খুসিক নির্বাচনেও জাতির সাথে তামাশা করেছে সরকার : চরমোনাই পীর

নয়া দিগন্ত অনলাইন

বিগত নির্বাচনগুলোর মতো খুলনা সিটি করপোরেশন (খুসিক) নির্বাচনেও সীমাহীন ভোট ডাকাতি, জালভোট প্রদান ও কেন্দ্র দখলের মতো ঘটনা ঘটিয়ে নির্বাচনের নামে সরকার জাতির সাথে আবারো তামাশা করেছে বলে মন্তব্য করেছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির ও চরমোনাই পীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মাদ রেজাউল করীম বলেছেন, বিগত নির্বাচনগুলোর মতো গতকালের নির্বাচনেও ভোট ডাকাতির দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো সরকার। খুলনা সিটি নির্বাচন নিয়ে জাতি আশা করেছিল সরকার একটি স্বচ্ছ ও সুন্দর নির্বাচন উপহার দিয়ে জাতিকে অচলাবস্থা থেকে বের করে আনবে। কিন্তু যা ঘটলো তাতে রাজনৈতিক সহিংসতা বাড়বে ছাড়া কমবে না।

গতকাল এক বিবৃতিতে তিনি এ কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, জাতি অবাক বিস্ময়ে দেখেছে, ভয়াবহ ভোট ডাকাতি, জালিয়াতী, কেন্দ্র দখলের ঘটনা ঘটেছে এবং ইসলামী আন্দোলনের এজেন্টসহ বিরোধী দলের এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে বের করে দিয়ে নির্বাচনের মাজা ভেঙ্গে দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, নির্বাচনের আগের রাত থেকে সাধারণ ভোটারদের মাঝে আতঙ্ক ছড়ানোর জন্য সর্বত্র বহিরাগত ও দলীয় ক্যাডাররা মহড়া দিতে থাকে, যা সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য অন্তরায়। তিনি বলেন, অনেক হাতপাখার কাউন্সিলর নিজে ও তার পরিবার ভোট দিতে পারেনি। নির্বাচন কমিশনের মতো একটি সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানকে সরকার ধ্বংস করে দিয়ে নির্বাচন কমিশনকে আজ্ঞাবহ ও দলীয় কমিশনে পরিণত করেছে।

চরমোনাই পীর বলেন, নির্বাচনের নামে সরকার জাতির সাথে তামাশা করেছে। এতে করে আবারো প্রমাণিত হলো দলীয় সরকারের অধীনে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে না। কাজেই সংবিধানে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের বিল পুনরায় সংযোজন করতে হবে এবং বর্তমান নির্বাচন কমিশন সরকারের আজ্ঞাবহ ও পুতুল হিসেবে পরিচয় দেওয়ায় অবিলম্বে সিইসির পদত্যাগ দাবি করছি। বিজ্ঞপ্তি।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.