ময়মনসিংহে সাংবাদিকের ওপর হামলা : ১৮ মে সমাবেশ

ময়মনসিংহ অফিস

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধের খবর সংগ্রহ করার সময় এটিএন বাংলার সাংবাদিক শাহ আলম উজ্জ্বল ও যমুনা টিভির ক্যামেরাপারসন দেলোয়ার হোসেনের ওপর জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের হামলাকারি শিক্ষার্থীদের গ্রেফতার ও বিচার দাবিতে ময়মনসিংহে প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধন কর্মসুচী পালিত হয়েছে। আগামী ১৮ মে বৃহত্তর ময়মনসিংহের সাংবাদিকদের নিয়ে ময়মনসিংহ প্রতিবাদ সমাবেশ করার ঘোষণা দেয়া হয়।
ময়মনসিংহ প্রেসক্লাব, সাংবাদিক ইউনিয়ন, সিটি প্রেসক্লাব, রিপোর্টার্স ইউনিটি, টেলিভিশন জার্ণালিষ্ট অ্যাসোসিয়েশন, সাংবাদিক বহুমুখি সমবায় সমিতি ও ইয়থ জার্নালিষ্ট ফোরাম যৌথভাবে ওই কর্মসুচীর আয়োজন করে।
বিকেলে ময়মনসিংহ সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আতাউল করিমের সভাপতিত্বে প্রেসক্লাব মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় জেলা প্রশাসক ড. সুভাষ চন্দ্র বিশ্বাস ও পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম উপস্থিত হয়ে সাংবাদিকদের প্রতি সমবেদনা জানান। তারা দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন।
প্রতিবাদ সভা ও দেড় ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসুচীতে আরো বক্তব্য রাখেন ময়মনসিংহ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শেখ মহিউদ্দিন আহমেদ, ময়মনসিংহ সিটি প্রেসক্লাবের সভাপতি আইয়ুব আলী, ময়মনসিংহ রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি মোশাররফ হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, সাংবাদিক বহুমুখি সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক মীর গোলাম মোস্তফা, টেলিভিশন জার্নালিষ্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি অমিত রায় ও সাধারণ সম্পাদক আবু সালেহ মো. মুসা, বিএফইউজে’র নেতা রবীন্দ্রনাথ পাল, এমইউজে’র সাবেক সভাপতি এ জেড এম ইমামউদ্দিন মুক্তা, প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক বাবুল হোসেন, ইয়থ জার্নালিষ্ট ফোরামের সভাপতি রাকিবুল হাসান রুবেল, যমুনাটিভির সাংবাদিক হোসাইন শাহিদ, আলোকচিত্র শিল্পী সংসদের সাধারণ সম্পাদক এএইচএম মোতালেব প্রমুখ।
কর্মসুচীর প্রতি একাত্মতা প্রকাশ করেন জেলা মোটর মালিক সমিতির সভাপতি মোমতাজ উদ্দিন, কারিগরি শিক্ষা কল্যাণ সমিতির সভাপতি নাজমুল ইসলাম, বাংলাদেশ সংবাদপত্র এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক আবু বকর সিদ্দিক ও বিভাগীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম। বক্তারা হামলাকারিরা গ্রেফতার না হওয়া পর্যন্ত কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ধরণের খবর বর্জন ও আন্দোলন অব্যাহত রাখার ঘোষনা দেয়া হয়।
ময়মনসিংহের ত্রিশালে অবস্থিত জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সাথে রোববার পরিবহন শ্রমিকদের সংঘর্ষের ঘটনায় সোমবার (১৪ মে) বেলা ১১টার দিকে সদর উপজেলার বেলতলীতে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে শিক্ষার্থীরা। মহাসড়কে গাছের গুড়ি ফেলে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে বেলা একটা পর্যন্ত অবরোধ করে রাখে। এসময় শিক্ষার্থীরা প্রকাশ্যে পিস্তল, রামদা, লাঠিসোটা নিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর চালায়। এক পর্যায়ে শিক্ষার্থীরা প্রায় দুই কিলোমিটার এলাকাজুড়ে ক্ষেতের আধাপাকা ধান ও অন্যান্য ফসলের ক্ষতিসাধান করে। এসময় আশাপাশের ঘরবাড়ি ও দোকানপাঠ ভাঙচুর করা হয়। এ সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে এটিএন বাংলা ও এটিএন নিউজের প্রতিনিধি শাহ আলম উজ্জ্বল এবং যমুনা টিভির ক্যামেরাম্যান দেলোয়ার হোসেনকে বেধড়ক মারধর করে রক্তাক্ত জখম করে ও তাদের ক্যামেরা ছিনিয়ে নেয়।
উল্লেখ্য, রোববার বিকেলে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নিয়ে কয়েকটি গাড়ি শহরে আসার পথে বেলতলীতে বালুভর্তি একটি ট্রাককে ধাক্কা দেয়। এরপর শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা গাড়ি থেকে নেমে ট্রাক চালককে মারধর করে। স্থানীয় এলাকাবাসি এঘটনার প্রতিবাদ জানালে শিক্ষার্থীরা মহসড়ক অবরোধ করে যানবাহন চালাচল বন্ধ করে দেয় এবং প্রায় অর্ধশত যানবাহন ভাঙচুর করে। হামলার ঘটনায় শতাধিক যাত্রী আহত হন। এব্যাপারে প্রিন্ট ও ইলেস্ট্রনিক মিডিয়ায় খবর প্রচারিত হলে শিক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ হয়। এর জেরেই সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে।

 

 

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.