Naya Diganta

ঢাবিতে ভর্তি : অনলাইনেই ছবি সংশোধন করার সুযোগ

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

১৩ আগস্ট ২০১৭,রবিবার, ১৫:১৭


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষ সম্মান শ্রেণীতে ভর্তির অনলাইন আবেদপত্রে ছবির নির্দেশিকা যারা মানেনি তাদের তা সংশোধনের নির্দেশ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি কমিটি। অনলাইনেই ছবি সংশোধন করতে পারবে ভর্তিচ্ছুরা। এজন্য তাদের আবার ভর্তি ফি জমা দিতে হবে।

এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে প্রদত্ত ভর্তি নির্দেশিকা অনুযায়ী, সকল আবেদনকারীকে ভর্তি আবেদনের সঙ্গে সংযুক্ত ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড সাদা হওয়া বাঞ্ছনীয় ছিল। এক্ষেত্রে চোখ-কানসহ পূর্ণ মুখমণ্ডল দৃশ্যমান হতে হবে। আবেদনকারীর ছবি দৈর্ঘ্য (লম্বায়) ৫৭৫-৬২৫ পিক্সেল এবং প্রস্থ (চওড়া) ৪২৫-৪৭৫ পিক্সেলের মধ্যে হতে হবে। ছবির ফাইল অবশ্যই জেপিজি ফরম্যাটে থাকতে হবে। ছবিটির ফাইলের সাইজ ১০০ কেবি-এর মধ্যে হতে হবে।

এছাড়াও সংশোধনের আবেদনকারী শিক্ষার্থীদের অধিকাংশই ছবিতে নীল ব্যাকগ্রাউন্ড ব্যবহার করেছেন, যদিও ‘ব্যাকগ্রাউন্ড সাদা হওয়া বাঞ্ছনীয়’ বলে নির্দেশিকায় উল্লেখ করা হয়। এছাড়াও কেউ কেউ ‘সেলফি স্টাইলে’ ছবি দিয়েছেন বলে সূত্র জানায়। যা আবেদন-প্রক্রিয়ায় অযোগ্য বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

কিন্তু অনেক আবেদনকারীই এ নির্দেশিকা মানেননি। যার কারণে তা সংশোধনের জন্য রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি অফিসে জড়ো হন আবেদনকারীরা। ২০০ টাকা জরিমানা গুণে এটি সংশোধন করেন অনেকেই। কিন্তু ছবির নিয়ম না মেনে আবেদনকারীদের সংখ্যা বেশি হলে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষণিক এক বৈঠকে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী অনলাইনে ছবি সংশোধনের সুযোগ দেয় ভর্তিচ্ছুদের। পরে সিদ্ধান্তের কথা ওয়েবসাইটে উল্লেখ করা হয়।

বর্তমানে ভর্তি ওয়েবসাইটে পরিবর্তন সম্পর্কে জানানো হয়, 'কোন আবেদনকারীর ছবিতে দুই কান ও চোখ দেখা না গেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছবিটি গ্রহণ করবে না। যদি কোন আবেদনকারী ইতোমধ্যে এরূপ ছবি আপলোড করে থাকেন (টাকা জমা দেয়া হোক বা না হোক) তাকে "আমি নই" বাটনে ক্লিক করে সঠিক ছবি দিয়ে পুনরায় আবেদন করার জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে। অন্যথায় আবেদনপত্র বাতিল হবে। সঠিক ছবি দিয়ে আবেদনের পর ব্যাংকে পুনরায় টাকা জমা দিতে হবে।'

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যারয়ের ভর্তি কমিটির সমন্বয়ক অধ্যাপক ড. হাসিবুর রশীদ বলেন, ভুল করা শিক্ষার্থীর সংখ্যা বেশি হওয়ায় আমারা তাৎক্ষণিকভাবে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি। যা ভর্তি ওয়েবসাইটে উল্লেখ করা হয়েছে।

Logo

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,    
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫