যুক্তরাষ্ট্র-ইসরাইলকে জেরুসালেম ছাড়তেই হবে : তুরস্ক
যুক্তরাষ্ট্র-ইসরাইলকে জেরুসালেম ছাড়তেই হবে : তুরস্ক

যুক্তরাষ্ট্র-ইসরাইলকে জেরুসালেম ছাড়তেই হবে : তুরস্ক

নয়া দিগন্ত অনলাইন

তুরস্কের ডেপুটি প্রধানমন্ত্রী ও সরকারের মুখপাত্র বেকির বজদাগ বলেছেন- জেরুসালেম ফিলিস্তিনিদের সম্পত্তি, তাই যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইল অবশ্যই ফিলিস্তিন ছাড়তে হবে বলে মন্তব্য করেছে তুরস্ক।

সোমবার জেরুসালেমে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসের কার্যক্রম শুরুর পর তিনি বলেন, জেরুসালেম অবশ্যই পূর্ণ স্বাধীনতা পাবে। এক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্র বা ইসরাইল যেসব পদক্ষেপ নিচ্ছে তা একেবারে কিছুই না। বরং গাজায় গণহত্যার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের উসকানিই দায়ী।

এদিকে সোমবার সকাল থেকে ফিলিস্তিনিরা গাজায় বিক্ষোভ করতে থাকলে ইসরাইলি সেনাবাহিনী নির্বিচারে তাদের ওপর গুলি চালায়। এতে এ পর্যন্ত ৫২ ফিলিস্তিনি নিহত ও প্রায় ২০০০ জন আহত হয়েছে।

 

৩০ লাখ উদ্বাস্তুকে তুরস্কে আশ্রয় দিয়েছেন এরদোগান


বসনিয়ার নেতা বাকির ইজেবেগোভিক বলেছেন, তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান মুসলিমদের জন্য বিজ্ঞ পরামর্শদাতা। এই কারণটি এরদোগানকে পশ্চিমাদের কাছে অজনপ্রিয় করেছে। আমাদের বন্ধু এরদোগান পশ্চিমাদের কাছে খুব বেশি জনপ্রিয় নয়, কারণ তিনি মুসলিমদের জন্য দীর্ঘ প্রতীক্ষিত একজন মহান নেতা।

তিনি আরো বলেন, তারা (পশ্চিমারা) আদিবাসী ও অজ্ঞ মুসলিম কর্তৃক বাধাপ্রাপ্ত হননি। কিন্তু যখন অর্থনৈতিক উন্নয়ন ঘটে, তখন তারা একজন মানুষের দ্বারা বাধাপ্রাপ্ত হয়, যিনি তিন মিলিয়ন উদ্বাস্তুর জন্য নিজের দরজা উন্মুক্ত করেছেন, যিনি বিশ্বের সবচেয়ে বড় বিমানবন্দর নির্মাণ করেছেন, সন্ত্রাসীদের মোকাবেলা করেছেন এবং তার দেশের সীমান্তে যুদ্ধ করেছেন।

আগামী ২৪ জুন তুরস্কে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। আর এ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন জাস্টিস অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টির (একে পার্টি) হয়ে ফের লড়বেন বর্তমান প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান। নির্বাচনে বিভিন্ন দলের অন্তত পাঁচজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন বলে জানা গেছে। রোববার সকালে কমিশন এক গেজেটে চূড়ান্ত প্রার্থীদের এ তালিকা প্রকাশ করে প্রার্থীরা হচ্ছেন-

১. দগু পেরিনসেক: দগু পেরিনসেক পেশায় একজন আইনজীবী। তিনি লেফট-উইং ন্যাশনালিস্ট প্যাট্রিয়টিক পার্টির চেয়ারম্যান।

২. মেরাল আকসেনার: মেরাল আকসেনার ২০১৬ সালে ভাইস স্পিকার এবং ইন্টেরিয়র মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্বপালন করেছেন। মেরাল ন্যাশনালিস্ট মুভমেন্ট পার্টির একটি গ্রুপের নেতৃত্ব দিচ্ছেন তিনি।

৩. মুহাররেম ইনসে: মুহাররেম ইনসে রিপাবলিকান পিপলস পার্টি থেকে ২০০২ সাল থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত একাধারে চারবার নির্বাচিত সংসদ সদস্য। এর মধ্যে দুবার তিনি পার্লামেন্টারি গ্রুপের ডেপুটি চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্বপালন করেছেন।

৪. সেলাহাতিন দেমিরতাস: সেলাহাতিন দেমিরতাস জাজা কুরদিস গোত্রের নেতা। তিনি ২০০৭ সালে তুরস্কের সংসদ সদস্য ছিলেন। দেমিরতাস দেশটির লেফ্ট উইং প্রো-কুর্দিস পিপলস পার্টির কো-লিডার হিসেবে দায়িত্বপালন করেছেন।

৫. তেমেল কারামোল্লগগু: তেমেল কারামোল্লগগু তুরস্কের ফেসিলিটি পার্টির নেতা হিসেবে ২০১৬ সাল থেকে দায়িত্বপালন করছেন।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.