শেওড়াপাড়ায় বিকাশকর্মীকে গুলি করে তিন লাখ টাকা ছিনতাই

যাত্রাবাড়ীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে বাবা-ছেলের মৃত্যু
নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর শেওড়াপাড়ায় গতকাল দুপুরে এক বিকাশকর্মীকে গুলি করে তিন লাখ টাকা ছিনতাই করেছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ বিকাশকর্মী আল আমিনকে (২৬) ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
আহতের সহকর্মী শিশির সরকার হাসপাতালে জানান, বিকাশের এজেন্ট কোম্পানির (এআইডি) বিক্রয়কর্মী হিসেবে চাকরি করেন আল আমিন। দুপুরে বাইসাইকেলে করে আল আমিন শেওড়াপাড়া এলাকার বিভিন্ন বিকাশের এজেন্টদের কাছ থেকে টাকা সংগ্রহ করছিল। আড়াইটার দিকে শেওড়াপাড়া ওরবিট গলি দিয়ে যাওয়ার সময় সিএনজি বেবিটেক্সিতে আসা দুই ছিনতাইকারী তার পথরোধ করে। কিছু বুঝে ওঠার আগেই এক ছিনতাইকারী আল আমিনের পায়ে গুলি করে তার সাথে থাকা টাকার ব্যাগ ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। আল আমিন বাম পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়ে রাস্তায় পড়ে যায়। খবর পেয়ে সহকর্মীরা তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে তাকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ব্যাগে প্রায় তিন লাখ টাকা ছিল বলে দাবি করেন তিনি।
আল আমিন কিশোরগঞ্জের তারাইল উপজেলার কলাপাড়া গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে। তিনি পরিবার নিয়ে কাফরুলের ইব্রাহিমপুরে ভাড়া থাকেন।
এ ব্যাপারে কাফরুল থানার ওসি সিকদার মোহাম্মদ শামীম জানান, ছিনতাইয়ের ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। একই সাথে ছিনতাইকারীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।
যাত্রাবাড়ীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে বাবা-ছেলের মৃত্যু : খেলতে গিয়ে খালে পড়ে যায় টেনিস বলটি। সেটি তুলতে গিয়ে ডোবায় পড়ে থাকা বিদ্যুতের তারে স্পৃষ্ট হয়ে আটকা পড়ে শিশু আরমান (১০)। এ সময় সন্তানকে উদ্ধারে ছুটে আসেন বাবা আব্দুল হান্নান (৪০)। কিন্তু ছেলেকে উদ্ধারে শুধু ব্যর্থই নন, বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ছেলের সাথে তিনিও মারা যান। গতকাল দুপুরে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর শেখদি পশ্চিমপাড়া বড়বাড়ি এলাকায় এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে।
নিহত হান্নানের খালাতো ভাই আবদুর রশীদ হাসপাতালে জানান, বাড়ির পাশের একটি গলিতে আরমান টেনিস বল নিয়ে খেলছিল। একপর্যায়ে বলটি পাশের একটি খালে চলে যায়। আরমান বলটি তুলতে গিয়ে খালের পানিতে নামে। এ সময় সেখানে থাকা বৈদ্যুতিক তারে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয় সে। আরমানকে উদ্ধার করতে তার বাবা পানিতে নামলে তিনিও বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। পরে স্থানীয় লোকজন দুজনকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।
শিশু আরমান স্থানীয় শেখদি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্র ছিল। তার বাবা আব্দুল হান্নান পেশায় রাজমিস্ত্রি। তারা ওই এলাকায়ই তাদের বাড়ি।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.