জীবননগরে নাশকতার অভিযোগে জামায়াতের ছয় নেতা গ্রেফতার

আতিয়ার রহমান, জীবননগর (চুয়াডাঙ্গা)

চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলায় জামায়াতে ইসলামীর ছয় নেতাকে নাশকতা সৃষ্টির পরিকল্পনার অভিযোগে সোমবার সন্ধ্যায় গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশ গ্রেফতারকৃত নেতাদের নিকট থেকে বেশ কিছু ‘জিহাদী’ বই উদ্ধার করা হয়েছে বলে পুলিশের দাবী। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের সকালে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।
জীবননগর থানা সুত্র জানায়,জীবননগর উপজেলার সেনেরহুদা গ্রামের আব্দুল গফুরের ছেলে উপজেলা জামায়াতের রোকন মাও.মহিউদ্দিন(৪৫),মনোহরপুর গ্রামের মৃত সুলতান আহমেদের ছেলে মনোহরপুর ইউনিয়ন জামায়াতের আমীর মাও.আসাবুল হক (৫৫),সেনেরহুদা গ্রামের লুৎফর রহমানের ছেলে জামায়াত কর্মি নুরুল হুদা (৪৫),যাদবপুর গ্রামের হায়দার আলীর ছেলে সীমান্ত ইউনিয়ন জামায়াতের সেক্রেটারি আবু বক্কও সিদ্দিক (৩২),খয়েরহুদা গ্রামের মৃত আবু সিদ্দিকের ছেলে কেডিকে ইউনিয়ন জামায়াতের আমীর জান মোহাম্মদ (৬০) এবং জীবননগর পৌর এলাকার কোর্টপাড়ার কলিমউদ্দিনের ছেলে উপজেলা জামায়াতের অফিস সেক্রেটারি গোলাম রসুুলকে (৪৮) গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা সকলেই গত সোমবার সন্ধ্যায় জীবননগর শহরের সিঙ্গার শো-রুমের পিছনে একটি স্থানে নাশকতা সৃষ্টির পরিকল্পনা করছিলেন। গ্রেফতারের সময় তাদের নিকট থেকে বেশ কিছু জিহাদী বই উদ্ধার করা হয়েছে।
চুয়াডাঙ্গা জেলা জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি অ্যাড.রহুল আমিন বলেন,যাদেরকে গ্রেফতার করা হয়েছে তাদের মধ্যে চারজন মসজিদের খতিব,একজন প্রভাষকও রয়েছেন। তাদের দ্বারা কি ভাবে নাসকতা সম্ভব? তারা সকলেই ঘটনার সময় দলীয় অফিসে রাজনৈতিক আলোচনা শেষে পার্টি অফিসের সামনে থেকে প্রকাশ্যে দিনের বেলায় গ্রেফতার করা হয়েছে। দিনের বেলা আসলে কিসের নাসকতার পরিকল্পনা করা হচ্ছিল তা আমাদের বুঝে আসছে না। তাদের নিকট দলীয় কর্মসুচীর কিছু খাতাপত্র ছিল,জিহাদী বই উদ্ধারের ঘটনা সঠিক নয়। রাজনৈতিক ভাবে হয়রানি করতেই তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ মাহমুদুর রহমান বলেন,আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে জামায়াতে ইসলামীর নেতাকর্মিরা সংগঠিত হচ্ছে এবং তারা নাশকতা সৃষ্টি করে দেশের অভ্যন্তরে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির পাঁয়তারা করে আসছে। আমরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার সন্ধ্যায় শহরের সিঙ্গার শো-রুমের পিছনে একটি ঘরের ভিতর থেকে জামায়াতের ওই ছয় নেতাকে গ্রেফতার করি। এ সময় তাদের নিকট থেকে বেশ কিছু জিহাদী বইও উদ্ধার করি। এ ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.