ব্যাংক ও আর্থিক খাতে লুটপাট বন্ধে ব্যর্থতা

অর্থমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি বাম মোর্চার

নিজস্ব প্রতিবেদক

ব্যাংক ও আর্থিক খাতে লুটপাট, স্বেচ্ছাচারিতা ও অর্থপাচার বন্ধে ব্যর্থতার দায় স্বীকার করে অর্থমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেছেন গণতান্ত্রিক বাম মোর্চার নেতৃবৃন্দ।

আজ বৃহস্পতিবার গণতান্ত্রিক বাম মোর্চার সংবাদ সম্মেলনে নেতৃবৃন্দ এদাবি করেন।

ব্যাংক ও আর্থিক খাতে লুটপাট, স্বেচ্ছাচারিতা ও অর্থপাচার বন্ধের দাবিতে গণতান্ত্রিক বাম মোর্চার বক্তব্য এবং কর্মসূচি তুলে ধরতে এ সংবাদ সম্মেলন তোপখানা রোডস্থ কমরেড নির্মল সেন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন গণতান্ত্রিক বাম মোর্চার সমন্বয়ক শুভ্রাংশু চক্রবর্ত্তী।

নেতৃবৃন্দ অভিযোগ করেন, বর্তমান সরকারের শাসনামলে দেশে অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ খাত ও প্রতিষ্ঠানের মতো ব্যাংক ও আর্থিক খাতে চরম অনিয়ম, লুটপাট, দুর্নীতি, অর্থপাচার এক ভয়াবহ পর্যায়ে উপনীত হয়েছে। ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহে ন্যূনতম শৃংখলা ভেঙে পড়েছে। ব্যাংক পরিচালনায় চলছে এক নজীরবিহীন স্বেচ্ছাচারিতা। জাতীয় নির্বাচন যত ঘনিয়ে আসছে এ খাতে লুটপাট, দুর্নীতি ও অর্থপাচার তত বাড়ছে। ব্যাংক খাতে যে তারল্য সঙ্কট তা এসব কারণেই।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, বাম মোর্চার পক্ষ থেকে এসবের প্রতিবাদে ধারাবাহিক কর্মসূচির অংশ হিসেবে ২৯ এপ্রিল দেশব্যাপী বিক্ষোভ ও সমাবেশ কর্মসূচি ঘোষণা করছে। এর পাশাপাশি রাজধানীতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সড়কে বিকাল চারটায় কেন্দ্রীয়ভাবে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মোর্চার কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের মধ্যে সাইফুল হক, অধ্যাপক আবদুস সাত্তার, মোশরেফা মিশু, নজরুল ইসলাম, বাসদ (মার্কসবাদী) কেন্দ্রীয় নেতা মানস নন্দী, গণসংহতি আন্দোলনের সমন্বয়ক ফিরোজ, বাসদ নেতা ফখরুদ্দিন আতিক প্রমুখ।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.