খান কম, অনুশীলন করুন বেশি, বই পড়ুন বেশি: মাহাথির
খান কম, অনুশীলন করুন বেশি, বই পড়ুন বেশি: মাহাথির

খান কম, অনুশীলন করুন বেশি, বই পড়ুন বেশি: মাহাথির

নয়া দিগন্ত অনলাইন

মালয়েশিয়ার রাজনীতিতে কিংবদন্তি পুরুষ  ও আধুনিক মালয়েশিয়ার রুপকার ড. মাহাথির বিন মোহাম্মদ একজন চিন্তাশীল ব্যক্তিত্ব। তিনি বিভিন্ন সময় নানা বিষয়ে কথা বলেছেন। যা থেকে তার দূরদৃষ্টি, দৃষ্টিভঙ্গী ও বিশ্লেষণী ক্ষমতা ফুটে উঠে। তিনি বলেছেন-

১. আমরা সংবিধান সমুন্নত রাখার বিষয়টি নিশ্চিত করতে চাই। আইনের শাসনমতে দেশ চালাতে চাই।

২. আমরা বিশ্বাস করি, এয়ানএমডিবির বেশির ভাগ অর্থ ফেরত আনতে পারব।

৩. জনগণকে নির্যাতন করার জন্য তৈরি করা কোনো আইন রাখা হবে না।

৪. আমাদের ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে যাওয়ার জন্য কাজ করতে হবে। পেছনের আবর্জনা ঘাঁটার সময় আমাদের হাতে নেই।

৫. আমি কোনো প্রতিশোধ নিতে চাই না।

৬. প্রত্যেকের নিজ পরিবার একটি নিরাপদ জায়গা - যা আমাদের এই জটিল সমাজে স্থিরতা আনে।

৭. ইসলাম ধর্ম আমাদের জীবনের অংশ। একে পরিত্যাগ করার কোন কারণ নেই। সঠিকভাবে ব্যাখ্যা করা হলে ধর্ম কখনো অর্থনৈতিক অগ্রগতির জন্য বাধা হতে পারে না। ইসলামের শিক্ষা সমসাময়িক সময়ের দৃষ্টিভঙ্গিতে নিতে হবে। ইসলাম শুধু মাত্র সপ্তম শতাব্দীর ধর্ম নয়। ইসলাম অবশ্যই সর্বকালের ধর্ম।

৮. চিকিৎসা বিদ্যায় প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত লোকের জন্য রাজনীতি একটি ভালো পেশা। একজন ডাক্তার রোগীকে পর্যবেক্ষণ করেন, স্বাস্থ্যগত ইতিহাস রেকর্ড করেন, স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেন, ল্যাব পরীক্ষা করেন এবং চূড়ান্তভাবে রোগ নির্ণয় করেন। এ প্রক্রিয়াটি রাজনীতির মতই।

৯. ট্রাম্প আন্তর্জাতিক গুণ্ডা। তাকে ঠেকাতে অবশ্যই আমাদের সব ক্ষমতা ব্যবহার করতে হবে।

১০. খান কম, অনুশীলন করুন বেশি, বই পড়ুন বেশি।

 

মাহাথির মোহাম্মদের ১৪টি বিরল রেকর্ড

ইতিহাস সৃষ্টি করে মালয়েশিয়ার ক্ষমতায় ফিরলেন ড. মাহাথির বিন মোহাম্মদ। নির্বাচন কমিশন পাকাতান হারাপানকে বিজয়ী ঘোষণার পরই দেশটির রাজা সুলতান মোহাম্মদ জোটের প্রধান মাহাথির মোহাম্মদকে সরকার গঠনের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। মাহাথির মোহাম্মদের ১৪টি বিরল রেকর্ড হচ্ছে-

এক. ১৯৫৭ সালে স্বাধীনতা অর্জনের দীর্ঘ ৬১ বছরে এবারই প্রথম ক্ষমতার পালাবদল হলো মালয়েশিয়ায়, যা প্রত্যক্ষ করলো মালয়েশিয়ার জনগণ।

দুই. ৯২ বছরের বর্ষীয়ান এই রাজনীতিক হতে চলেছেন বিশ্বের সবচেয়ে বেশি বয়সী প্রধানমন্ত্রী।

তিন. ১৯৮১ সাল থেকে ২২ বছর প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করে ২০০৩ সালে স্বেচ্ছায় ক্ষমতা ছাড়েন। ১৫ বছর পর আবার দেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার বিরল রেকর্ড।

চার. বিদায়ী প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক এক সময় ছিলেন মাহাথির মোহাম্মদেরই শিষ্য। শিষ্যের দুর্নীতি আর স্বজনপ্রীতির কারণে ক্ষুব্ধ হয়ে অবসর জীবন থেকে আবার রাজনীতিতে সক্রিয় হন।

পাঁচ. ক্ষমতাসীন দলকে পরাজিত করে বিরোধী দল থেকে প্রধানমন্ত্রী হওয়া মাহাথিরের চমক।

ছয়. নিজের দল বোরিসান অ্যালায়েন্স ত্যাগ করে আলাদা দল গঠন করে বিরোধীদের নিয়ে জোট গঠন করে নির্বাচিত হওয়ার রেকর্ড।

সাত. সরকারি চাকুরিজীবী থেকে নিজেই একটি প্রাইভেট ক্লিনিক খুলেন। চিকিৎসক হিসেবে জনপ্রিয়তা ও গণ সম্পৃক্ততা থেকেেই প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন। এমন রেকর্ড দেখা যায় না।

আট. দেশের সকল মুসলিমদের জন্য ধর্মীয় শিক্ষা বাধ্যতামূলক করেন তিনি।

নয়. মালয়েশিয়ানদের শিক্ষার ৯৫ শতাংশ খরচ সরকার বহনের নীতি চালু করেন মাহাথির।

দশ. ১৯৯২ সালে নিজ দেশের সবাইকে কর্মসংস্থান দিয়েছেন। একজনও বেকার ছিল না। আরো ৮ লক্ষ বিদেশী শ্রমিক নিয়োগ দেয় মালয়েশিয়া।

এগার. সরকারি কর্মীরা যেন ঠিক সময়ে অফিসে আসেন তার জন্য প্রথমবারের মতো চালু করেন ফ্লো-চার্ট।

বার. তিনি কর্মীদের যা করতে বলেছেন তা নিজে করেও দেখিয়েছেন। অবাস্তব বলেননি বা কাল্পনিক নির্দেশনা দেননি।

তের. টাইম ম্যাগাজিন একবার তার অফিসে আসার সময় রেকর্ড করেছিল। পরপর পাঁচ দিন তার অফিসে প্রবেশের সময় ছিল সকাল ৭:৫৭, ৭:৫৬, ৭:৫৭, ৭:৫৯, ৭:৫৭

চৌদ্দ.পাল্টে যায় মালয়েশিয়ার রাজনৈতিক মানচিত্র। নির্বাচিত হয়েই আনোয়ার ইব্রাহীমের জুন মাসে মুক্তির কথা বলে তিনি প্রতিশ্রুতি পূরণের নজির সৃষ্টি করেন।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.