রায়পুরায় হাত পা বাঁধা নারীর লাশ উদ্ধার

রায়পুরা (নরসিংদী) সংবাদদাতা

নরসিংদীর রায়পুরায় হাত পা বাধা এক মহিলার লাশ উদ্ধার করেছে রায়পুরা থানা পুলিশ। মঙ্গলবার সকালে উপজেলার পলাশতলী ইউনিয়নের খাকচক গ্রামের কৃষি জমির মাঠ থেকে সুমাইয়া আক্তার (২৫) নামে এক সন্তানের জননীর হাত পা বাধা লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত সুমাইয়া খাকচক গ্রামের মোঃ হানিফ মিয়া ওরফে ভূট্রোর মেয়ে। এ হত্যাকান্ডটি পাল্টাপাল্টি খুনের অভিযোগ উঠেছে।
পুলিশ ও নিহতের পরিবার জানায়, সুমাইয়ার জাহিদ মিয়া নামে ৫ বছরের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। গত প্রায় ৮বছর পূর্বে নরসিংদীর বানিয়াছল এলাকায় ভাড়া থাকা রতন মিয়ার সাথে পারিবারিক সম্মতিক্রমে বিয়ে হয়। তাদের দাম্পত্য জিবনে জাহিদ নামে একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। অভাবের সংসারে নিরুপায় হয়ে সুমাইয়া তার ছেলে জাহিদকে একটি এতিমখানায় দিয়ে দেয় এবং সে নিজে একটি গার্মেন্সে কাজ করতো। এভাবেই চলছিল তার জীবন-যাপন।
মঙ্গলবার সকালে এলাকার লোকজন বাড়ি থেকে প্রায় কোয়াটার কিলোমিটার দূরত্বে বর্ষার পানি জমে থাকা জনৈক মনিরুজ্জামানের জমিতে পেছন দিক থেকে হাত পা বাধা মাথাটুকু কাদার নিচে চাপা দেওয়া অবস্থায় তার লাশ দেখতে পায়। খবর পেয়ে রায়পুরা থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে লাশের সুরত হাল করে ময়না তদন্তের জন্য নরসিংদী মর্গে প্রেরণ করেন।
নিহতের স্বজনদের অভিযোগ, প্রায় ৩ মাস পূর্বে প্রতিবেশী প্রতিপক্ষ খাকচক গ্রামের আকবর আলীর ছেলে মোঃ জাকির হোসেন (২৮) নামে এক যুবক মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে খুন হয়। এরই জের ধরে পরিকল্পিতভাবে প্রতিপক্ষরা এ হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে।
রায়পুরা থানার ওসি মোঃ দেলোয়ার হোসেন বলেন, লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। রিপোর্ট হাতে না পেয়ে সঠিকভাবে কোন কিছু বলা যাচ্ছেনা। তবে তাকে শ্বাষরুদ্ধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.