আ’লীগ ৪ বিএনপি ১ জাপা ৩ ও ঐক্যজোটের ১ সম্ভাব্য প্রার্থী

কুমিল্লা-১ আসন
হানিফ খান দাউদকান্দি (কুমিল্লা)

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুমিল্লা-১ দাউদকান্দি-মেঘনা আসনে নির্বাচনী হাওয়া বইতে শুরু করেছে। এ মুহূর্তে সম্ভাব্য প্রার্থীরা যার যার কৌশলগত অবস্থান থেকে প্রচারণার মাধ্যমে সাধারণ মানুষকে উদ্বুদ্ধ করছেন। আওয়ামী লীগ প্রার্থীদের প্রধান কৌশল উন্নয়ন, বিএনপির মুখ্য বিষয় খালেদা জিয়াকে মুক্তির নির্বাচন, জাপা (এরশাদ)পন্থীদের বক্তব্য তাদের সময় হয়েছে প্রকৃত উন্নয়ন আর ঐক্যজোটের প্রার্থীর এক কথা ঈমান ও আমল সংরক্ষণের নির্বাচন। আওয়ামী লীগের বক্তব্য সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে, বিএনপির বক্তব্য সেনা মোতায়েন ও লেভেল প্লেইন ফিল্ড তৈরি করতে হবে। দেশের মূল দু’টি বড় দলের বিপরীতমুখী অবস্থানের কারণে পরিস্থিতি উত্যপ্ত হয়ে উঠলে নিরীহ সাধারণ মানুষ ভোট দিতে যাবে না এমনটি মন্তব্য অভিজ্ঞ মহলের। দু’পক্ষের শক্তির মহড়ায় নির্বাচন কমিশন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যথাযথ ভূমিকা না রাখলে খুনাখুনির মতো অনাকাক্সিক্ষত ঘটনার ইঙ্গিত দিয়েছেন সুশীল সমাজের লোকজন।
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে মাঠে রয়েছেন আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য চার প্রার্থী। এর মধ্যে অন্যতম হলেন বর্তমান সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল অব: সুবিদ আলী ভূঁইয়া। আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়র আব্দুস সবুর। বিগত নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী ও কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের উপপ্রচার সম্পাদক ব্যারিস্টার নাঈম হাসান ও মেঘনার সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান শফিকুল আলম। মেজর জেনারেল অব: সুবিদ আলী ভুঁইয়ার পরেই পৃথকভাবে গণসংযোগ করে যাচ্ছেন ব্যারিস্টার নাঈম হাসান।
বিএনপির একক প্রার্থী সাবেক মন্ত্রী ও দলের স্থায়ী কমিটির সিনিয়র সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। জাতীয় পার্টি (এরশাদ) থেকে যারা নির্বাচন করতে চান তারা হলেন, পার্টির কেন্দ্রীয় ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক আবু জায়েদ আল মাহমুদ মাখন সরকার। ছাত্রসমাজের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইফতেখার আহসান হাসান ও জিসান উদ্দিন প্রধান। ইসলামী ঐক্যজোট থেকে কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও হেফাজতে ইসলামের ঢাকা মহানগর দফতর সম্পাদক মাওলানা আলতাফ হোসাইন কিছুদিন পরপরই মেঘনার সাতানীতে তার প্রতিষ্ঠিত মাদরাসায় দলের ও ঈমান আকিদা সংরক্ষণ কমিটির লোকদের নিয়ে নির্বাচনী প্রস্তুতি সভা করছেন। উন্নয়ন-উদ্বোধন ছাড়াও বিভিন্ন সভা-সমাবেশে সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল অব: সুবিদ আলী ভূঁইয়া ও ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সবুর এক মঞ্চে কাজ করলেও ব্যারিস্টার নাঈম ও শফিকুল আলম পৃথকভাবে কাজ করছেন।
ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন তার প্রতিষ্ঠিত দু’টি কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষাঙ্গন ও সামাজিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এলাকাবাসীর সাথে সাক্ষাৎ-শুভেচ্ছা বিনিময়ে সাধারণ জনগণ ও নেতাকর্মীদের চাঙ্গা করে রাখছেন।
জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক আবু জায়েদ আল মাহমুদ মাখন সরকার দাউদকান্দি ও মেঘনায় গণসংযোগ ও সামাজিক অনুষ্ঠানে যোগদান এবং পোস্টারের মাধ্যমে বিভিন্ন দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়ে জাপার পক্ষে জনমত সৃষ্টিতে কাজ করছেন। তবে সংসদ সদস্য হওয়ার সুবাদে উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে সুবিধাজনক স্থানে রয়েছেন মেজর জেনারেল অব: সুবিদ আলী ভুঁইয়া। এ ছাড়া সাংগঠনিক ও বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলনের অংশ হিসেবে বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেনের জনপ্রিয়তা রয়েছে তৃণমূল পর্যায়ে। বর্তমান সময়ে জামায়াতের কোনো প্রার্থীর নাম শোনা না গেলেও শেষ মুহূর্তে কী হয় দেখার বিষয়। নির্বাচনী প্রতিদ্বন্দ্বিতায় শেষ লড়াই হবে নৌকা ও ধানের শীষের মধ্যে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.