ইসরাইলের প্রস্তুতি সত্ত্বেও পূর্ব জেরুসালেম হবে ফিলিস্তিনের রাজধানী: এরদোগান
ইসরাইলের প্রস্তুতি সত্ত্বেও পূর্ব জেরুসালেম হবে ফিলিস্তিনের রাজধানী: এরদোগান

ইসরাইলের প্রস্তুতি সত্ত্বেও পূর্ব জেরুসালেম হবে ফিলিস্তিনের রাজধানী: এরদোগান

নয়া দিগন্ত অনলাইন

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান বলেছেন- তেলআবিব থেকে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস সরিয়ে জেরুসালেমে নেয়ার পদক্ষেপের পরিণতি হবে ভয়াবহ।জেরুসালেম ইসরাইলের নয়, বরং এটি ফিলিস্তিনের রাজধানী হবে বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।

সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডনে বিবিসি উর্দুকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এরদোগান এসব কথা বলেন। এ সময় ইসরাইল মধ্যপ্রাচ্যকে যুদ্ধের দিকে ঠেলে দিচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

সাক্ষাৎকারে এরদোগান বলেন, ইসরাইলি শাসকগোষ্ঠী সিরিয়ায় অপ্রয়োজনীয় আগ্রাসন চালাচ্ছে। মধ্যপ্রাচ্যকে যুদ্ধের দিকে টেনে নিয়ে যাচ্ছে তেলআবিব।

তুর্কি গণমাধ্যম আনাদলু এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রোববার লন্ডনে টার্কেন ফাউন্ডেশন আয়োজিত ডিনারে অংশ নিয়ে প্রেসিডেন্ট এরদোগান বলেন, জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী করার জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া সত্ত্বেও পূর্ব জেরুসালেম হবে ফিলিস্তিনের রাজধানী।

 

সব ধরনের পারমাণবিক অস্ত্র নির্মাণের বিরোধিতায় তুরস্ক

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়্যেপ এরদোগানের মুখপাত্র ইব্রাহীম কালিন টুইটারের এক পোস্টে বলেছেন, ইরানের পরমাণু চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্র নিজেদের একতরফাভাবে প্রত্যাখ্যান করায় নতুন আঞ্চলিক অস্থিতিশীলতা ও সংঘাতের পরিস্থিতি তৈরি হবে। অন্যান্য দেশের সঙ্গে ইরানের এই বহুপক্ষীয় চুক্তি অব্যাহত থাকবে। তুরস্ক সবসময় সব ধরনের পারমাণবিক অস্ত্র নির্মাণের বিরোধিতা করে যাবে।

এদিকে আন্তর্জাতিক পরমাণু চুক্তি ও জাতিসঙ্ঘের প্রস্তাব লঙ্ঘনের অভিযোগে ইরানের বিরুদ্ধে কঠোরতম অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবেন বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এতে ইউরোপে মার্কিন মিত্রদের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের চূড়ান্ত ভাঙন দেখা দিতে পারে। শুধু তাই নয়, উপসাগরীয় অঞ্চলে নতুন করে সঙ্কট দেখা দেবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

এক বিবৃতিতে হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, ট্রাম্প বলেছেন- ২০১৫ সালে অন্য বৃহৎ শক্তিগুলোর সঙ্গে মিলে করা চুক্তি থেকে তারা বেরিয়ে এসেছেন। ইরানকে পারমাণবিক অস্ত্র তৈরিতে কোনো দেশ সহায়তা করলে তাদের ওপরও কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে।

দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার আমলে ২০১৫ সালে জয়েন্ট কমপ্রেহেনশিভ প্ল্যান অব অ্যাকশন (জেসিপিওএ) নামে এ চুক্তিটি সই হয়েছিল। এতে ইরানের বিপরীতে জাতিসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের ৫ স্থায়ী সদস্য যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, চীন, রাশিয়া ও জার্মানি ছিল।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.