ঢাকা, বৃহস্পতিবার,২১ মার্চ ২০১৯

খুলনা

চৌগাছায় ধানের বাম্পার ফলন

এম এ রহিম চৌগাছা (যশোর) 

২৫ এপ্রিল ২০১৮,বুধবার, ১৪:০০


প্রিন্ট

যশোরের চৌগাছায় ইরি-বোরো কাটা শুরু হয়েছে। ধানের বাম্পার ফলন ও দাম পেয়ে খুশি কৃষক। তবে আবহাওয়া অনুকূলে না থাকা ও ধান কাটা শ্রমিকের চরম সংকট হওয়ায় চাষিরা দারুন দুশ্চিতায় পড়েছে।
উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানাযায় এ বছর উপজেলার ইরিধান চাষের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১৩ হাজার ৩শ ৩২ হেক্টর জমিতে। চাষ হয়েছে ১৪ হাজার ৭শ ৫০ হেক্টর জমিতে। এ বছর লক্ষ্যমাত্রার চাইতে ১ হাজার ৪শ ১৮ হেক্টর জমিতে বেশী ইরিধানের চাষ করা হয়েছে। উৎপাদনও বিগত যে কোনো বছরের তুলনায় বেশি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
উপজেলার সিংহঝুলী গ্রামের ধান চাষী আজিম হোসেন জানান চলতি মৌসুমে তেল, সার, বীজ ক্রয় করতে কোনো সমস্য হয়নি, তাছাড়া বিগত দিনের মত বিদ্যুতের লোডশেডিং নাথাকা এবং মৌসুমের মাঝামাঝির দিকে পরিমাণ মত বৃষ্টিপাত হওয়ায় ধানের ভালো ফলন হয়েছে।
সরেজমিনে উপজেলার বিভিন্ন মাঠ ঘুরে দেখা গেছে প্রায় সব এলাকায় ইরি ধান কাটতে ব্যস্ত সময় পার করছে কৃষকরা। কথা হয় রামকৃষ্ণপুর গ্রামের চাষী নওশের আলীর সাথে তিনি জানান ৫ বিঘা জমিতে সুবল লতা জাতের ইরিধান চাষ করেছি। চাষ, সেচ, সার, নিড়ানি, জমিলিজ, ফসল কাটা, মাড়াইসহ ধান ঘরে উঠা পর্যন্ত বিঘাপ্রতি ৮/১০ হাজার টাকা খরচ হবে। এক বিঘা জমিতে ধানের ফলন হবে ২৭/২৮ মণ পর্যন্ত। বর্তমানে বাজারে নতুন ধান ৮শ ৫০ থেকে ৯ টাকা মণ বিক্রি হচ্ছে। তিনি জানান ১১শ থেকে ১২’শ টাকামণ দরে বিক্রি করতে পারলে লাভ হবে।
কয়ারপাড়া গ্রামের চাষী আব্দুস সামাদ বলেন আবহাওয়া অনুকূলে না থাকা ও ধান কাটা শ্রমিকের চরম সংকট হওয়ায় চাষীরা দারুণ দুশ্চিতায় পড়েছে।
তিনি বলেন ১৬ বিঘা জমিতে ৪শত ৩০ মণের বেশি ধান উৎপাদন হবে বলে আশা করছি। এছাড়া একাধিক ধানচাষী জানিয়েছেন এ বছরে সার,বীজ, কিটনাশক, ডিজেল পেতে কোনো সমস্যা না হওয়ায় এবং মৌসুমের মাঝামাঝির দিকে পরিমান মত বৃষ্টিপাত হওয়ায় ধানের ভালো ফলন হয়েছে। তবে যে সব চাষীরা এখনো ধান ঘরে তুলতে পারেনি তারা ফসল গোছানোর জন্য কাল বৈশাখীর বৈরী আচারণ নিয়ে শংকিত রয়েছেন।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রইচ উদ্দীন জানান, আমরা সব সময় কৃষকের পাশেই আছি। এ বছর গম চাষ কম হওয়ায় ধান চাষের লক্ষ্যমাত্রার চাইতে ১ হাজার ৪শ ১৮ হেক্টর জমিতে বেশী ইরিধানের চাষ হয়েছে। তাছাড়া এবছরে ধানের দাম তুলনামূলক ভাল। আবহাওয়া অনুকূলে থাকালে বাম্পারফলনের আশা করছি।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫