১৩ বছরের বর, ২৩ বছরের কনে
১৩ বছরের বর, ২৩ বছরের কনে

১৩ বছরের বর, ২৩ বছরের কনে

এবিপি আনন্দ

বাবা মদ্যপ। মা অসুস্থ। তিনি মারা গেল চার সন্তানকে কে দেখবে, এই চিন্তায় ১৩ বছরের ছেলের সঙ্গে ২৩ বছরের যুবতীর বিয়ে দিলেন। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনা ঘটেছে ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশের কুর্নুলে।

পুলিশ জানিয়েছে, গত ২৭ এপ্রিল অত্যন্ত গোপনে এই বিয়ে দেওয়া হয়। জানাজানি হওয়ার পরেই পাত্র ও তার পরিবারের লোকজন পালিয়ে গিয়েছেন।

পুলিশের সন্দেহ, তারা কর্ণাটকে পালিয়েছে। পাত্রীর পরিবারের লোকজনকেও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। যুগ্ম কালেক্টর সোমবারের মধ্যে তাদের খুঁজে বার করার নির্দেশ দিয়েছেন।

 গ্রামবাসীরা জানিয়েছেন, তারা এই বিয়ের ব্যাপারে কিছুই জানতেন না। কয়েকদিন পরে খবর পান। কয়েকজন গ্রামবাসী আবার দাবি করেছেন, এটি প্রেমের বিয়ে। ছেলেটি কয়েক বছর আগেই পড়াশোনা ছেড়ে দেয়। সে শ্রমিকের কাজ করত।

এ বিষয়ে কুর্নুলের শিশুকল্যাণ বিভাগের আধিকারিক বিজয়া বলেছেন, আমরা গতকাল গ্রামে তল্লাশি চালাই। তবে সংশ্লিষ্ট দুই পরিবারের কারও খোঁজ মেলেনি। আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে আশঙ্কা করে তারা পালিয়েছে।

সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, পাত্রীর বয়স ২৩ বছর। তবে আমাদের মনে হচ্ছে তাঁর বয়স আরও বেশি। তিনি অন্তত ৩০ বছর বা তার বেশি বয়সী। এটি প্রেমের বিয়ে হোক, ইচ্ছায় বা অনিচ্ছায় হোক না কেন, ছেলেটির বয়স ২১ বছর না হওয়ায় বেআইনি কাজ হয়েছে।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.