ধর্ষণ রুখতে ছেলেদের আরো দায়িত্বশীল করে তুলুন : মোদি
ধর্ষণ রুখতে ছেলেদের আরো দায়িত্বশীল করে তুলুন : মোদি

ধর্ষণ রুখতে ছেলেদের আরো দায়িত্বশীল করে তুলুন : মোদি

নয়া দিগন্ত অনলাইন

ধর্ষণ রুখতে অভিভাবকদের পরামর্শ দিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, ধর্ষণের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সরকার বদ্ধপরিকর। কিন্তু ছেলেদেরও দায়িত্বশীল হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। 

নরেন্দ্র মোদি বলেন, নাবালকদের ধর্ষণে সরকারের অর্ডিন্যান্সে মৃত্যুদণ্ড নিয়ে শিবরাজ জি এইমাত্র কথা বললেন। দেখলাম সবাই এতে খুবই খুশি। অর্থাৎ দিল্লিতে একটি সরকার রয়েছে ‌যারা আপনাদের কথা শোনে। তাই কেন্দ্র মৃত্যুদণ্ডের ব্যবস্থা করেছে।

তিনি আরো বলেন, সমাজে মেয়েদের সুরক্ষার পরিবেশ তৈরি করতে হবে। পরিবারের মধ্যেই মেয়েদের প্রতি সম্মান দেখানোর শিক্ষা দিতে হবে। পাশাপাশি ছেলেদেরও বেশি দায়িত্ববান হিসেবে গড়ে তুলে তবে। এভাবে চললে সমাজে মেয়েদের নিরাপত্তা খুব একটা বড় কোনো ব্যাপার নয়। এর জন আমাদের একটি সামাজিক আন্দোলন তৈরি করতে হবে।

ধর্ষণকে শত্রুতার নতুন অস্ত্র হিসেবে দেখছেন ভারতের মুসলিমরা
আলজাজিরা

কাশ্মিরের উপজাতিরা আধুনিক ভারতের কোনো সুযোগ-সুবিধাই পায় না। পাহাড়ে ছাগল, গরু আর ঘোড়া চরিয়েই তাদের জীবিকা চলে। তারা সাধারণত খবরেই আড়ালেই থাকে, কিন্তু সম্প্রতি আট বছর বয়সী শিশু আসিফা বানুর অপহরণ করে মন্দিরে আটকিয়ে চার দিন ধরে গণধর্ষণের পর নৃশংসভাবে হত্যা করার খবর ছড়িয়ে পড়ার পর তাদের সমস্যাগুলো সামনে আসে।

হিন্দু অধ্যুষিত ওই অঞ্চলের মুসলিম শিশুটি হিন্দুদের দ্বারা গণধর্ষণ ও নিহত হওয়ার পর নিরাপত্তার অভাবে এলাকা ছাড়তে শুরু করেছে। ৭৪ বছর বয়সী গোলাম মোহাম্মাদ রাস্তার পাশের ইউক্যালিপ্টাস গাছের নিচে অস্থায়ী তাঁবুতে বসবাস করছেন। তিনি বলেন, হিন্দুরা চায় না আমরা এই এলাকায় থাকি। মুসলিমদের বিরুদ্ধে তাদের মনে অনেক শত্রুতা রয়েছে।

গোলাম মোহাম্মাদ আরো বলেন, আমি ধর্ষণের ঘটনাটি রেডিওতে শুনেই এলাকা ছেড়েছি। এখন রাস্তার পাশের তাবুতে আছি, সাথে আমার মেয়েও আছে। চিন্তায় রাতে ঘুমাতে পারি না, সবসময় ভয়ে থাকি, মনে হয় হয়তো কেউ আসছে।

পুলিশ বলছে, সম্প্রতি আসিফাকে মাদকাসক্ত করে আটজন মিলে চার দিন ধরে মন্দিরে আটকে রেখে ধর্ষণ করে। পরে মাথায় পাথর দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করা হয়; যা বর্তমানে ভারতের সবচেয়ে আলোচিত বিষয়।

ওই ক্যাম্পেরই এক বাসিন্দা রেসনা বিবি তার দশ বছর বয়সী নাতনীর দিকে দেখিয়ে বললেন, আসিফা এর মতো বড়ই ছিল। জম্মু-কাশ্মির একমাত্র মুসলিম প্রধান রাজ্য হলেও জম্মু এলাকায় হিন্দু বেশি। মুসলিম যাযাবররা সাধারণত অতিরিক্ত শীত থেকে বাঁচতে সেপ্টেম্বর ও অক্টোবরে এই এলাকায় আসে। কিন্তু স্থানীয় হিন্দুদের তোপের মুখে পড়তে হয়। যদিও ওই সব ভূমির মালিকানা নির্দিষ্ট কোনো হিন্দুর নয়।

মোহাম্মদ বলেন, জম্মু থেকে শ্রীনগরের দূরত্ব প্রায় ১৩০ কিলোমিটার। আমরা জম্মু ছেড়েছি তিন দিন আগে। আরো দুই সপ্তাহ লাগবে মূল শহর শ্রীনগরে পৌঁছতে। রেসনা বিবি বলেন, এটা কোনো জীবন নয়, আমি চাই আমার সন্তান লেখাপড়া করুক।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.