ঢাকা, বুধবার,২৫ এপ্রিল ২০১৮

খুলনা

ইবির বৈশাখী মেলার শেষ মূহূর্তে অশ্লীলতা

সাইফুল্লাহ হিমেল, ইবি

১৭ এপ্রিল ২০১৮,মঙ্গলবার, ০৬:৩৪ | আপডেট: ১৭ এপ্রিল ২০১৮,মঙ্গলবার, ০৭:২৩


প্রিন্ট
ইবির বৈশাখী মেলার শেষ মূহূর্তে অশ্লীলতা

ইবির বৈশাখী মেলার শেষ মূহূর্তে অশ্লীলতা

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বৈশাখী মেলার শেষ মূহুর্তে অশ্লীলতার চিত্র দেখা গিয়েছে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্পটে। মেলা শেষ হওয়ার ঠিক আগ মূহূর্তে বৃষ্টির কারণে বিশৃঙ্খলা ছড়িয়ে পড়ে। সেই সুযোগ কাজে লাগতে উন্মাদ হয়ে ওঠে সুযোগ সন্ধানীরা। টিএসসিসির দ্বিতীয় এবং তৃতীয় তলা, ফুটবল মাঠের ছাউনি, স্মৃতি সৌধ, মেলার বিভিন্ন স্টলসহ ক্যাম্পাসের বেশ কিছু স্পটে যুবোক-যুবতীদের জোড়ায় জোড়ায় আপত্মিকর অবস্থায় দেখা গিয়েছে। অশ্লীলতার খবর প্রক্টরিয়াল বডির নজরে এলে তাৎক্ষণিক অভিযানে নামেন তারা।

ক্যাম্পাস সূত্রে জানা যায়, তিন দিনব্যাপী বৈশাখী মেলার সকাল থেকে রাত আটটা পর্যন্ত চলেছে। সন্ধ্যা নামলেই সুযোগ সন্ধানীরা ভিড় জমায় ক্যাম্পাসে। তৃতীয় দিন মেলা শেষ হওয়ার ঠিক এক ঘন্টা আগে সন্ধ্যা সাতটা থেকে শুরু হয় বৃষ্টি। আর এতেই ঘটে যায় বেশ কিছু অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা। হঠাৎ বৃষ্টির সুযোগ নিয়ে বহিরাগত যুবক-যুবতীরা জোড়া জোড়ায় ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্পটে আপত্তির কার্যক্রমে লিপ্ত হতে শুরু করে। তবে প্রত্যক্ষদর্শীদের অভিযোগ শুধু বহিরাগত নয়, ক্যাম্পাসের শিক্ষার্থীরাও বাদ যায়নি বৃষ্টির সুযোগ লাগানো থেকে।

খবর পেয়ে প্রক্টরিয়াল বডি ইবির টিএসসিসির দ্বিতীয় এবং তৃতীয় তলায় অভিযান চালায়। মানুষের উপস্থিতি বুঝতে পেরে দ্রুত কেটে পড়ে অনেকে। অভিযানে একটি যুগোল আটক করে প্রক্টরিয়াল বডি। এ সময় সেখানে প্রক্টরের গাড়ি চালক একজন সাংবাদকর্মী উপস্থিত ছিলেন বলে জানা যায়। প্রক্টরিয়াল বডির জিজ্ঞাসাবাদে আটক ওই যুগোল জানান, তারা ইবির আইন বিভাগের প্রথমবর্ষের শিক্ষার্থী। নিজেকে ক্যাম্পাসের শিক্ষার্থী প্রমাণ করতে আটককৃত মেয়ে পুতুল (ছদ্ম নাম) জানান, তিনি বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা হলে থাকে।

আটককৃতদের বর্তমান অবস্থা জানতে চাইলে (রাত আটটার দিকে) প্রক্টর প্রফেসর ড. মাহবুবর রহমান বলেন, ‘আমরা নিত্যকর্ম হিসাবে অভিযান করেছি। তবে ওই অভিযানে কাউকে আটক করা হয়নি।’

 

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫