বদলে গেলেন মাহাথির, বুধবার মুক্তি পাচ্ছেন কী আনোয়ার ইব্রাহীম?
বদলে গেলেন মাহাথির, বুধবার মুক্তি পাচ্ছেন কী আনোয়ার ইব্রাহীম?

বদলে গেলেন মাহাথির, বুধবার মুক্তি পাচ্ছেন কী আনোয়ার ইব্রাহীম?

নয়া দিগন্ত অনলাইন

স্থগিত হয়ে গেছে মালয়েশিয়ার সাবেক উপ-প্রধানমন্ত্রী আনোয়ার ইব্রাহীমের কারামুক্তির বিষয়টি। দেশটির প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের কার্যালয়ের অনুরোধে বুধবার পর্যন্ত আনোয়ারের কারামুক্তি স্থগিত করা হয়েছে।

জানা গেছে, আনোয়ারের মুক্তির ব্যাপারে যে আলোচনা চলছিল তাতে সন্তুষ্ট ছিলেন দেশটির রাজা। কিন্তু বৈঠক বুধবার পর্যন্ত স্থগিত করতে মাহাথিরের কার্যালয় অনুরোধ জানিয়েছে।

আনোয়ােরের স্ত্রী ওয়ান আজিজাহ ইসমাইল বর্তমানে দেশটির উপ-প্রধানমন্ত্রী পদমর্যাদা পেয়েছেন। আনোয়ারের মুক্তির ব্যাপারে মাহাথিরের সঙ্গে তিনি আলোচনাও করেছেন।
অবশ্য গত শনিবার চ্যানেল নিউজ এশিয়ার এক প্রতিবেদনে আনোয়ারের মেয়ে নুরুল ইজ্জাহর বরাত দিয়ে জানানো হয়, মঙ্গলবার তার বাবা মুক্তি পাবেন।

মাহাথির ক্ষমতা থেকে সরে গেলে আনোয়ারই দেশটির পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হতে পারেন। সমকামিতার অভিযোগে ৭০ বছর বয়সী আনোয়ারকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন মাহাথির।

তবে আনোয়ারের ক্যারিয়ার ধ্বংস করে দিতে রাজনৈতিকভাবে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক সেই অভিযোগ করেছিলেন বলে আনোয়ারের দাবি।

এবার তিনি মুক্তি পেলেও রাজা তাকে ক্ষমা না করা পর্যন্ত তিনি পরবর্তী পাঁচ বছরের জন্য কার্যালয়ের দায়িত্ব পালনে অযোগ্য বিবেচিত হবেন।

মাহাথির মোহাম্মদ ও আনোয়ার ইব্রাহিম: বন্ধু থেকে শত্রু, শত্রু থেকে বন্ধু

মালয়েশিয়ার দুই কিংবদন্তী পুরুষের নাম মাহাথির মোহাম্মদ ও আনোয়ার ইব্রাহিম। ৯০ এর দশকে হাতে হাত রেখে রাজনীতির মাঠ দাপিয়ে বেড়িয়েছেন উভয়ে। কিন্তু এক সময় দূরত্ব তৈরি হতে থাকে দুইজনের মধ্যে। আদর্শিক দিক থেকে বলতে গেলে একে অন্যের শত্রুতে পরিণত হন এক পর্যায়ে এসে। শত্রুতা তৈরিতে অবশ্য প্রধান ভূমিকা ছিল মাহাথিরেরই।

ইসলামপন্থী আনোয়ার থেকে দূরে থাকতে এবং নিজের পশ্চিমামুখী রাজনীতিকে টিকিয়ে রাখতে নিজের ক্ষমতা প্রয়োগ করেন মাহাথির। সমকামিতার অভিযোগ এনে আনোয়ারকে জেলে ঢুকানো হয়। যদিও সৎ ও অত্যন্ত ধার্মিক হিসেবে পরিচিত আনোয়ারের বিরুদ্ধে এমন হাস্যকর অভিযোগ আনার কারণে সমালোচিত হয় তৎকালীন সরকার। মাহাথির মোহাম্মদের সরকারের দ্বারা বহু বছর জেল খাটার পর মুক্তি পেয়ে আরো জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন ইসলামপন্থী এই নেতা।

২২ বছর ক্ষমতায় থাকার পর ২০০৩ সালে স্বেচ্ছায় ক্ষমতা ছেড়ে দিয়েছিলেন আধুনিক মালয়েশিয়ার রূপকার হিসেবে পরিচিত মাহাথির মোহাম্মদ। বর্তমানে ৯২ বছর বয়সে আবার নির্বাচনে লড়ছেন। তিনি তার সাবেক দল ইউনাইটেড মালয়স ন্যাশনাল অর্গানাইজেশনকে এ নির্বাচনে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়েছেন ।বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের কর্মকাণ্ডে হতাশ হয়ে ২০০৩ সালে এ দল থেকে পদত্যাগ করেছিলেন তিনি।

নির্বাচনের প্রচারণার সময় মাহাথির মোহাম্মদ বলেন, আমি ইতোমধ্যে বৃদ্ধ হয়ে গেছি। আমার খুব বেশি সময় বাকি নেই। আমি দেশকে পুনরায় গঠনের জন্য কিছু কাজ করতে চাই। হতে পারে, অতীতে আমি যে ভুল করেছি সেগুলোর সংশোধন করতে চাই।

মালয়েশিয়ার সরকার বিরোধী জোট প্রধানমন্ত্রী পদে লড়াইয়ের জন্য মাহাথির মোহম্মদকে নির্ধারণ করেছে। সরকার বিরোধী এ জোটের নেতা ছিলেন আনোয়ার ইব্রাহিম। মাহাথির মোহাম্মদ ক্ষমতায় থাকার সময় আনোয়ার ইব্রাহিম ছিলেন তাঁর সম্ভাব্য উত্তরসূরি। আনোয়ার ইব্রাহিমকে রাজনৈতিকভাবে হুমকি বলেও মনে করতেন তিনি।

একসময় রাজনৈতিক মতপার্থক্যও তীব্র হয়ে উঠেছিল উভয়ের মধ্যে। ১৯৯৯ সালে আনোয়ার ইব্রাহিমকে সমকামিতার অভিযোগে কারাগারে পাঠান মাহাথির মোহাম্মদ। ২০০৩ সালে মাহাথির মোহাম্মদের বিদায়ের পর ২০০৪ সালে কারাগার থেকে মুক্তি পান ইব্রাহিম।

২০১৩ সালের নির্বাচনে বর্তমান ক্ষমতাসীন নাজিব রাজাকের দলের বিরুদ্ধে লড়াই করেন। সে নির্বাচনে আনোয়ার ইব্রাহিমের দল অল্প ভোটের ব্যবধানে হেরেছিল এবং নাজিব রাজ্জাকের মনে ভয় ঢুকিয়ে দেয়। এরপর ২০১৫ সালে সেই সমকামিতার অভিযোগে আনোয়ার ইব্রাহিমকে আবারো জেলে পাঠানো হয়।

যে আনোয়ার ইব্রাহিমকে কারাগারে পাঠিয়েছিলেন মাহাথির মোহাম্মদ, সেই আনোয়ার ইব্রাহিমকে এখন ক্ষমতায় বসানোর জন্য উদগ্রীব হয়েছেন তিনি। এখন আনোয়ার ইব্রাহিমের বিরোধী জোট থেকেই নির্বাচন করছেন মাহাথির মোহাম্মদ।

নির্বাচনে জয়লাভ করতে পারলে কিছুদিন পর আনোয়ার ইব্রাহিমের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করা হবে।এমনটাই পরিকল্পনা রয়েছে বিরোধী জোটের। মাহাথির মোহাম্মদ মনে করেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাককে ক্ষমতা থেকে সরানোই হচ্ছে আসল উদ্দেশ্য।

আনোয়ার ইব্রাহিম যথেষ্ট শাস্তি পেয়েছে বলে মনে করেন মাহাথির মোহাম্মদ। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের বিরুদ্ধে সম্পদ পাচার, রাষ্ট্রীয় অর্থ আত্মসাতসহ নানা অভিযোগ রয়েছে। সম্প্রতি এক নির্বাচনী প্রচারণায় মাহাথির মোহাম্মদ বলেছেন, আমি সবার কাছে ক্ষমা চাই। নাজিবকে আমিই তুলে এনেছিলাম। এটা আমার জীবনের সবচেয়ে বড় ভুল ছিল। এখন আমি সে ভুল শোধরাতে চাই।

মাহাথির বলেছিলেন, ‘আমি আনোয়ারের কাছে ঋণী। তার অনুভূতি আমি অনুভব করতে পারছি। যখন আমার সরকারের সময়ে তাকে সুনগাই বুলো কারাগারে পাঠানো হয়েছিল তখন ওর কেমন লেগেছে আমি অনুভব করতে পারছি। গত ২০ বছরে তার পরিবার অনেক ভোগান্তির শিকার হয়েছে। আমি তাদের অনুভূতিটাও বুঝতে পারছি। আমাকে প্রধানমন্ত্রী প্রার্থী হিসেবে মেনে নেয়ার সিদ্ধান্ত তার জন্য খুব সহজ ছিল না। আমরা এখন একের অন্যের সাথে হাত মিলিয়েছি। কিন্তু তার পক্ষে আমাকে মেনে নেয়া সহজ নয়। কারণ আমি তখন নেতৃত্বের অংশ ছিলাম। এ কারণে আজকের সিদ্ধান্ত নিতে আমরা অনেক সময় নিয়েছি। তবে শেষ পর্যন্ত আনোয়ার আমাদের দেশের জন্য করা সংগ্রামকেই প্রাধান্য দিয়েছে। আমি তার কাছে ঋণী’।

নির্বাচনে জয়লাভ করে প্রধানমন্ত্রী হলে মাহাথির মোহাম্মদ তাঁর ৯৩তম জন্মদিনের দিকে এগুবেন।কিন্তু এরপর সেই আনোয়ার ইব্রাহিমকে ক্ষমা করে জেল থেকে বের করে তাঁর হাতেই ক্ষমতা তুলে দিবেন মাহাথির মোহাম্মদ। অথচ এই আনোয়ার ইব্রাহিমকেই তিনি কারাগারে ঢুকিয়েছিলেন ২০ বছর আগে। কিন্তু নির্বাচনে জয়লাভের পর মাহাথির মোহাম্মদ কি অবসরে যাবার জন্য সত্যিই তৈরি আছেন? এ বিষয়ের উপর বাজি ধরতে মালয়েশিয়ায় এখন কেউ নেই।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.