রাশিয়ার মোকাবিলা : বিলুপ্ত দ্বিতীয় নৌবহর ফেরাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র
রাশিয়ার মোকাবিলা : বিলুপ্ত দ্বিতীয় নৌবহর ফেরাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

রাশিয়ার মোকাবিলা : বিলুপ্ত দ্বিতীয় নৌবহর ফেরাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

নয়া দিগন্ত অনলাইন

রাশিয়াকে মোকাবেলার জন্য যুক্তরাষ্ট্র তাদের বিলুপ্ত করা দ্বিতীয় নৌবহর ফিরিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের চিফ অব ন্যাভাল অপারেশন এডমির‍্যাল জন রিচার্ডসন বলেছেন, ২০১১ সালে বিলুপ্ত করা দ্বিতীয় নৌবহর আবার নতুন করে গঠন করা হবে। এটি যুক্তরাষ্ট্রের পূর্ব উপকুল এবং উত্তর আটলান্টিকে মোতায়েন করা হবে।

তিনি আরও বলেছেন, এ বছরের শুরুতে যুক্তরাষ্ট্রের যে নতুন প্রতিরক্ষা কৌশল প্রকাশ করা হয়েছে তাতে এটা পরিস্কার যে পৃথিবীতে বৃহৎ শক্তিধর দেশগুলোর প্রতিদ্বন্দ্বিতা ফিরে এসেছে। কাজেই রাশিয়া ও চীনকে মোকাবেলার বিষয়টিকে এই নীতি প্রাধান্য দেয়া হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র তাদের দ্বিতীয় নৌবহর বিলুপ্ত করেছিল খরচ কমানো ও অন্যান্য কাঠামোগত বিষয় বিবেচনায় রেখে।

বিবিসির প্রতিরক্ষা বিষয়ক সংবাদদাতা জোনাথান মার্কাস বলছেন, দ্বিতীয় নৌবহরকে ফিরিয়ে আনার এই সিদ্ধান্ত যুক্তরাষ্ট্রের বৃহত্তর প্রতিরক্ষা কৌশলের অংশ। যুক্তরাষ্ট্র সাম্প্রতিক দশকগুলিতে বিদ্রোহী তৎপরতা দমনের দিকেই বেশি মনোযোগ দিয়েছিল। কিন্তু এখন তারা মনোযোগ নিবদ্ধ করছে বড় বড় দেশের মধ্যে এখন যে প্রতিযোগিতা চলছে সেদিকে। বিশেষ করে রাশিয়ার দিকে।

রাশিয়া সম্প্রতি তাদের নৌশক্তি বাড়ানোর জন্য প্রচেষ্টা জোরদার করেছে। বাল্টিক সাগর, উত্তর আটলান্টিক মহাসাগর ও আর্কটিক অঞ্চলে রাশিয়ার সামরিক তৎপরতা বাড়ছে।

কে এই দ্বিতীয় নৌবহরের কমান্ডার হবেন এই বহরে কী কী থাকবে তা এখনো ঠিক হয়নি।

রাশিয়া ও পশ্চিমা দেশগুলোর মধ্যে দ্বন্দ্ব বাড়ছে বহু বছর ধরে। বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে নাক গলানোর অভিযোগ, সিরিয়ায় বাশার-আল-আসাদের প্রতি সমর্থন ও ব্রিটেনে সাবেক রুশ গুপ্তচর সের্গেই স্ক্রিপলের ওপর বিষ প্রয়োগের ঘটনা নিয়ে রাশিয়ার সঙ্গে পশ্চিমা দেশগুলোর সম্পর্কের ব্যাপক অবনতি ঘটে।


যুক্তরাষ্ট্রে সুরক্ষা সুবিধা হ্রাসে হন্ডুরাসের নাগরিকদের ক্ষোভ
যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস ও কর্মরত হন্ডুরাসের প্রায় ৬০ হাজার নাগরিকের বিশেষ সুরক্ষা সুবিধা হ্রাস করায় সে দেশের নাগরিকেরা শুক্রবার ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কঠোর অভিবাসন আইনের আওতায় তাদের সুবিধা হ্রাস করা হয়। খবর এএফপি’র।

এর আগে এক বিবৃতিতে ইউএস ডিপার্টমেন্ট অব হোমল্যান্ড সিকিউরিটি জানায় যে তারা হন্ডুরাসের তথাকথিত সাময়িক সুরক্ষা সুবিধা (টিপিএস) বাতিল করছে। তবে নতুন এ ব্যবস্থার সাথে খাপ খাইয়ে নিতে তাদেরকে ১৮ মাস সময় দেয়া হয়েছে। ফলে তারা ২০২০ সালের ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত সময় পাচ্ছে।

এর আগে ট্রাম্পের সরকার এল সালভেদর, হাইতি, নেপাল ও নিকারাগুয়ার নাগরিকদের টিপিএস সুবিধা বাতিলের ঘোষণা দিয়েছিল।
হন্ডুরাসের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, টিপিএস বাতিল যুক্তরাষ্ট্রের সার্বভৌম সিদ্ধান্ত। তবে এটি খুবই দুঃখজনক।

ট্রাম্পের সঙ্গে আলোচনা করতে ওয়াশিংটন যাচ্ছেন মুন
দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইন ডেমোক্রেটিক পিপলস রিপাবলিক অফ কোরিয়া (ডিপিআরকে) ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে বৈঠকের ব্যাপারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে আলোচনা করতে ওয়াশিংটন সফরে যাচ্ছেন। শনিবার দক্ষিণ কোরিয়ার ব্লু-হাউজ একথা জানায়। খবর সিনহুয়ার।

ট্রাম্পের আমন্ত্রণে ডিপিআরকে-যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে প্রথম দফা বৈঠকের প্রাক্কালে আগামী ২২ মে মুন ওয়াশিংটন যাচ্ছেন। মে মাসের শেষ দিকে বা জুন মাসের প্রথম দিকে তাদের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ এই বৈঠক অনুষ্ঠানের আভাস পাওয়া যাচ্ছে।

ব্লু-হাউজ জানায়, মুন ও ট্রাম্পের মধ্যে এই আলোচনায় আসন্ন ডিপিআরকে ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার বৈঠকের সফল প্রস্তুতির উপায় খুঁজে বের করার ওপর গুরত্ব দেয়া হবে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.