আকাশী সাদা ডোরা কাটা জার্সি গায়ে লিওনেল মেসি
আকাশী সাদা ডোরা কাটা জার্সি গায়ে লিওনেল মেসি

মেসিদের আকাশী সাদা ডোরা কাটা জার্সি কিভাবে এলো?

নয়া দিগন্ত অনলাইন

দিয়োগো ম্যারাডোনা থেকে লিওনেল মেসি। আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে জড়িয়ে মাঠ মাতিয়েছেন এই ফুটবল রাজপুত্ররা। দুই ধরণের জার্সি গায়ে মাঠে নামে আর্জেন্টিনা। ঘরের মাঠে হালকা নীল উলম্ব রেখাযুক্ত সাদা জার্সি আর কালো হাফপ্যান্ট। পায়ে সাদা/কালো মোজা। আর বাইরে গাঢ় নীল জার্সি, সাদা হাফপ্যান্ট এবং গাঢ় নীল মোজা। তবে একেবারে শুরুর দিকে কিন্তু এমনটা ছিল না আজেন্টিনার জার্সি।

 আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে দিয়েগো ম্যারাডোনা

 

১৯০১ সালে আর্জেন্টিনার হোম জার্সি ছিল একেবারে সাদামাটা। গোল গলার ধবধবে সাদা জার্সি আর প্যান্ট। কালো মোজা। এরপর ১৯১১ থেকে ৭৪ সাল পর্যন্ত তারা নীল সাদা ডোরা কাটা জার্সি পরে মাঠে নামলো। তবে প্যান্ট কালোই ছিল। ১৯৭৭ সালে এসে জার্সির রঙ একটু ফিকে হলো। নীল থেকে গাড় আকাশী। ৯৪' সাল পর্যন্ত প্রায় এমনই ছিল জার্সি। শুধু জার্সিতে যুক্ত হলো কলার। সেটি সাদাই রইলো। এরপরের বিশ্বকাপে জার্সির কলার কালো হলো। আর ডোরা কাটা আকাশী রঙটা আরেকটু হালকা হলো- পরিবর্তন এইটুকুই।

আর্জেন্টিনার হোম জার্সির পরিবর্তন

 

জার্সিতে বড় ধরনের পরিবর্তন এলো ৯৯' সালে। জার্সির রঙ গাড় হলো আর হাতায় ডোরা কাটার পরিবর্তে পুরোটাই এক রঙ। আর প্যান্ট হলো গাড় নীল। তবে এই পরিবর্তন বেশিদিন টিকেনি। ২০০২ সালেই আবার জার্সির পরিবর্তন হয়। রঙটা আবারো হালকা আকাশী করা হয়। আর কাধে কালো স্টেপ। কালো প্যান্ট। এরপর ২০০৬ সালে রঙে একটু পরিবর্তন আসে।

২০১০ সালের পরিবর্তনটা চোখে লাগার মতো ছিল। সাদা-আকাশী ডোরা কাটা জার্সিটায় আকাশী রঙের আধিক্য দেখা যায়। পরের বছর সেটা আরো বাড়ে।

২০০৮ সালের জার্সির সাথে অনেকটা মিলে যায়

 

কিন্তু ২০১৪'র বিশ্বকাপে আবারো সাদা-আকাশীর সমতা দেখা যায়। ২০০৮ সালের জার্সির সাথে অনেকটা মিলে যায়। শুধু হাতার দিকটায় একটু ভিন্নতা। হাতা পুরাটাই সাদা। কাধের দিকটা আর হাতার নিচে কালো। দীর্ঘ সময় পর কালো প্যান্টের পরিবর্তে পরা হয় সাদা। তবে পরের বছরই জার্সিতে পরিবর্তন আনা হয়। বড়ি দিকটায় এক থাকলেও হাতা প্রায় পুরোটাই হালকা আকাশী আর কাধের দিকটায় সাদা রাখা হয়।

আর্জেন্টিনার অ্যাওয়ে জার্সির পরিবর্তন

 

আর্জেন্টিনার অ্যাওয়ে জার্সিটা শুরুর দিকে ছিল পুরো আকাশী। সেটা ১৯১৯ সালের। এরপর ১৯৫৮ সালে মূল দলের জার্সি হয়ে যায় হলুদ। দীর্ঘ সময় পর সেটি পরিবর্তন করা হয় ৭৮' সালে। গাড় নীল করা হয়। এরপর জার্সির স্ট্রাইপে পরিবর্তন হলেও রঙে কোনো পরিবর্তন আসেনি।

২০০৬ সালে ভিন্নতা আনা হয়। গলার কাছের দিকটা সাদা স্ট্রাইপ আর বডির দুইপাশে সাদা আর প্যান্টও সাদা।

আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে লিওনেল মেসি

 

২০১০ সালে জার্সি পুরো নীল হয়ে যায়। যেটা ২০১৪ পর্যন্ত ছিল। তবে ডিজাইনে পরিবর্তন এসেছে।

এবার রাশিয়া বিশ্বকাপে স্বাভাবিকভাবেই জার্সিতে পরিবর্তন আসবে মেসিদের। তবে তা দেখতে অপেক্ষা করতে হবে আরো কিছু দিন।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.