নেইমার
নেইমার

আবারো রেকর্ড গড়ে রিয়ালে যোগ দিচ্ছেন নেইমার!

নয়া দিগন্ত অনলাইন

আগামী ক্লাব ফুটবল মৌসুমে ব্রাজিলের তারকা খেলোয়াড় নেইমারকে স্প্যানিশ দল রিয়াল মাদ্রিদে দেখতে চান তারই বাবা নেইমার সান্তোস জুনিয়র। এমনই খবর প্রকাশ করেছে ফ্রান্সের বেশকয়েকটি সংবাদমাধ্যম। ওই সব খবরে নেইমারের বাবা বলেন, ‘নেইমারকে আগামী মৌসুমে রিয়াল মাদ্রিদে দেখতে চাই আমি। এজন্য সব প্রক্রিয়াও শুরু করে দিয়েছি আমি।’

ব্রাজিলিয়ান ক্লাব সান্তোস ছেড়ে ২০১৩-১৪ মৌসুমে স্প্যানিশ দল বার্সেলোনায় যোগ দেন নেইমার। সেখানে চার মৌসুম কাটিয়ে দেন তিনি। বার্সার জার্সিতে ১২৩ ম্যাচে ৬৮ গোল করেন ব্রাজিল জাতীয় দলের অধিনায়ক।

তবে ২০১৭ মৌসুম শুরুর আগে রেকর্ড ২২২ মিলিয়ন ইউরোতে বার্সেলোনা ছেড়ে ফ্রান্সের ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেই’তে (পিএসজি) যোগ দেন নেইমার। নতুন ক্লাবে শুরুটা ভালোই ছিল তার। কিন্তু সময় গড়ানোর সাথে সাথে ক্লাবের সাথে ঝামেলা বাড়তে থাকে নেইমারের।

পিএসজি’র সাথে ঝামেলার ব্যাপারে কখনই স্পষ্ট কিছু বলেননি নেইমার। কিন্তু বিভিন্ন সূত্র থেকে সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ পেয়েছিল নেইমার ও ক্লাবের মধ্যকার ঝামেলা। সেই ঝামেলার পরিপ্রেক্ষিতেই নেইমারকে আগামী মৌসুমে নতুন ক্লাবে দেখতে চান তার বাবা।

তিনি বলেন, ‘পিএসজি’র সাথে বেশ আগ থেকেই কিছু ঝামেলা হয়েছে নেইমারের। তবে এসব কখনই বড় করে দেখেনি নেইমার। আগামী মৌসুমে নেইমারকে অন্য ক্লাবে দেখতে চাই আমি। নেইমারের দল বদলের জন্য ইতোমধ্যে পিনি জাহাভির সাথে আমার কথা হয়েছে। তাকে বলেছি, এমন কিছু করতে যাতে পরের মৌসুমে নেইমার ইউরোপের নতুন কোনো ক্লাবে অনায়াসে যোগ দিতে পারে।’

জাহাভি হলেন ইউরোপের সবচেয়ে বড় ও জনপ্রিয় এজেন্টদের একজন। বড় বড় তারকাদের ক্লাব পরিবর্তনে সহায়তা করেন জাহাভি। তাই আগামী মৌসুমে যদি নেইমার নতুন কোন ক্লাবে যোগ দেন, বিকি-কিনির ইতিহাসে আবারো নতুন একটি রেকর্ড বিশ্ব ফুটবল দেখবে এটি বলার অপেক্ষা রাখে না।

 

নেইমার ছাড়াও বিশ্বকাপে অপ্রতিরোধ্য ব্রাজিল

ফুটবল বিশ্বকাপে ব্রাজিল সবসময়ই ফেভারিট৷ কিন্তু গতবার নিজ দেশে অমন শোচনীয় হারের লজ্জা কাটাতে এবার বিশ্বকাপ জিততে মরিয়া থাকবে সেলেকাওরা৷ বর্তমান ব্রাজিল দলের সেই সামর্থ্যও আছে৷ তারাই এবার প্রথম দেশ হিসেবে রাশিয়া বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ পেয়েছে৷ যদিও বাছাইপর্বের শুরুটা ভালো ছিল না৷ ফলে ছয় ম্যাচ পর কোচ পরিবর্তন করতে হয়েছিল ব্রাজিলকে৷ ডুঙ্গার জায়গায় নিয়ে আসা হয়েছিল আদেনোর লিওনার্দো বাকিকে, যাকে তিতে নামেই সারা বিশ্ব চেনে৷ তিনি ব্রাজিলের দায়িত্ব নেয়ার পর সেলেকাওরা প্রায় একরকম অপরাজেয় হয়ে উঠে৷

কোচ হিসেবে তিতে বায়ার্ন মিউনিখ ও রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক কোচ কার্লো আনসেলত্তির অনুসারী৷ আনসেলত্তির ‘ব্যালেন্সড' দল গড়ার বিষয়টি তিতের পছন্দ৷ আর বর্তমান ব্রাজিল দলে তারকা খেলোয়াড়ের অভাব না থাকায় সব পজিশনেই ভালমানের ফুটবলার নির্বাচন করতে পারছেন তিনি৷

এবার পজিশন অনুযায়ী ব্রাজিল দলের অবস্থা দেখে নিন :

গোলরক্ষক

তিতে কোচের দায়িত্ব নেয়ার পর সেলেকাওদের গোল সামলানোর দায়িত্ব দিয়েছিলেন সেইসময়কার অপরিচিত গোলরক্ষক আলিসন বেকারকে৷ এখন ২৫ বছর বয়সী বেকারের অন্যতম গুনমুগ্ধ সমর্থকদের মধ্যে একজন হলেন ইটালি ও ইয়ুভেন্তুসের বিখ্যাত গোলরক্ষক বুফন৷ হাত ও পায়ে সমান দক্ষতার কারণে ম্যানচেস্টার সিটির হয়ে খেলা এডারসন এখন দ্বিতীয় গোলরক্ষক হয়ে গেছেন৷

রক্ষণভাগ

ল্যাটিন অ্যামেরিকার বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের শেষ ১২টি ম্যাচে কোচ ছিলেন তিতে৷ এই সময় তার দল গোল খেয়েছে মাত্র তিনটি৷ এর বড় কারণ শক্তিশালী রক্ষণভাগ৷ এখন পর্যন্ত পিএসজির দানি আলভেস ও মার্কিনিয়ো এবং ইন্টার মিলানের মিরান্ডা ও রেয়াল মাদ্রিদের মার্সেলোকে নিয়ে ডিফেন্স গড়তে পছন্দ করেছেন তিতে৷ এর বাইরে বেঞ্চে যারা বসে থাকবেন তারাও খ্যাতিতে কম যান না৷ পিএসজির থিয়াগো সিলভা, ইয়ুভেন্তুসের আলেক্স সান্দ্রো, ম্যান সিটির দানিলো- ফুটবল সমর্থক মাত্রই এদের ক্ষমতা সম্পর্কে জানেন৷

মধ্যমাঠ

চীনের একটি ক্লাবের হয়ে খেলা রেনাতো আউগুস্তর জায়গায় প্লেমেকার হিসেবে আবির্ভূত হতে পারেন বার্সেলোনার ফিলিপ কুতিনহো৷ আরো আছেন চেলসির উইলিয়ান, ম্যান সিটির ফার্নান্দিনিয়ো, বার্সার পাউলিনিয়ো ও রেয়াল মাদ্রিদের কাসেমিরো৷

ফরোয়ার্ড

বর্তমান ব্রাজিল দলের সবচেয়ে বড় তারকা নিশ্চয় নেইমার৷ কিন্তু গত মার্চ মাসে আহত হওয়ার পর থেকে খেলার বাইরে আছেন তিনি৷ শুক্রবার তিনি তার ক্লাব পিএসজিতে ফিরেছেন৷ সেখানকার চিকিৎসকরা আবার তাকে পরীক্ষা করে দেখবেন৷ তবে বিশ্বকাপ শুরুর আগে হয়ত নেইমারের আর প্রতিযোগিতামূলক খেলা হবে না৷ সেক্ষেত্রে একেবারে বিশ্বকাপেই মাঠে নামতে হবে তাকে৷ সেইসময় কোচ তিতে যদি মনে করেন নেইমার পুরো ফিট নন তাতেও সমস্যা হবে না৷ কারণ তিতের কাছে অপশন হিসেবে আছে ম্যান সিটির গাব্রিয়েল জেসুস, যিনি বাছাইপর্বে ব্রাজিলের সর্বোচ্চ স্কোরার ছিলেন৷ এছাড়া আছেন চেলসির উইলিয়ান, লিভারপুলের ফির্মিনো ও ইয়ুভেন্তুসের কস্টা৷

বিশ্বকাপে ব্রাজিল পড়েছে গ্রুপ ই গ্রুপে৷ তাদের প্রতিপক্ষ হিসেবে আছে সুইজারল্যান্ড, কোস্টারিকা ও সার্বিয়া৷

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.