল ও বাজপাখিও দেখা গেছে। এসব পাখি পোষার কোনো অনুমতি নেয়া হয়নি। বন্য প্রাণী সংরক্ষণ আইনে রুপুর বিরুদ্ধে আরেকটি মামলা হবে বলে এসআই ফায়জুর জানান।

তিনি বলেন, রুপুর বাড়ি থেকে জব্দ করা কুকুর ২টি ইংল্যান্ডের ‘রড হুইলার’ জাতের। এছাড়া বাজ ও চিলগুলো প্রায় বিলুপ্ত প্রজাতির।

এদিকে ৬ দিন পেরিয়ে গেলেও পুলিশ এখনো ঘটনার সঙ্গে জড়িত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। ঘটনার ৩ দিন পর গত ৭ আগস্ট মঙ্গলবার দুইজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত পরিচয় আরও ২-৩ জনকে আসামি করে নির্যাতনের শিকার রিকশাচালক রাজ্জাক ফতুল্লা মডেল থানায় একটি মামলা দায়েরের পর আরো তিন দিন কেটে গেছে।

বর্বর এই ঘটনার পর ছয়দিন পেরিয়ে গেলেও আসামিদের কেউ গ্রেফতার না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় এলাকবাসী।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি শাহ মঞ্জুর কাদের বলেন, আজ না হয় কাল আসামিদের গ্রেফতার হতেই হবে। পুলিশ আসামিদের গ্রেফতারের জন্য কাজ করছে।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার রাতে জামতলা এলাকার আবদুর রহিমের বাড়ির প্রহরী মহিউদ্দিনের কাছে পাওনা ৭ হাজার টাকা আনতে গেলে বাড়ির মালিকের ছেলে মাহাবুবুর রহমান রুপু তার বাড়ির প্রহরী মহিউদ্দিনের পক্ষ নিয়ে পাওনাদার রাজ্জাককে মারধর করে বাড়ির ছাদে নিয়ে যায়। সেখানে পোষা বিদেশী ২টি কুকুরের ঘরে রাজ্জাকে ঢুকিয়ে দেয়া হয়। কুকুরগুলোর হামলায় রাজ্জাক গুরুতর আহত হলে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

এদিকে ঘটনার শিকার আবদুর রাজ্জাকের শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটেছে। বুধবার নারায়ণগঞ্জ ১০০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের নার্সরা তাকে ইনজেকশন পুশ করতে অপারগতা প্রকাশ করে ডাক্তারের মাধ্যমে ইনজেকশন পুশ করতে পরামর্শ দেন। সেই সঙ্গে রাজ্জাকের ব্যবহৃত থালা, বাটিসহ অন্যান্য ব্যবহার্য জিনিসপত্র আলাদা করে দিতেও পরামর্শ দেয়া হয় তার স্ত্রী শেফালীকে।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালের ২২ এপ্রিল চট্টগ্রামে বন্ধুদের লেলিয়ে দেওয়া জার্মান প্রজাতির ডোবারম্যান জাতের কুকুরের কামড়ে আহত হয় হিমাদ্রি মজুমদার নামে ‘এ’ লেভেলের এক স্কুলছাত্র। ঘটনার পর ২৭ দিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় হিমাদ্রি। ঘটনাটি ওই সময় দেশব্যাপী ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি করে। ওই ঘটনায় পিতা-পুত্রসহ পাঁচজনের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছিল চট্টগ্রামের একটি আদালত।

আরো পড়ুন :
‘কুকুর হটাও’ চীনা হুকুম
নয়া দিগন্ত অনলাইন, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৫
রাষ্ট্র বলেছিল, একের বেশি সন্তানের জন্ম দেয়া যাবে না। মানতে বাধ্য হয়েছিলেন নাগরিকরা। একাকিত্ব কাটাতে কোলে তুলে নিয়েছিলেন পোষ্য কুকুরকে। চীনের বেশির ভাগ মানুষের বাড়িতে কুকুর রয়েছে। তাদের সারমেয়প্রীতি লোকগাথা হয়ে গিয়েছে। রাস্তার কুকুর ধরে কসাইখানায় নিয়ে যাওয়ার পথে অনেক জায়গায় লরি আটকেছে যুবকদের স্বেচ্ছাসেবী বাহিনী। এহেন চীনের শানডং অঞ্চলের ডায়াং জেলা প্রশাসনের কুকুরে নিষেধাজ্ঞাকে ঘিরে বিক্ষুব্ধ মানুষজন।

প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে বাড়িতে কুকুর রাখা চলবে না। তাদের বার করে দিতে হবে। কুকুর রাখার লাইসেন্স থাকলেও রেহাই মিলবে না। বাড়িতে ঢুকে কুকুর নিধন করবে সরকারি কর্মীরা। পশুপ্রেমীরা বিক্ষোভ শুরু করেছে।

এক কুকুরপ্রেমীর কথায়, ‘এই নিষেধাজ্ঞা মেনে নিতে পারছি না। এখানে অনেকেরই কুকুর রাখার লাইসেন্স আছে। তারা কুকুর মারতে পারে না। অনুমতি ছাড়া তাদের বাড়িতে ঢোকার কোনও অধিকার নেই।’ কে শোনে কার কথা। প্রশাসন জানিয়েছে এলাকাবাসীর ‘ভাল’র জন্য এবং জেলাবাসীর স্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখে এই সিদ্ধান্ত।

এক সরকারি কর্মকর্তা জানিয়েছেন, রাস্তার কুকুরদের হাত থেকে মানুষকে বাঁচাতে আইন করা হয়েছিল। তবে বাড়ির পোষ্য কুকুরদেরও কেন মেরে ফেলা হবে, এ প্রশ্নের উত্তর দেননি সরকারি ওই কর্মকর্তা।

তাইওয়ানে কুকুর বিড়ালের মাংস খাওয়া নিষিদ্ধ
এএফপি, ১৩ এপ্রিল ২০১৭
তাইওয়ানে কুকুর ও বিড়ালের মাংস খাওয়া নিষিদ্ধ করা হয়েছে। আইনপ্রণেতারা বুধবার জানান, কুকুর ও বিড়ালের মাংস খাওয়া, ক্রয় বা বিক্রয় নিষিদ্ধ ঘোষণা করে পার্লামেন্টে আইন পাস করা হয়েছে। ফলে কেউ এ আইন অমান্য করলে তাকে সর্বোচ্চ আট হাজার ১৭০ ডলার জরিমানা দিতে হবে।

ওই আইনে আরো বলা হয়, কেউ প্রাণী হত্যা বা নির্যাতন করলে তাকে সর্বোচ্চ দুই বছরের কারাদণ্ড ভোগ করতে হবে এবং ২০ লাখ তাইওয়ান ডলার জরিমানা করা হতে পারে। আর যদি কেউ বারবার এ ধরনের অপরাধ করে তার সাজা দ্বিগুণেরও বেশি হবে।
কয়েক দশক আগেও এশিয়ার আরো অনেক দেশের মতো তাইওয়ানেও কুকুরের মাংস খাওয়া স্বাভাবিক ঘটনা ছিল। তবে বর্তমানে এ প্রাণীর মাংস খাওয়ার ঘটনা কালেভদ্রেই ঘটে। কিন্তু সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বিভিন্ন দোকানে কুকুরের মাংস বিক্রির খবর পাওয়া গেছে এবং হাতেনাতে ধরাও হয়েছে।

বীরত্বের পদক পেল কুকুর
নয়া দিগন্ত অনলাইন, ২৯ ডিসেম্বর ২০১৫
প্যারিসে সন্ত্রাসী হামলার পর নিরাপত্তা অভিযানে নিহত ফ্রান্সের পুলিশের একটি কুকুরকে বীরত্বসূচক পদক দেয়া হচ্ছে। সাত বছর বয়সী ডিজেল ছিল ফ্রান্সের সন্ত্রাসবিরোধী এলিট পুলিশ ইউনিট `রেইড`-এর সদস্য।

গত মাসে প্যারিসের সন্ত্রাসী হামলার পর হামলাকারীদের ধরতে রেইড শহরের বিভিন্ন জায়গায় নিরাপত্তা অভিযান পরিচালনা করে।

এমনি একটি অভিযানে ১৮ই নভেম্বর প্যারিসের একটি ফ্ল্যাটবাড়িতে অভিযানের সময় ডিজেলের গায়ে পাঁচটি গুলি লাগে।

ডিজেলকে পরিচালনা করেন যে কর্মকর্তা তিনি বলেন, 'কুকরটি বাড়ির একটি কক্ষ পরীক্ষা করে বেরিয়ে আসে। এর পর সে দ্বিতীয় কক্ষটির দরজা দিয়ে মাথা ঢোকায় এবং তড়িৎ গতিতে এগিয়ে যায়। এরপর ঘরের ভেতর থেকে আমি একের পর এক গুলির শব্দ শুনতে পাই।'

নিহত হওয়ার আগে অভিযানে ডিজেল
'আমি ডিজেলকে বুঝতাম, সেও আমাকে বুঝতে পারতো। এই পরিস্থিতিতে কী করা উচিত আমরা দু'জনেই তা জানতাম।'

গুরুতর আহত হওয়ার পর তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়। তাকে বাঁচানোর জন্য অনেক প্রচেষ্টা চলে কিন্তু কোনো লাভ হয়নি।

ডিজেল যে পুরষ্কারের জন্য মনোনীত হয়েছে তার নাম পিডিএসএ-ডিকিন মেডাল। এই পদককে পশুদের জগতের ভিক্টোরিয়া ক্রস বলে বর্ণনা করা হয়।

১৯৩৪ সাল থেকে ৩০টি কুকুর, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় জরুরি বার্তাবাহী ৩২টি কবুতর, তিনটি ঘোড়া এবং একটি বিড়ালকে এই পদক দেয়া হয়েছে।

নববর্ষের সময় এক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ডিজেলের বীরত্বের পদকটি ফরাসী পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হবে।


আরো সংবাদ