নির্বাচন নিয়ে এরশাদের সমীকরণ
নির্বাচন নিয়ে এরশাদের সমীকরণ

নির্বাচন নিয়ে এরশাদের সমীকরণ

সরকার মাজহারুল মান্নান রংপুর অফিস

সাবেক প্রেসিডেন্ট জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, যদি আওয়ামী লীগ আগামী জাতীয় নির্বাচনে পরাজিত হয়, তাহলে কি হতে পারে, আমি সেটা বলতে চাই না কি হতে পারে। অতএব নির্বাচনে জয়ী তাদের হতেই হবে। আমাকে সাথে নিয়ে হোক। অথবা যেভাবেই হোক জয়ী হতেই হবে। আওয়ামী লীগকে সহযোগিতা করার ব্যপারে এরশাদ যুক্তি দিয়ে বলেন, আওয়ামী লীগ বেটার দ্যান বিএনপি।

রোববার দুপুরে রংপুর সার্কিট হাউজে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তিনি এই মন্তব্য করেন। এসময় তার সাথে ছিলেন এরশাদের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য ও সুন্দরগঞ্জের এমপি ব্যারিষ্টার পাটোয়ারী, রংপুর জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক এসএম ফখর-উজ-জামান জাহাঙ্গীর, মহানগর সেক্রেটারী এসএম ইয়াসির, জেলা কমিটির যুগ্ম সম্পাদক ও নির্বাহী কমিটির সদস্য হাজী আব্দুর রাজ্জাক, শাফিউল ইসলাম শাফী প্রমুখ।

আওয়ামীলীগ প্রসঙ্গে এসময় এরশাদ বলেন, আওয়ামী লীগ জনগণের আস্থা অর্জন করতে পারেননি। অনেক ভালো কাজ করেছেন,অনেক উন্নয়নমুলক কাজ করেছেন। আকাশে স্যাটেলাইট গেছে। সমুদ্র জয় করেছেন। আকাশ জয় করেছেন। কিন্তু মানুষের হৃদয় জয় করতে পারেননি।

দুই সিটি নির্বাচন প্রসঙ্গে এরশাদ বলেন, দুই সিটি নির্বাচন নিয়ে মানুষের মনে সন্দেহ তো আছেই। আওয়ামীলীগ কোনোভাবেই পরাজয় বরণ করতে চায় না। গাজীপুরে বিএনপির প্রার্থী ও সমর্থক কর্মীদের প্রচারণা চালাতে দেয়া হচ্ছে না।

দেশের সার্বিক পরিস্থিতি সম্পর্কে এরশাদ বলেন, দেশ এখন ঘরে বাইরে ধর্ষণ, কাঁধে পিস্তল। কোনো বিচার নেই। এখন বাংলাদেশ বাল্য বিয়েতে প্রথম হয়েছে। মেয়েদের ধর্ষন করে ছবি তুলে নেটে ছেড়ে দেয়া হচ্ছে। গুম খুনের বিচার নেই। এছাড়াও এরশাদ বলেন, আমরা নির্বাচনের প্রস্তুতি গ্রহণ করছি। ৩০০ আসনে প্রার্থী দেব। প্রার্থী সংগ্রহ করছি। আমরা নির্বাচন করব।

সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তিনি সম্প্রতি শূন্য হওয়া কুড়িগ্রামের উলিপুর আসনে জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে ডা. আক্কাস আলী সরকারের নাম ঘোষণা করে বলেন, তিনি দানবীর মানুষ। ভালো মানুষ। ইতোমধ্যেই তিনি সেখানে নির্বাচনী ক্যাম্প পরিচালনা শুরু করেছেন।

সাহস থাকলে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দেন
মোঃ জাকির হোসেন, সৈয়দপুর (নীলফামারী)

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ বলেছেন, ‘আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের সাথে কোনো সম্পর্ক নেই। ভবিষ্যতের কথা আল্লাহ ছাড়া কেউ বলতে পারে না। তবে আমি বলতে পারি জাতীয় পার্টি মহাজোটে নেই আর থাকবেও না, তবে বিরোধী দলে আছে।’
রোববার দুপুরের দিকে রংপুর যাওয়ার পথে সৈয়দপুরের বাংলা হাইস্কুল মাঠে জাতীয় যুব সংহতির সৈয়দপুর রাজনৈতিক জেলা শাখার দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন এরশাদ।

প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত এরশাদ আরো বলেন, ‘জাতীয় পার্টি আগের তুলনায় অনেক সুসগঠিত ও শক্তিশালী। আগামী জাতীয় নির্বাচনে একক ভাবে ৩০০ আসনে নির্বাচন করতে প্রস্তুত আছে। দেশের মানুষ এখন আওয়ামী লীগের উপড় বিরক্ত। এই অত্যাচারী সরকারের ভয়ে মানুষ আজ স্বাধীনভাবে মনখুলে সরকারে বিরুদ্ধে কেউ কথা বলতে পারেনা। কেউ সাহস করে কথা বলার চেষ্টা করলে তাকে তুলে নিয়ে গুম, খুন করছে।’

নিরদলীয় ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে ভয় পায় আওয়ামী লীগ। তাই তারা ক্ষমতাই থেকে নির্বাচন দিতে চায়। তাদের অধীনে কখনো কোন নির্বাচন সুষ্ঠ্য ও নিরপেক্ষভাবে অনুষ্ঠিত হতে পারে না। সাহস থাকলে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দেন। দেখবেন আওয়ামী লীগ ও বিএনপি ৫০টি আসনের বেশি পাবে না। দেশের মানুষ জাতীয় পার্টিকে ভালবাসে তাই তারা আগামী নির্বাচনে জাতীয় পার্টিকে জয়যুক্ত করে দেশ পরিচালনার দায়িত্ব দিতে প্রস্তুত।’

এসময় দলের ভাইস চেয়ারম্যান ও নীলফামারী-৪ আসনের সংসদ সদস্য শওকত আলী চৌধুরী, জাতীয় যুব সংহতি কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপিত আলমগীর সিকদার লোটন, সাধারণ সম্পাদক ফাকরুল আলমগীর, জেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব এ.কে এম সাজ্জাদ পারভেজসহ স্থানীয় জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

রংপুরে নার্সেস দিবস পালন নার্সরা সমাজের সবচেয়ে টাচি সেবামূলক কাজ করেন : মেয়র

রংপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বলেছেন, নার্সরা সমাজের সবচেয়ে টাচি বিষয়ে সেবা দিয়ে থাকেন। তারা মানবসেবার অনন্য উদাহরণ। তাদের নিরাপত্তা ও অধিকার নিশ্চিত করতে হবে সম্মিলিতভাবে।
আন্তর্জাতিক নার্সেস দিবস উপলক্ষে গতকাল এক আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।
‘স্বাস্থ্যসেবা মানুষের মানবিক অধিকার’ এ প্রতিপাদ্য সামনে রেখে রংপুর নার্সিং কলেজের হলরুমে অনুষ্ঠিত আলোচনায় সভাপতিত্ব করেন রংপুর নার্সিং কলেজের অধ্যক্ষ খালেদা বানু। বিশেষ অতিথি ছিলেন রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা: অজয় কুমার রায়, রংপুর মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা: নুর ইসলাম, উপসেবা তত্ত্বাবধায়ক (ভারপ্রাপ্ত) মোসলেমা খাতুন ও রংপুর সিটি করপোরেশনের ১৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাহমুদুর রহমান টিটু।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.