মির্জাগঞ্জে ছাত্রলীগ নেতার কাণ্ড

ইমামকে গাছের সাথে বেঁধে নির্যাতন, প্রধান আসামি গ্রেফতার

মির্জাগঞ্জ (পটুয়াখালী) সংবাদদাতা

পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে ছাত্রলীগ নেতা মসজিদের ইমামকে গাছের সাথে বেঁধে পিটিয়ে মাথা ন্যাড়া করার অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগের এক নেতার বিরুদ্ধে। উপজেলার দক্ষিণ মির্জাগঞ্জ গ্রামে ছাত্রলীগ নেতা রাসেল ও তার দলবল গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটিয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ শুক্রবার সন্ধ্যায় মির্জাগঞ্জ গ্রাম থেকে মামলার প্রধান আসামি মো: রাসেল হাওলাদারকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। পূর্বশত্রুতার জের হিসেবে এ ঘটনায় আহত মসজিদের ইমাম মো: গাফফার হাওলাদারকে (৪৫) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় আহত ইমাম গাফফারের বড় ভাই রাজ্জাক হাওলাদার বাদি হয়ে ছাত্রলীগ নেতা রাসেলসহ ৫ জনকে আসামি করে গত শুক্রবার মির্জাগঞ্জ থানায় এক মামলা দায়ের করেন। ঘটনার দিন পুলিশ আনসার ও জলিল নামে দু’জনকে আটক করেছে।
জানা যায়, উপজেলার কাঁকড়াবুনিয়া গ্রামের মো: হোসেন হাওলাদারের ছেলে বেতাগী উপজেলার মিয়াবাড়ি জামে মসজিদের ইমাম মো: গাফফার হাওলাদার বিভিন্ন রোগের ঝাড়-ফুঁক ও তাবিজ দিয়ে লোকজনের চিকিৎসা করেন। এর আগে মির্জাগঞ্জ গ্রামের স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতা মো: রাসেল হাওলাদারের এক আত্মীয়কে চিকিৎসার কথা বলে টাকা-পয়সা নেন তিনি। পূর্বশত্রুতার জের ধরে ছাত্রলীগের নেতা রাসেল বৃহস্পতিবার তাকে ফোনে ডেকে সাঙ্গোপাঙ্গসহ নিজে গাফফার হাওলাদারকে গাছের সাথে বেঁধে ফেলে। এরপর তাকে পিটিয়ে আহত করে তার মাথা ন্যাড়া করে দেন। পরে এলাকাবাসী খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে গাফফারকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।
মির্জাগঞ্জ থানার ওসি মো: মাসুমুর রহমান বিশ্বাস জানান, মামলার প্রধান আসামিসহ তিনজনকে আটক করা হয়েছে। বাকিদের আটকের চেষ্টা চলছে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.