শেষ বলে জয় এনে দিলেন মুজিব
শেষ বলে জয় এনে দিলেন মুজিব

শেষ বলে জয় এনে দিলেন মুজিব

নয়া দিগন্ত অনলাইন

শেষ বলে ছক্কা হতে দিলেন না আফগান তারকা মুজিব-উর-রহমান। আর তাতেই বাজিমাত কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের। রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে ৪ রানে জিতে আইপিএল পয়েন্ট তালিকায় উঠে গেল পাঞ্জাব। ক্রিস গেইলকে ছাড়াই এ দারুণ জয় পেল তারা।

অন্যদিকে ঘরের মাঠেও হারের গণ্ডি থেকে বেরিয়ে আসতে পারল না দিল্লি ডেয়ারডেভিলস৷ কিংস ইলেভেনের বিরুদ্ধে ১৪৪ রান তাড়া করতে নেমে ৪ রান দূরে থেমে গম্ভীরবাহিনী৷ শেষ ওভারে রুদ্ধশ্বাস লড়াই জিতে ফের লিগ শীর্ষে পৌঁছল প্রীতি জিন্টার পাঞ্জাব৷

শ্রেয়সের দুরন্ত লড়াইয়েও শেষরক্ষা হয়নি দিল্লির৷ শেষ ওভারে ডেভিলসের জয়ের জন্য দরকার ছিল ১৭ রান৷ নবাগত আফগান স্পিনার মুজিব-উর রহমানের হাতে বল তুলে দেন কিংস ক্যাপ্টেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন৷কিন্তু ১৩ রানের বেশি তুলতে পারেননি শ্রেয়স আয়ার৷ শেষ বলে দিল্লির দরকার ছিল পাঁচ রান৷ ছয় মারতে গিয়ে বাউন্ডারির ধারে শ্রেয়স আউট হওয়ায় ৪ রানে রুদ্ধশ্বাস লড়াই জিতে নেয় কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব৷ অশ্বিনের নেতৃত্বে একাদশ আইপিএলে শুরু থেকেই দারুণ ছন্দে প্রীতি জিন্টার দল৷ ছ’টি ম্যাচ খেলে পাঁচটি জিতে ১০ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকায় ফের এক নম্বরে কিংস ইলেভেন৷

গেইল না-থাকায় ডেভিলসদের বিরুদ্ধে এদিন কিংসের ইংনিস শুরু ভালো হয়নি৷ লোকেশ রাহুল ও অ্যারন ফিঞ্চ পঞ্জাবের ইনিংস শুরু করেন৷কিন্তু দ্বিতীয় ওভারেই ফিঞ্চ ডাগ-আউটে ফেরায় শুরুতেই ধাক্কা খায় কিংস ইনিংস৷ফর্মে থাকা রাহুলও ২৩ রানে আউট হন৷ চূড়ান্ত ব্যর্থ যুবরাজ সিং৷এদিন তাঁর সংগ্রহে মাত্র ১৪৷ ১৭ বলে একটি মাত্র বাউন্ডারি মারেন প্রীতির দলের এই বাঁ-হাতি৷ পাঁচ ম্যাচে যুবরাজের সংগ্রহে মাত্র ৫০ রান৷ কিংসের হয়ে সর্বোচ্চ ৩৪ রান করেন করুণ নায়ার৷ এছাড়া মিলার ২৬ এবং ময়ঙ্ক আগরওয়াল ২১ রান করেন৷২০ ওভারে আট উইকেট হারিয়ে মাত্র ১৪৩ রান তোলে পঞ্জাব৷

কিন্তু দেড় শ'র কম রান তাড়াা করতে নেমেও শুরু থেকেই নিয়মিত উইকেট হারাতে থাকে দিল্লি৷ পাওয়ার প্লে-তে (প্রথম ৬ ওভার) তিন উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যাায় ডেভিলসরা৷ সেখান থেকে আয়ারে লড়াকু হাফ-সেঞ্চুরিও দিল্লিকে জয় এনে দিতে পারেননি৷ ৪৫ বলে ৫৭ রানে ইনিংসের শেষ বলে আউট হন আয়ার৷ চুড়ান্ত ব্যর্থ ক্যাপ্টেন গম্ভীর৷ ১৩ বলে মাত্র ৪ রানে ডাগ-আউটে ফেরেন তিনি৷ কিংসের হয়ে চার ওভারে ২৩ রান দিয়ে দু’টি উইকেট তুলে নিয়ে ম্যাচের সেরা অঙ্কিত রাজপুত৷

কোটলায় এদিন টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ডেভিলস অধিনায়ক গম্ভীর৷ পয়েন্ট তালিকায় সবার নিচে থাকা দিল্লি এদিন দলে পাঁচটি পরিবর্তন করে৷ এদিন আইপিএল অভিষেক হল অনূর্ধ্ব-১৯ ভারতীয় দলের বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক পৃথ্বী শ এবং ইংল্যান্ড পেসার লিয়াম প্লানকেটের৷ এছাড়াও দলে ঢোকেন আবেশ খান, ড্যানিয়েল ক্রিশ্চিয়ান এবং অমিত মিশ্র৷ ফলে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্সের দল থেকে বাদ পড়েছেন জেসন রয়, ক্রিস মরিস, বিজয় শঙ্কর, শাহনাবাজ নাদিম এবং হর্ষল প্যাটেল৷ কিন্তু তাতেও জয়ে ফিরল না ডেভিলসরা৷

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.