ফিলিস্তিনে মুসলমানদের প্রথম কেবলা, মুসলিম ভূখণ্ড : রাশিদ কাব্বানি
ফিলিস্তিনে মুসলমানদের প্রথম কেবলা, মুসলিম ভূখণ্ড : রাশিদ কাব্বানি

ফিলিস্তিনে মুসলমানদের প্রথম কেবলা, মুসলিম ভূখণ্ড : রাশিদ কাব্বানি

নয়া দিগন্ত অনলাইন

লেবাননের প্রভাবশালী মুফতি শেইখ রাশিদ কাব্বানি বলেছেন, ইসরাইলের সাথে সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা হারাম। কোনো মুসলমানেরই উচিত নয় ইসরাইলের সঙ্গে আপোষ করা। তিনি বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দিয়েছেন।

তিনি আরো বলেছেন, ফিলিস্তিন হচ্ছে মুসলিম ভূখণ্ড। মুসলমানদের এই ভূখণ্ডকে ইহুদিবাদীরা ১৯৪৮ সালে দখলে নিয়েছে। ফিলিস্তিনকে মুক্ত করা ফিলিস্তিনিদের পাশাপাশি বিশ্বের সব মুসলমানের জন্য ফরজ। এক বিঘত ভূমির বিষয়েও আপোষ করা যাবে না।

মুফতি কাব্বানি বলেন, ফিলিস্তিন ও পবিত্র স্থানগুলো মুক্ত করার জন্য সবার পক্ষ থেকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে হবে।

এদিকে, লেবাননের সিডন অঞ্চলের জুমার নামাজের ইমাম শেইখ আফিফ নাবলুসি বলেছেন, ফিলিস্তিন হচ্ছে মুসলমানদের প্রথম কেবলা। আমেরিকা যত চেষ্টাই চালাক না কেন ফিলিস্তিন ইস্যুকে মুসলমানদের মন থেকে মুছে ফেলতে পারবে না।

গত সোমবার সব আন্তর্জাতিক আইন ও নীতিমালা লঙ্ঘন করে মার্কিন সরকার তেল আবিব থেকে দূতাবাস জেরুসালেমে স্থানান্তর করেছে। এর প্রতিবাদে সেদিন গাজার মানুষ ব্যাপক বিক্ষোভে অংশ নেয়। এ সময় ইসরািইলের সেনাদের হামলায় ৬০ ফিলিস্তিনি শহীদ ও অন্তত তিন হাজার ব্যক্তি আহত হয়।

 

ইসরাইলের হত্যাকাণ্ডের নিন্দায় বাংলাদেশ, ফিলিস্তিনের প্রতি পূর্ণ সমর্থন

জেরুসালেমে মার্কিন দূতাবাস উদ্বোধনকে কেন্দ্র করে ফিলিস্তিনের গাজা অঞ্চলে ইসরাইলি বাহিনীর নির্বিচার হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে বাংলাদেশ। মঙ্গলবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে এই নিন্দা জানানো হয়। পাশাপাশি এই ধরনের হত্যাকাণ্ড বন্ধ করতে ইসরাইলের ওপর চাপ দিতে বিশ্ব সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, ফিলিস্তিনে ইসরাইলি কর্তৃপক্ষের শক্তিপ্রয়োগের কঠোর নিন্দা জানাচ্ছে বাংলাদেশ। পাশাপাশি ভুক্তভোগী ফিলিস্তিনিদের প্রতি গভীর সমবেদনা ও সহানুভূতিও জানাচ্ছে।জেরুসালেমে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস স্থানান্তরে আমরা উদ্বিগ্ন ও আতঙ্কিত। জেরুসালেমের বিধিসম্মত মর্যাদার(লিগ্যাল স্ট্যাটাস) ব্যাপারে জাতিসঙ্ঘের সংশ্লিষ্ট রেজ্যুলেশন মেনে চলার ওপর জোর দিচ্ছে বাংলাদেশ।

পূর্ব জেরুসালেমকে রাজধানী করে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনের স্বার্থে দুই রাষ্ট্র সমাধান নীতির পক্ষেই বাংলাদেশ তার অবস্থান পুনর্ব্যক্ত করছে বলেও উল্লেখ করা হয় বিবৃতিতে।

জেরুসালেমে মার্কিন দূতাবাস উদ্বোধনকে কেন্দ্র করে ফিলিস্তিনের গাজা অঞ্চলে ইসরাইলি বাহিনীর হত্যাকাণ্ডে ডাকা ওআইসি বিশেষ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ফোনে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিম। মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় শেখ হাসিনাকে টেলিফোন করে আমন্ত্রণ জানান তিনি। এসময় দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে ১৫ মিনিট কথা হয়।

বিনালি ইলদিরিম শেখ হাসিনাকে বলেন, আগামী ১৮ মে ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরাইলের হামলার ব্যাপারে একটি বিশেষ সম্মেলন আহ্বান করেছে ওআইসি। এতে যোগ দেয়ার জন্য আপনাকে আমন্ত্রণ জানাচ্ছি।

প্রধানমন্ত্রী এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, এটি একটি সময়োচিত পদক্ষেপ। এই ব্যাপারে মুসলিম উম্মাহকে এক হতে হবে। ফিলিস্তিনের নাগরিকদের ওপর ইসরাইলের শক্তি প্রয়োগ মানবাধিকার লঙ্ঘন। এসময় জেরুসালেমে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তর করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের প্রতি পূর্ণ সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এসব তথ্য জানান।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.